খেলতে খেলতে ঘরে, মুখ চেপে ধরে ভাতিজিকে ধর্ষণ
jugantor
খেলতে খেলতে ঘরে, মুখ চেপে ধরে ভাতিজিকে ধর্ষণ

  মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি  

০৩ জুন ২০২১, ২১:৩২:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের মধুপুরে খেলতে খেলতে ঘরে গেলে মুখ চেপে ধরে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া ভাতিজিকে ধর্ষণ করে আব্দুর রশিদ (২২) নামের এক যুবক। ধর্ষণের অভিযোগে দুই দিনের মাথায় তার বিরুদ্ধে মধুপুর থানায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মধুপুর থানায় এ ধর্ষণ মামলা করেন শিশুটির বাবা। অভিযুক্ত আব্দুর রশিদ মধুপুর পৌর শহরের বসির উদ্দিন কসাই ওরফে বুইদা কসাইর ছেলে।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, পাশের বাড়ির আব্দুর রশিদ শিশুটির সম্পর্কে চাচা। মঙ্গলবার দুপুরে শিশুটি আব্দুর রশিদের ভাতিজি খালি বাড়িতে ওদের ঘরে খেলছিল। একপর্যায়ে রশিদ বাড়িতে এসে কৌশলে মুখ চেপে ওই শিশুটিকে ধর্ষণ করে। অসুস্থ হয়ে শিশুটি বাড়িতে ফিরে মায়ের কাছে সব খুলে বললে ভয়ে দরিদ্র অসহায় পরিবারটি চেপে থাকার চেষ্টা করে।

স্থানীয় একটি গ্রুপও বিষয়টি ধামাচাপা দিতে চেষ্টা করে। আস্তে আস্তে বিষয়টি জানাজানি হতে থাকে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে থানায় গিয়ে অভিযোগ দিলে মধুপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমনের সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা হয়।

মধুপুর থানার এসআই সাইফুল ইসলাম মামলা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শিশুকে টাঙ্গাইলের শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্তকে আটকের সর্বাত্মক চেষ্টা করা হবে।

খেলতে খেলতে ঘরে, মুখ চেপে ধরে ভাতিজিকে ধর্ষণ

 মধুপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি 
০৩ জুন ২০২১, ০৯:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের মধুপুরে খেলতে খেলতে ঘরে গেলে মুখ চেপে ধরে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া ভাতিজিকে ধর্ষণ করে আব্দুর রশিদ (২২) নামের এক যুবক। ধর্ষণের অভিযোগে দুই দিনের মাথায় তার বিরুদ্ধে মধুপুর থানায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মধুপুর থানায় এ ধর্ষণ মামলা করেন শিশুটির বাবা। অভিযুক্ত আব্দুর রশিদ মধুপুর পৌর শহরের বসির উদ্দিন কসাই ওরফে বুইদা কসাইর ছেলে।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, পাশের বাড়ির আব্দুর রশিদ শিশুটির সম্পর্কে চাচা। মঙ্গলবার দুপুরে শিশুটি আব্দুর রশিদের ভাতিজি খালি বাড়িতে ওদের ঘরে খেলছিল। একপর্যায়ে রশিদ বাড়িতে এসে কৌশলে মুখ চেপে ওই শিশুটিকে ধর্ষণ করে। অসুস্থ হয়ে শিশুটি বাড়িতে ফিরে মায়ের কাছে সব খুলে বললে ভয়ে দরিদ্র অসহায় পরিবারটি চেপে থাকার চেষ্টা করে।

স্থানীয় একটি গ্রুপও বিষয়টি ধামাচাপা দিতে চেষ্টা করে। আস্তে আস্তে বিষয়টি জানাজানি হতে থাকে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে থানায় গিয়ে অভিযোগ দিলে মধুপুর থানায়  নারী ও শিশু নির্যাতন দমনের সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা হয়।

মধুপুর থানার এসআই সাইফুল ইসলাম মামলা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শিশুকে টাঙ্গাইলের শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্তকে আটকের সর্বাত্মক চেষ্টা করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন