গায়ে ময়লাপানি ফেলার জেরে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা
jugantor
গায়ে ময়লাপানি ফেলার জেরে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

  ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২০ মে ২০২১, ১৯:০২:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের ছাতকে গায়ে ময়লাপানি ফেলার জেরে হাজী মোস্তফা আনোয়ার এনাম (৪০) নামে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ব্যাপারে নিহতের ভাই মোস্তফা দেলোয়ার পারভেজ জানান, তার ব্যবসায়ী ভাই হাজী মোস্তফা আনোয়ার এনাম সিলেটে বসবাস করতেন। পরিবারের সবার সঙ্গে ঈদ উদযাপনের জন্য তিনি বাড়িতে আসেন। ঈদের আগের দিন ইফতারের পূর্বে ইফতারি ও বাজার নিয়ে ঘরে ফিরছিলেন তিনি।

ঘরের পাশে আসলে তার চাচাতো ভাই দবির মিয়ার স্ত্রী লাভলী বেগম তাকে লক্ষ্য করে তার উপর ময়লাপানি ফেলে দেয়। এ নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় দবির মিয়া ও তার স্ত্রী লাভলী বেগমসহ তাদের সহযোগীরা দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত করে হাজী মোস্তফা আনোয়ার এনামকে।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পার্কভিউ হাসপাতালে ৭ দিন আইসিইউতে থাকার পর গত বৃহস্পতিবার তার মৃত্যু হয়।

হামলার ঘটনার পর মোস্তফা আনোয়ার এনামের অপর ভাই মোস্তফা জুবায়ের বাদী হয়ে ছাতক থানায় ৯ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

এ মামলায় রকিব মিয়া ও কবির মিয়াকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এ মামলার অন্য আসামি দবির মিয়া, তার স্ত্রী লাভলী বেগম, শিহাব মিয়া, মিশু, শরীফ, জমির মোল্লা ও শিউলী পলাতক রয়েছে।

পৌরসভার কাউন্সিলর লিয়াকত আলী ব্যবসায়ী এনাম নিহতের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

গায়ে ময়লাপানি ফেলার জেরে ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

 ছাতক (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২০ মে ২০২১, ০৭:০২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের ছাতকে গায়ে ময়লাপানি ফেলার জেরে হাজী মোস্তফা আনোয়ার এনাম (৪০) নামে এক ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

এ ব্যাপারে নিহতের ভাই মোস্তফা দেলোয়ার পারভেজ জানান, তার ব্যবসায়ী ভাই হাজী মোস্তফা আনোয়ার এনাম সিলেটে বসবাস করতেন। পরিবারের সবার সঙ্গে ঈদ উদযাপনের জন্য তিনি বাড়িতে আসেন। ঈদের আগের দিন ইফতারের পূর্বে ইফতারি ও বাজার নিয়ে ঘরে ফিরছিলেন তিনি। 

ঘরের পাশে আসলে তার চাচাতো ভাই দবির মিয়ার স্ত্রী লাভলী বেগম তাকে লক্ষ্য করে তার উপর ময়লাপানি ফেলে দেয়। এ নিয়ে দুইপক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় দবির মিয়া ও তার স্ত্রী লাভলী বেগমসহ তাদের সহযোগীরা দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত করে হাজী মোস্তফা আনোয়ার এনামকে। 

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও পার্কভিউ হাসপাতালে ৭ দিন আইসিইউতে থাকার পর গত বৃহস্পতিবার তার মৃত্যু হয়। 

হামলার ঘটনার পর মোস্তফা আনোয়ার এনামের অপর ভাই মোস্তফা জুবায়ের বাদী হয়ে ছাতক থানায় ৯ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। 

এ মামলায় রকিব মিয়া ও কবির মিয়াকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। এ মামলার অন্য আসামি দবির মিয়া, তার স্ত্রী লাভলী বেগম, শিহাব মিয়া, মিশু, শরীফ, জমির মোল্লা ও শিউলী পলাতক রয়েছে।

পৌরসভার কাউন্সিলর লিয়াকত আলী ব্যবসায়ী এনাম নিহতের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন