পালিয়ে বিয়ে, স্বামীর সঙ্গে ফোনালাপের পর নববধূর আত্মহত্যা
jugantor
পালিয়ে বিয়ে, স্বামীর সঙ্গে ফোনালাপের পর নববধূর আত্মহত্যা

  সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২৭ মে ২০২১, ০১:৪৪:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে পালিয়ে বিয়ের পর মধুমালা (১৪) নামের এক নববধূ স্বামীর সঙ্গে ফোনালাপের পর বিষপানে আত্মহত্যার করেছে। বুধবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার পৌর এলাকার ১নং ওয়ার্ড নয়াডাঙ্গী গ্রামে নিহতের বাবার বাড়ি এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মধুমালা ওই এলাকার মো. চাঁন মিয়ার কন্যা ও জয়মন্টপ ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের জরু মিয়ার ছেলে সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মাত্র ২ মাস আগে অপ্রাপ্ত বয়স্ক মধুমালাকে নিয়ে পালিয়ে বিয়ে করেন রামনগর গ্রামের সিরাজুল। বিয়ের পর বিভিন্নভাবে যৌতুকের দাবিতে চাপ দিত এবং নির্যাতন করতো স্বামী। যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে কয়েক দিন ধরে বাবার বাড়ি আশ্রয় নেয় মধুমালা।

এরই মধ্যে বুধবার সকালে স্বামীর সঙ্গে ফোনালাপের পর পরিবারের অজান্তেই বিষপান করে মধুমালা। বিষয়টি পরিবারের লোকজন টের পেয়ে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে অন্যত্র রেফার্ড করেন। পরে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিলে তার মৃত্যু হয়।

স্থানীয় প্রতিনিধিরা ময়নাতদন্ত ছাড়াই তাড়াহুড়ো করে দাফনের চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠান।

এ ব্যাপারে নিহত মধুমালার স্বামীর বাড়ি যোগাযোগ করলে কাউকে বাড়ি পাওয়া যায়নি।

সিংগাইর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পালিয়ে বিয়ে, স্বামীর সঙ্গে ফোনালাপের পর নববধূর আত্মহত্যা

 সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২৭ মে ২০২১, ০১:৪৪ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে পালিয়ে বিয়ের পর মধুমালা (১৪) নামের এক নববধূ স্বামীর সঙ্গে ফোনালাপের পর বিষপানে আত্মহত্যার করেছে। বুধবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার পৌর এলাকার ১নং ওয়ার্ড নয়াডাঙ্গী গ্রামে নিহতের বাবার বাড়ি এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মধুমালা ওই এলাকার মো. চাঁন মিয়ার কন্যা ও জয়মন্টপ ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের জরু মিয়ার ছেলে সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, মাত্র ২ মাস আগে অপ্রাপ্ত বয়স্ক মধুমালাকে নিয়ে পালিয়ে বিয়ে করেন রামনগর গ্রামের সিরাজুল। বিয়ের পর বিভিন্নভাবে যৌতুকের দাবিতে চাপ দিত এবং নির্যাতন করতো স্বামী। যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে কয়েক দিন ধরে বাবার বাড়ি আশ্রয় নেয় মধুমালা।

এরই মধ্যে বুধবার সকালে স্বামীর সঙ্গে ফোনালাপের পর পরিবারের অজান্তেই বিষপান করে মধুমালা। বিষয়টি পরিবারের লোকজন টের পেয়ে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে অন্যত্র রেফার্ড করেন। পরে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিলে তার মৃত্যু হয়।

স্থানীয় প্রতিনিধিরা ময়নাতদন্ত ছাড়াই তাড়াহুড়ো করে দাফনের চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠান।

এ ব্যাপারে নিহত মধুমালার স্বামীর বাড়ি যোগাযোগ করলে কাউকে বাড়ি পাওয়া যায়নি।

সিংগাইর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম বলেন, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন