পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়ার ইঙ্গিত কাদের মির্জার
jugantor
পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়ার ইঙ্গিত কাদের মির্জার

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১০ জুন ২০২১, ২০:৫৩:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে তার দাবি পূরণ না হলে এমন খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে।

তিনি বলেন, সাত দিনের মধ্যে প্রশাসন সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ থাকতে হবে, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে, মিথ্যা মামলা থেকে তার কর্মীদের অব্যাহতি ও মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় অনুসারীদের রেডি থাকতেও নির্দেশ দিয়েছেন কাদের মির্জা।

বৃহস্পতিবার সকালে কাদের মির্জা নিজের ফেসবুক লাইভে এসব কথা বলেন। এর আগে চিকিৎসার জন্য আমেরিকা না গিয়ে বুধবার গভীর রাতে এলাকায় ফিরে আসেন তিনি।

আমেরিকায় না যাওয়ার কারণ হিসেবে কাদের মির্জা বলেন, দেশের শত্রুরা বিদেশেও ষড়যন্ত্র করছে। আমেরিকাতে আমাকে গুম ও হত্যা করার জন্য কালাইয়াদের এক কোটি টাকা কন্ট্রাক্ট করেছে। তারা সেখানে আমাকে মেরে দেশে প্রচার করবে আমি পালিয়ে গেছি। এজন্য তারা দেশে একরামের (এমপি) বাড়িতে ও আমেরিকায় ম্যাকডোনাল্ডে আল-আমিনের বাসায় বৈঠকও করেছে।

কাদের মির্জা বলেন, আমি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ায় অপশক্তিরা (প্রতিপক্ষ) বৈঠক করে আমার নেতাকর্মীদের হত্যা করে পৌরসভা দখল ও কাউন্সিলরদের দিয়ে আমার বিরুদ্ধে অনাস্থা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাই আমিও সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আমার দুঃসময়ের কর্মীদের অস্ত্রের মুখে ঠেলে দিয়ে চিকিৎসার জন্য আমি আমেরিকা যেতে পারি না। মারা গেলে দেশেই মরব।

কাদের মির্জা বলেন, তারেক রহমান বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষীদের মধ্যে সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি। তিনি কোথাও থেকে টাকা চান না। সবাই দিয়ে আসেন। আর আমাদের দলেরগুলো বাঁচার জন্য বেশি দিয়ে আসে।

পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়ার ইঙ্গিত কাদের মির্জার

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১০ জুন ২০২১, ০৮:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পরিস্থিতি ঘোলাটে হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে তার দাবি পূরণ না হলে এমন খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে।

তিনি বলেন, সাত দিনের মধ্যে প্রশাসন সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ থাকতে হবে, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে, মিথ্যা মামলা থেকে তার কর্মীদের অব্যাহতি ও মুক্তি দিতে হবে। অন্যথায় অনুসারীদের রেডি থাকতেও নির্দেশ দিয়েছেন কাদের মির্জা। 

বৃহস্পতিবার সকালে কাদের মির্জা নিজের ফেসবুক লাইভে এসব কথা বলেন। এর আগে চিকিৎসার জন্য আমেরিকা না গিয়ে বুধবার গভীর রাতে এলাকায় ফিরে আসেন তিনি।

আমেরিকায় না যাওয়ার কারণ হিসেবে কাদের মির্জা বলেন, দেশের শত্রুরা বিদেশেও ষড়যন্ত্র করছে। আমেরিকাতে আমাকে গুম ও হত্যা করার জন্য কালাইয়াদের এক কোটি টাকা কন্ট্রাক্ট করেছে। তারা সেখানে আমাকে মেরে দেশে প্রচার করবে আমি পালিয়ে গেছি। এজন্য তারা দেশে একরামের (এমপি) বাড়িতে ও আমেরিকায় ম্যাকডোনাল্ডে আল-আমিনের বাসায় বৈঠকও করেছে।

কাদের মির্জা বলেন, আমি বিদেশ যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়ায় অপশক্তিরা (প্রতিপক্ষ) বৈঠক করে আমার নেতাকর্মীদের হত্যা করে পৌরসভা দখল ও কাউন্সিলরদের দিয়ে আমার বিরুদ্ধে অনাস্থা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাই আমিও সিদ্ধান্ত নিয়েছি, আমার দুঃসময়ের কর্মীদের অস্ত্রের মুখে ঠেলে দিয়ে চিকিৎসার জন্য আমি আমেরিকা যেতে পারি না। মারা গেলে দেশেই মরব।

কাদের মির্জা বলেন, তারেক রহমান বিশ্বের বাংলা ভাষাভাষীদের মধ্যে সবচেয়ে ধনী ব্যক্তি। তিনি কোথাও থেকে টাকা চান না। সবাই দিয়ে আসেন। আর আমাদের দলেরগুলো বাঁচার জন্য বেশি দিয়ে আসে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন