কান্না শুনে মিলল কম্বল পেঁচানো নবজাতক, দায়িত্ব নিলেন এএসপি
jugantor
কান্না শুনে মিলল কম্বল পেঁচানো নবজাতক, দায়িত্ব নিলেন এএসপি

  সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২০ মে ২০২১, ২১:৪৮:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে বাড়ির প্রবেশ মুখে কান্না করছিল এক নবজাতক। সেই কান্নার শব্দে মিলল কম্বল পেঁচানো নবজাতকটি। একদিন বয়সী ওই নবজাতককে উদ্ধার করেছে সিংগাইর থানা পুলিশ ও সমাজসেবা অফিসের লোকজন। সেই সাথে ওই শিশুর ভরণ-পোষণের দায়িত্ব নিলেন সার্কেল এএসপি মোহা. রেজাউল হক।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার পৌর এলাকার বকচর (মিস্ত্রিপাড়া) থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে ওই এলাকার মৃত রাজু মিয়ার বাড়ির প্রবেশ মুখে কে বা কারা শিশু বাচ্চাটি রেখে যায়। রেখে যাওয়ার পর শিশুটি কান্না করতে থাকে। গৃহকর্ত্রী মধুমালা কান্নার শব্দ পেয়ে ঘর থেকে বের হয়ে খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে বাড়ির প্রবেশ মুখে কম্বল পেঁচানো অবস্থায় শিশুটি দেখতে পেয়ে উদ্ধার করেন।

বিষয়টি রাতেই জানাজানি হলে বিভিন্ন এলাকার লোকজন ঘটনাস্থলে ভিড় জমান। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে থানা পুলিশ ও সমাজসেবা কর্মকর্তারা খবর পেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সমাজসেবা অফিসের হেফাজতে নিয়ে যান। পরে শিশুটির দায়িত্ব নিতে আগ্রহী হলে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সিংগাইর উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের মাধ্যমে নবজাতক শিশুটি রিয়াজ উদ্দিন ও মিশু আক্তার মোর্শেদা দম্পতির কাছে হস্তান্তর করেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (সিংগাইর সার্কেল) মোহা.রেজাউল হক শিশুটিকে রিয়াজ উদ্দিন ও মিশু আক্তার মোর্শেদা দম্পতির কাছে হস্তান্তর করেন। তার ভরণ-পোষণ বাবদ প্রতি মাসে এক হাজার টাকা করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার (সিংগাইর সার্কেল) মোহা. রেজাউল হক, সিংগাইর থানার নবাগত ওসি শফিকুল ইসলাম মোল্লা, পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম ও সমাজসেবা অফিসার ইমানুর রহমান।

কান্না শুনে মিলল কম্বল পেঁচানো নবজাতক, দায়িত্ব নিলেন এএসপি

 সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২০ মে ২০২১, ০৯:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে বাড়ির প্রবেশ মুখে কান্না করছিল এক নবজাতক। সেই কান্নার শব্দে মিলল কম্বল পেঁচানো নবজাতকটি। একদিন বয়সী ওই নবজাতককে উদ্ধার করেছে সিংগাইর থানা পুলিশ ও সমাজসেবা অফিসের লোকজন। সেই সাথে ওই শিশুর ভরণ-পোষণের দায়িত্ব নিলেন সার্কেল এএসপি মোহা. রেজাউল হক।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার পৌর এলাকার বকচর (মিস্ত্রিপাড়া) থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে ওই এলাকার মৃত রাজু মিয়ার বাড়ির প্রবেশ মুখে কে বা কারা শিশু বাচ্চাটি রেখে যায়। রেখে যাওয়ার পর শিশুটি কান্না করতে থাকে। গৃহকর্ত্রী মধুমালা কান্নার শব্দ পেয়ে ঘর থেকে বের হয়ে খুঁজতে থাকেন। একপর্যায়ে বাড়ির প্রবেশ মুখে কম্বল পেঁচানো অবস্থায় শিশুটি দেখতে পেয়ে উদ্ধার করেন।

বিষয়টি রাতেই জানাজানি হলে বিভিন্ন এলাকার লোকজন ঘটনাস্থলে ভিড় জমান। পরে বৃহস্পতিবার দুপুরে থানা পুলিশ ও সমাজসেবা কর্মকর্তারা খবর পেয়ে শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সমাজসেবা অফিসের হেফাজতে নিয়ে যান। পরে শিশুটির দায়িত্ব নিতে আগ্রহী হলে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সিংগাইর উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের মাধ্যমে নবজাতক শিশুটি রিয়াজ উদ্দিন ও মিশু আক্তার মোর্শেদা দম্পতির কাছে হস্তান্তর করেন।

সহকারী পুলিশ সুপার (সিংগাইর সার্কেল) মোহা.রেজাউল হক শিশুটিকে রিয়াজ উদ্দিন ও মিশু আক্তার মোর্শেদা দম্পতির কাছে হস্তান্তর করেন। তার ভরণ-পোষণ বাবদ প্রতি মাসে এক হাজার টাকা করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার (সিংগাইর সার্কেল) মোহা. রেজাউল হক, সিংগাইর থানার নবাগত ওসি শফিকুল ইসলাম মোল্লা, পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম ও সমাজসেবা অফিসার ইমানুর রহমান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন