আমেরিকা যাওয়া স্থগিত করে ‘তোপ দাগলেন’ কাদের মির্জা
jugantor
আমেরিকা যাওয়া স্থগিত করে ‘তোপ দাগলেন’ কাদের মির্জা

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

১১ জুন ২০২১, ১৭:১০:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জা চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী থেকে রওনা দিয়েও আমেরিকা যাওয়া স্থগিত করে ঢাকা থেকে ফিরে আসেন। এসেই ফেসবুকে ‘তোপ দাগলেন’।

আবদুল কাদের মির্জা সাম্প্রতিক সময়ে দেশ-বিদেশেসহ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সবচেয়ে আলোচিত নাম। নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার এই মেয়র অবলীলায় সমালোচনা করেছেন স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের। কথার ‘বোমা ফাটিয়েছেন’ আওয়ামী নেতাদের নিয়ে।

গত ২২ মে ছোটভাইয়ের চিকিৎসা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করেন মির্জা কাদের। এরপর নিজে চিকিৎসার জন্য আমেরিকা যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তারপর থেকে কিছুদিন কথাবার্তা শুনে মনে হচ্ছিল দুই ভাইয়ের মধ্যে ‘মিটমাট’ হয়ে গেছে।

তবে বুধবার আমেরিকা যাওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন। বৃহস্পতিবার সকালে ফেসবুক লাইভে এসে ফের কামান দাগলেন আবদুল কাদের মির্জা।

তিনি বলেন, স্থানীয় নেতাকর্মীদের কথা চিন্তা করে আমি আমেরিকা যাইনি। এছাড়া তার ভাই আওয়ামী লীগের শীর্ষনেতা, মন্ত্রী-এমপি, স্থানীয় কয়েকজন নেতাসহ আমেরিকা প্রবাসী কয়েকজন সাবেক নেতারও কঠোর সমালোচনা করেন কাদের মির্জা।

তিনি বলেন, উপরে আল্লাহ আর নিচে শেখ হাসিনা ছাড়া আমি কাউকে ভয় করি না। এ সময় তিনি তার তিন ভাগিনা মাহবুব রশিদ মঞ্জু, ফখরুল ইসলাম রাহাত ও সিরাজিস সালেকিন রিমনসহ স্থানীয় নেতাদের কট্টর সমালোচনা করেন।

কাদের মির্জা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, আমি আমেরিকা গেলে অপরাজনীতির হোতারা বিএনপি আমলের মতো আমাকে সরিয়ে এখানে অন্যজনকে মেয়র হিসেবে বসাতো। এমন প্রস্তুতি তারা নিয়েছে।

আমেরিকা যাওয়া স্থগিত করে ‘তোপ দাগলেন’ কাদের মির্জা

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
১১ জুন ২০২১, ০৫:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জা চিকিৎসার জন্য নোয়াখালী থেকে রওনা দিয়েও আমেরিকা যাওয়া স্থগিত করে ঢাকা থেকে ফিরে আসেন। এসেই ফেসবুকে ‘তোপ দাগলেন’।

আবদুল কাদের মির্জা সাম্প্রতিক সময়ে দেশ-বিদেশেসহ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সবচেয়ে আলোচিত নাম। নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার এই মেয়র অবলীলায় সমালোচনা করেছেন স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের। কথার ‘বোমা ফাটিয়েছেন’ আওয়ামী নেতাদের নিয়ে।

গত ২২ মে ছোটভাইয়ের চিকিৎসা নিয়ে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে দেখা করেন মির্জা কাদের। এরপর নিজে চিকিৎসার জন্য আমেরিকা যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। তারপর থেকে কিছুদিন কথাবার্তা শুনে মনে হচ্ছিল দুই ভাইয়ের মধ্যে ‘মিটমাট’ হয়ে গেছে।

তবে বুধবার আমেরিকা যাওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন। বৃহস্পতিবার সকালে ফেসবুক লাইভে এসে ফের কামান দাগলেন আবদুল কাদের মির্জা।

তিনি বলেন, স্থানীয় নেতাকর্মীদের কথা চিন্তা করে আমি আমেরিকা যাইনি। এছাড়া তার ভাই আওয়ামী লীগের শীর্ষনেতা, মন্ত্রী-এমপি, স্থানীয় কয়েকজন নেতাসহ আমেরিকা প্রবাসী কয়েকজন সাবেক নেতারও কঠোর সমালোচনা করেন কাদের মির্জা।

তিনি বলেন, উপরে আল্লাহ আর নিচে শেখ হাসিনা ছাড়া আমি কাউকে ভয় করি না। এ সময় তিনি তার তিন ভাগিনা মাহবুব রশিদ মঞ্জু, ফখরুল ইসলাম রাহাত ও সিরাজিস সালেকিন রিমনসহ স্থানীয় নেতাদের কট্টর সমালোচনা করেন।

কাদের মির্জা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, আমি আমেরিকা গেলে অপরাজনীতির হোতারা বিএনপি আমলের মতো আমাকে সরিয়ে এখানে অন্যজনকে মেয়র হিসেবে বসাতো। এমন প্রস্তুতি তারা নিয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন