৭ বছরের ঘুমন্ত শিশুকে ধর্ষণ করল ১৬ বছরের ‘চাচা’
jugantor
৭ বছরের ঘুমন্ত শিশুকে ধর্ষণ করল ১৬ বছরের ‘চাচা’

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

২৪ মে ২০২১, ২২:২১:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলায় ৭ বছর বয়সী ঘুমন্ত শিশুকে ধর্ষণ করেছে ১৬ বছর বয়সী সম্পর্কিত চাচা। এ সময় শিশুটির মা বাইরে কাজে ব্যস্ত ছিলেন।

রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার চন্ডিপাশা ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

ধর্ষণের শিকার গুরুতর আহত শিশুটিকে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কিশোরগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে ওই শিশুটিকে বসত ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় রেখে তার মা ঘরের বাইরে কাজ করছিলেন। এ সুযোগে একই বাড়ির চাচা সম্পর্কের এক কিশোর ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত শিশুটিকে ধর্ষণ করে। শিশুটির আর্ত-চিৎকারে তার মা তাৎক্ষণিক ঘরে গেলে ওই কিশোর দৌড়ে পালিয়ে যায়।

শিশুকে উদ্ধার করে রাত ৯টার দিকে গুরুতর অবস্থায় প্রথমে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হতে থাকলে রাত ১০টায় কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। বর্তমানে ধর্ষিতা শিশু সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি মো. সারওয়ার জাহান জানান, রিমনকে গ্রেফতার করতে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।

৭ বছরের ঘুমন্ত শিশুকে ধর্ষণ করল ১৬ বছরের ‘চাচা’

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
২৪ মে ২০২১, ১০:২১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলায় ৭ বছর বয়সী ঘুমন্ত শিশুকে ধর্ষণ করেছে ১৬ বছর বয়সী সম্পর্কিত চাচা। এ সময় শিশুটির মা বাইরে কাজে ব্যস্ত ছিলেন।

রোববার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার চন্ডিপাশা ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

ধর্ষণের শিকার গুরুতর আহত শিশুটিকে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কিশোরগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।                   

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, রাত আনুমানিক সাড়ে ৮টার দিকে ওই শিশুটিকে বসত ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় রেখে তার মা ঘরের বাইরে কাজ করছিলেন। এ সুযোগে একই বাড়ির চাচা সম্পর্কের এক কিশোর ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত শিশুটিকে ধর্ষণ করে। শিশুটির আর্ত-চিৎকারে তার মা তাৎক্ষণিক ঘরে গেলে ওই কিশোর দৌড়ে পালিয়ে যায়।

শিশুকে উদ্ধার করে রাত ৯টার দিকে গুরুতর অবস্থায় প্রথমে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হতে থাকলে রাত ১০টায় কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়। বর্তমানে ধর্ষিতা শিশু সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি মো. সারওয়ার জাহান জানান, রিমনকে গ্রেফতার করতে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন