মাদ্রাসাছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা, পলাতক চাচা গ্রেফতার
jugantor
মাদ্রাসাছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা, পলাতক চাচা গ্রেফতার

  জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি  

১১ জুন ২০২১, ০২:২৭:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় সানজিদা বেগম (১৬) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার ঘটনায় জগন্নাথপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ওই ছাত্রীর বড় ভাই হাম্মাদ আহমেদ বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় তার আপন চাচা রবিউল ইসলামকে (৩৯) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান র‌্যাব-৯ সুনামগঞ্জের একটি দল অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

এ ব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার জগন্নাথপুর সার্কেল কামরুল ইসলাম বলেন, ছাত্রী হত্যার ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকালে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, উপজেলার সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের সৈয়দপুর গোয়ালাগাঁও গ্রামের সয়ফুল ইসলামের মেয়ে সানজিদা বেগম মঙ্গলবার রাতে প্রতিদিনের মতো খাওয়া-দাওয়া শেষে নিজ কক্ষে ঘুমাতে যায়।

পরিবারের দাবি, রাতের কোনো এক সময় মেয়েটির আপন চাচা রবিউল ইসলাম সানজিদার ঘরে প্রবেশ করে শ্বাসরোধ করে মেয়েটিকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। ভোরে মেয়েটির নিথর দেহ বিছানায় পড়ে থাকতে দেখেন পরিবারের লোকজন।

পরিবারের লোকজন জানান, সয়ফুল ইসলামের চার ভাইয়ের মধ্যে এক ভাই যুক্তরাজ্যে বসবাস করেন। ওই প্রবাসী নিঃসন্তান হওয়ায় মেয়েটিকে তিনি নিজের মেয়ের মতো আদর যত্ন করে সংসারের ভরণ-পোষণের টাকা মেয়েটির কাছে পাঠাতেন। এ নিয়ে ঘাতক ভাইয়ের সঙ্গে বিরোধ চলছিল।

কিছুদিন আগে এসব নিয়ে বিরোধের জের ধরে স্ত্রী সন্তান নিয়ে তিনি শ্বশুর বাড়ি চলে যান। মঙ্গলবার বাড়ি ফিরে এ ঘটনা ঘটান মেয়েটির আপন চাচা রবিউল ইসলাম।

মাদ্রাসাছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যা, পলাতক চাচা গ্রেফতার

 জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি 
১১ জুন ২০২১, ০২:২৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় সানজিদা বেগম (১৬) নামে এক মাদ্রাসাছাত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার ঘটনায় জগন্নাথপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

ওই ছাত্রীর বড় ভাই হাম্মাদ আহমেদ বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় তার আপন চাচা রবিউল ইসলামকে (৩৯) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। 

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ান র‌্যাব-৯ সুনামগঞ্জের একটি দল অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে।

এ ব্যাপারে সহকারী পুলিশ সুপার জগন্নাথপুর সার্কেল কামরুল ইসলাম বলেন, ছাত্রী হত্যার ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকালে মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, উপজেলার সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের সৈয়দপুর গোয়ালাগাঁও গ্রামের সয়ফুল ইসলামের মেয়ে সানজিদা বেগম মঙ্গলবার রাতে প্রতিদিনের মতো খাওয়া-দাওয়া শেষে নিজ কক্ষে ঘুমাতে যায়।

পরিবারের দাবি, রাতের কোনো এক সময় মেয়েটির আপন চাচা রবিউল ইসলাম সানজিদার ঘরে প্রবেশ করে শ্বাসরোধ করে মেয়েটিকে হত্যা করে পালিয়ে যায়। ভোরে মেয়েটির নিথর দেহ বিছানায় পড়ে থাকতে দেখেন পরিবারের লোকজন।

পরিবারের লোকজন জানান, সয়ফুল ইসলামের চার ভাইয়ের মধ্যে এক ভাই যুক্তরাজ্যে বসবাস করেন। ওই প্রবাসী নিঃসন্তান হওয়ায় মেয়েটিকে তিনি নিজের মেয়ের মতো আদর যত্ন করে সংসারের ভরণ-পোষণের টাকা মেয়েটির কাছে পাঠাতেন। এ নিয়ে ঘাতক ভাইয়ের সঙ্গে বিরোধ চলছিল। 

কিছুদিন আগে এসব নিয়ে বিরোধের জের ধরে স্ত্রী সন্তান নিয়ে তিনি শ্বশুর বাড়ি চলে যান। মঙ্গলবার বাড়ি ফিরে এ ঘটনা ঘটান মেয়েটির আপন চাচা রবিউল ইসলাম। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন