বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ
jugantor
বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ

  কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  

২৬ মে ২০২১, ১৯:৩১:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার কলমাকান্দায় বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে এক কিশোরীকে (১৩) ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে কলমাকান্দা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি দায়ের করেন।

এতে বিল্লাল মিয়া (২৮) নামে এক ব্যক্তিকে প্রধান আসামি করে পাঁচজনের নাম উল্লেখ করা হয়। পুলিশ এক আসামিকে গ্রেফতার করে বুধবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কলমাকান্দা সদর ইউনিয়নের ওই মাদ্রাসাছাত্রী মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে টয়লেটে যায়। পয়ঃনিষ্কাশন শেষে ঘরে ফেরার সময় প্রতিবেশী বিল্লাল মিয়া নামের এক ব্যক্তি তাকে জোর করে তুলে নিজ ঘরে নিয়ে যায়।

বিল্লাল পেশায় একটি কাঠ মিলে শ্রমিকের কাজ করে। তার স্ত্রী প্রবাসী। বিল্লাল মেয়েটির মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে ঘরের দরজা বন্ধ করে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের বিষয়টি কাউকে না জানাতে সে মেয়েটিকে বিভিন্ন রকম ভয়ভীতি দেখায়।

কিন্তু মেয়েটি ঘরে ফিরে তার পরিবারকে বিষয়টি জানিয়ে দেয়। এরপর ওই ছাত্রী ও তার বাবা বিল্লালের পরিবারের কাছে ঘটনার বিচার চাইতে গেলে বিল্লালের বাবা-চাচাসহ আত্মীয়স্বজনরা মেয়েটি ও তার বাবাকে মারধর করে বলে অভিযোগ ওঠে।

এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা ওই রাতেই বিল্লালকে প্রধান আসামি করে পাঁচজনের নামে মামলা করেন। পরে পুলিশ বিল্লালের বাবাকে গ্রেফতার করে বুধবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

কলমাকান্দা থানার ওসি এটিএম মাহমুদুল হক বলেন, ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসাছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রধান আসামি বিল্লালসহ মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে কিশোরীকে ধর্ষণ

 কলমাকান্দা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি 
২৬ মে ২০২১, ০৭:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার কলমাকান্দায় বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে এক কিশোরীকে (১৩) ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে কলমাকান্দা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি দায়ের করেন। 

এতে বিল্লাল মিয়া (২৮) নামে এক ব্যক্তিকে প্রধান আসামি করে পাঁচজনের নাম উল্লেখ করা হয়। পুলিশ এক আসামিকে গ্রেফতার করে বুধবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কলমাকান্দা সদর ইউনিয়নের ওই মাদ্রাসাছাত্রী মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে টয়লেটে যায়। পয়ঃনিষ্কাশন শেষে ঘরে ফেরার সময় প্রতিবেশী বিল্লাল মিয়া নামের এক ব্যক্তি তাকে জোর করে তুলে নিজ ঘরে নিয়ে যায়। 

বিল্লাল পেশায় একটি কাঠ মিলে শ্রমিকের কাজ করে। তার স্ত্রী প্রবাসী। বিল্লাল মেয়েটির মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে ঘরের দরজা বন্ধ করে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের বিষয়টি কাউকে না জানাতে সে  মেয়েটিকে বিভিন্ন রকম ভয়ভীতি দেখায়। 

কিন্তু মেয়েটি ঘরে ফিরে তার পরিবারকে বিষয়টি জানিয়ে দেয়। এরপর ওই ছাত্রী ও তার বাবা বিল্লালের পরিবারের কাছে ঘটনার বিচার চাইতে গেলে বিল্লালের বাবা-চাচাসহ আত্মীয়স্বজনরা মেয়েটি ও তার বাবাকে মারধর করে বলে অভিযোগ ওঠে।

এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা ওই রাতেই বিল্লালকে প্রধান আসামি করে পাঁচজনের নামে মামলা করেন। পরে পুলিশ বিল্লালের বাবাকে গ্রেফতার করে বুধবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

কলমাকান্দা থানার ওসি এটিএম মাহমুদুল হক বলেন, ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসাছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রধান আসামি বিল্লালসহ মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন