ঘূর্ণিঝড় ইয়াস: জোয়ারের পানিতে ভেসে গেল শিশু
jugantor
ঘূর্ণিঝড় ইয়াস: জোয়ারের পানিতে ভেসে গেল শিশু

  হাতিয়া প্রতিনিধি  

২৭ মে ২০২১, ০৮:৩৬:১৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ইয়াস

নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানিতে ভেসে গেল লিমা আক্তার (৭) নামে এক শিশু।

বুধবার সন্ধ্যায় নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার সুখচর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। তবে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত নিখোঁজ ওই শিশুর সন্ধান পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ লিমা আক্তার সুখচর ইউনিয়নের চরআমানউল্যাহ গ্রামের বাবুল মিয়ার মেয়ে।

জানা যায়, ইয়াসের প্রভাবে অতিরিক্ত জোয়ারের ফলে দুপুরে হাতিয়ার সুখচর ইউনিয়নের বাবুলের ঘরে পানি ঢুকে পড়ে। ক্রমেই পানির উচ্চতাও বাড়তে থাকে। এ সময় পরিবারের লোকজনের সঙ্গে ঘরে ছিল লিমা। সন্ধ্যায় পরিবারের লোকজনের অজান্তে জোয়ারের পানিতে ভেসে যায় সে।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, খবর পেয়ে শিশুটির পরিবারের লোকজনকে সঙ্গে নিয়ে তার খোঁজ করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা ৭টার পর সে নিখোঁজ হলেও বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত শিশুটির কোনো সন্ধ্যা পাওয়া যায়নি।

এদিকে বুধবার দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার উপকূলের প্রায়ই গ্রাম ও বাজার ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সাত ফুট উঁচু জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। নলচিরা, তমরদ্দি, নিঝুমদ্বীপ, সোনাদিয়া, সুখচর, চরকিং, চরঈশ্বর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম জোয়ারের পানিতে ডুবে গেছে।

এ ছাড়া রাস্তার ওপর দিয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ করে বাড়িঘর, পুকুর— এমনকি মৎস্য খামার, কৃষি আবাদি জমি ডুবে যায়। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ।

ঘূর্ণিঝড় ইয়াস: জোয়ারের পানিতে ভেসে গেল শিশু

 হাতিয়া প্রতিনিধি 
২৭ মে ২০২১, ০৮:৩৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইয়াস
ফাইল ছবি

নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে জোয়ারের পানিতে ভেসে গেল লিমা আক্তার (৭) নামে এক শিশু।

বুধবার সন্ধ্যায় নোয়াখালীর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার সুখচর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। তবে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত নিখোঁজ ওই শিশুর সন্ধান পাওয়া যায়নি।

নিখোঁজ লিমা আক্তার সুখচর ইউনিয়নের চরআমানউল্যাহ গ্রামের বাবুল মিয়ার মেয়ে।

জানা যায়, ইয়াসের প্রভাবে অতিরিক্ত জোয়ারের ফলে দুপুরে হাতিয়ার সুখচর ইউনিয়নের বাবুলের ঘরে পানি ঢুকে পড়ে। ক্রমেই পানির উচ্চতাও বাড়তে থাকে। এ সময় পরিবারের লোকজনের সঙ্গে ঘরে ছিল লিমা। সন্ধ্যায় পরিবারের লোকজনের অজান্তে জোয়ারের পানিতে ভেসে যায় সে।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, খবর পেয়ে শিশুটির পরিবারের লোকজনকে সঙ্গে নিয়ে তার খোঁজ করা হয়েছে। বুধবার  সন্ধ্যা ৭টার পর সে নিখোঁজ হলেও বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত শিশুটির কোনো সন্ধ্যা পাওয়া যায়নি।

এদিকে বুধবার দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার উপকূলের প্রায়ই গ্রাম ও বাজার ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সাত ফুট উঁচু জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। নলচিরা, তমরদ্দি, নিঝুমদ্বীপ, সোনাদিয়া, সুখচর, চরকিং, চরঈশ্বর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম জোয়ারের পানিতে ডুবে গেছে।

এ ছাড়া রাস্তার ওপর দিয়ে জোয়ারের পানি প্রবেশ করে বাড়িঘর, পুকুর— এমনকি মৎস্য খামার, কৃষি আবাদি জমি ডুবে যায়। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন