দুই সেকেন্ডের জন্য জীবন রক্ষা পেল প্রাইভেটকারের ৭ যাত্রীর
jugantor
দুই সেকেন্ডের জন্য জীবন রক্ষা পেল প্রাইভেটকারের ৭ যাত্রীর

  গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি  

১০ জুন ২০২১, ২২:২৫:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে রিকশাচালকের চিৎকারে মাত্র ২ সেকেন্ডের জন্য জীবন রক্ষা পেল প্রাইভেটকারে থাকা ৬ যাত্রী ও চালকের। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার শ্যামগঞ্জ লেভেলক্রসিংয়ে এ ঘটনা ঘটে।

গৌরীপুর রেলওয়ে জংশনের কেবিনমাস্টার মো. রফিকুল ইসলাম জানান, মহুয়া কমিউটার ট্রেনটি শ্যামগঞ্জ স্টেশনে দুপুর ২টায় পৌঁছে। ৩ মিনিট যাত্রাবিরতি শেষে মোহনগঞ্জের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনামতে, মাত্র দুই সেকেন্ডের ব্যবধানে বাঁচল তাজা ৭টি প্রাণ। রিকশাচালক আব্দুর রশিদ (৪০) জানান, ট্রেনটি যখন আসছিল তখন প্রাইভেটকারটি রেললাইনের উপরে চলে আসে। চিৎকার দেওয়ায় দ্রুত পেছনে চলে যাওয়ায় দুর্ঘটনা ঘটেনি।

প্রাইভেটকারের চালক হুমায়ন আহমেদ (৩৮) জানান, তিনি কিশোরগঞ্জ যাচ্ছেন। ট্রেনের হর্নও শোনা যায়নি। এদিক-সেদিক তাকালেও দোকানের কারণে ট্রেন দেখা যায়নি।

জানা যায়, ময়মনসিংহের শ্যামগঞ্জ জংশনে গৌরীপুর-নেত্রকোনা সড়কের শ্যামগঞ্জ লেভেলক্রসিং এখন মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে। রেললাইনের মাঝে ও দু’পাশে অবৈধ স্থাপনার কারণে ট্রেন আসলেও সড়কপথের যানবাহন চালকরা তা দেখতে পারছেন না। অপরদিকে গেটম্যান না থাকায় সিএনজি ও হ্যান্ডট্রলির সঙ্গে ট্রেনের সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে। এই লেভেলক্রসিংয়ে চলতি বছর এক সিএনজিচালক ও এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।

গৌরীপুর রেলওয়ের ঊধ্বর্তন উপসহকারী প্রকৌশলী ওয়াহেদুল ইসলাম জানান, জনবল সংকট রয়েছে। নতুন নিয়োগে গেটম্যান প্রদান করা হবে।

দুই সেকেন্ডের জন্য জীবন রক্ষা পেল প্রাইভেটকারের ৭ যাত্রীর

 গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি 
১০ জুন ২০২১, ১০:২৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে রিকশাচালকের চিৎকারে মাত্র ২ সেকেন্ডের জন্য জীবন রক্ষা পেল প্রাইভেটকারে থাকা ৬ যাত্রী ও চালকের। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার শ্যামগঞ্জ লেভেলক্রসিংয়ে এ ঘটনা ঘটে।

গৌরীপুর রেলওয়ে জংশনের কেবিনমাস্টার মো. রফিকুল ইসলাম জানান, মহুয়া কমিউটার ট্রেনটি শ্যামগঞ্জ স্টেশনে দুপুর ২টায় পৌঁছে। ৩ মিনিট যাত্রাবিরতি শেষে মোহনগঞ্জের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনামতে, মাত্র দুই সেকেন্ডের ব্যবধানে বাঁচল তাজা ৭টি প্রাণ। রিকশাচালক আব্দুর রশিদ (৪০) জানান, ট্রেনটি যখন আসছিল তখন প্রাইভেটকারটি রেললাইনের উপরে চলে আসে। চিৎকার দেওয়ায় দ্রুত পেছনে চলে যাওয়ায় দুর্ঘটনা ঘটেনি। 

প্রাইভেটকারের চালক হুমায়ন আহমেদ (৩৮) জানান, তিনি কিশোরগঞ্জ যাচ্ছেন। ট্রেনের হর্নও শোনা যায়নি। এদিক-সেদিক তাকালেও দোকানের কারণে ট্রেন দেখা যায়নি।  

জানা যায়, ময়মনসিংহের শ্যামগঞ্জ জংশনে গৌরীপুর-নেত্রকোনা সড়কের শ্যামগঞ্জ লেভেলক্রসিং এখন মৃত্যুকূপে পরিণত হয়েছে। রেললাইনের মাঝে ও দু’পাশে অবৈধ স্থাপনার কারণে ট্রেন আসলেও সড়কপথের যানবাহন চালকরা তা দেখতে পারছেন না। অপরদিকে গেটম্যান না থাকায় সিএনজি ও হ্যান্ডট্রলির সঙ্গে ট্রেনের সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে। এই লেভেলক্রসিংয়ে চলতি বছর এক সিএনজিচালক ও এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।

গৌরীপুর রেলওয়ের ঊধ্বর্তন উপসহকারী প্রকৌশলী ওয়াহেদুল ইসলাম জানান, জনবল সংকট রয়েছে। নতুন নিয়োগে গেটম্যান প্রদান করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন