বটি নিয়ে বাইক ছাড়াতে গেলেন কমিশনারের ছেলে, অতঃপর...
jugantor
বটি নিয়ে বাইক ছাড়াতে গেলেন কমিশনারের ছেলে, অতঃপর...

  নওগাঁ প্রতিনিধি  

১৪ জুন ২০২১, ২২:৩৮:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

নওগাঁয় ধারালো বটি সঙ্গে নিয়ে জরিমানা পরিশোধ করে আটকে রাখা মোটরসাইকেল ছাড়িয়ে নিতে গিয়ে ফিরিয়ে আটক হয়েছেন আরোহী শরীফ হোসেন শেখ নামে এক যুবক। তিনি নওগাঁ পৌরসভার খাস-নওগাঁ ৪ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার আব্দুল মালেক শেখ খোয়াজের ছেলে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে শহরের ব্রিজের মোড় থেকে শরীফ হোসেন শেখকে আটক করা হয়।

জানা গেছে, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শহরের ব্রিজের মোড় থেকে যুবক শরীফ হোসেন তার মোটরসাইকেলে করে তিনজন চড়ে তাজের মোড়ের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় ব্রিজের মোড়ে কর্তব্যরত টিএসআই বেলাল হোসেন মোটরসাইকেলটি থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চাইলে শরীফ হোসেন দেখাতে ব্যর্থ হন।

এ সময় শরীফ হোসেন টিএসআইকে জানান, কাগজপত্র বাসায় আছে। তারপর শরীফ হোসেন পরিচয় দেন তার বাবা একজন পৌরসভার কমিশনার। পরিচয় পাওয়ার পর তার মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে সর্বনিম্ন ছোট মামলা দিয়ে মোটরসাইকেলটি ট্রাফিক অফিসে পাঠানো হয়।

ঘটনার প্রায় আধাঘণ্টা পর বেলা ১১টার দিকে মোটরসাইকেলের মালিক শরীফ হোসেন একটি ধারালো বটি সঙ্গে নিয়ে এসে মোটরসাইকেলের জরিমানা পরিশোধ করে ফিরিয়ে নিতে চাই। তার হাতে ধারালো বটি থাকায় পুলিশের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিলে আরেক সার্জেন্ট মাহাবুব ইবনে হায়দার ছুটে আসেন। তার হাতে থাকা বটিটি কেড়ে নেওয়া হয় এবং তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

কর্তব্যরত টিএসআই বেলাল হোসেন বলেন, ব্রিজের মোড়ে যুবক শরীফ হোসেন মোটরসাইকেলে চড়ে তিনজন যাচ্ছিল। তাদের থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চাইলে দেখাতে ব্যর্থ হয়। এরপর মোটরসাইকেলে তিনজন চড়ে যাওয়ার অপরাধে ৩ হাজার টাকার মামলা দেওয়া হয়। ঘটনার প্রায় আধাঘণ্টা পর বটি হাতে নিয়ে এসে জরিমানার টাকা পরিশোধ করে তার মোটরসাইকেলটি ফিরিয়ে নিতে চাই। তাকে ট্রাফিক অফিসের গিয়ে অনলাইনে টাকা পরিশোধ করে মোটাসাইকেলটি ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য বলা হলে তার হাতে থাকা বটি নিয়ে আতঙ্ক শুরু করে। পরে থানা পুলিশ বটি জব্দ করে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

নওগাঁ ট্রাফিক ইন্সপেক্টর রাহাত হোসেন তরফদার বলেন, ওয়ারলেসে কল পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি থানার কিলোডিউটি গাড়ি সেখানে দাঁড়িয়ে আছে। সেখানে একজন যুবককে আটক করা আছে। পরে তাকে থানায় প্রেরণ করা হয়।

নওগাঁ সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বটি নিয়ে বাইক ছাড়াতে গেলেন কমিশনারের ছেলে, অতঃপর...

 নওগাঁ প্রতিনিধি 
১৪ জুন ২০২১, ১০:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নওগাঁয় ধারালো বটি সঙ্গে নিয়ে জরিমানা পরিশোধ করে আটকে রাখা মোটরসাইকেল ছাড়িয়ে নিতে গিয়ে ফিরিয়ে আটক হয়েছেন আরোহী শরীফ হোসেন শেখ নামে এক যুবক। তিনি নওগাঁ পৌরসভার খাস-নওগাঁ ৪ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার আব্দুল মালেক শেখ খোয়াজের ছেলে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে শহরের ব্রিজের মোড় থেকে শরীফ হোসেন শেখকে আটক করা হয়।

জানা গেছে, সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শহরের ব্রিজের মোড় থেকে যুবক শরীফ হোসেন তার মোটরসাইকেলে করে তিনজন চড়ে তাজের মোড়ের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় ব্রিজের মোড়ে কর্তব্যরত টিএসআই বেলাল হোসেন মোটরসাইকেলটি থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চাইলে শরীফ হোসেন দেখাতে ব্যর্থ হন।

এ সময় শরীফ হোসেন টিএসআইকে জানান, কাগজপত্র বাসায় আছে। তারপর শরীফ হোসেন পরিচয় দেন তার বাবা একজন পৌরসভার কমিশনার। পরিচয় পাওয়ার পর তার মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে সর্বনিম্ন ছোট মামলা দিয়ে মোটরসাইকেলটি ট্রাফিক অফিসে পাঠানো হয়। 

ঘটনার প্রায় আধাঘণ্টা পর বেলা ১১টার দিকে মোটরসাইকেলের মালিক শরীফ হোসেন একটি ধারালো বটি সঙ্গে নিয়ে এসে মোটরসাইকেলের জরিমানা পরিশোধ করে ফিরিয়ে নিতে চাই। তার হাতে ধারালো বটি থাকায় পুলিশের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিলে আরেক সার্জেন্ট মাহাবুব ইবনে হায়দার ছুটে আসেন। তার হাতে থাকা বটিটি কেড়ে নেওয়া হয় এবং তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

কর্তব্যরত টিএসআই বেলাল হোসেন বলেন, ব্রিজের মোড়ে যুবক শরীফ হোসেন মোটরসাইকেলে চড়ে তিনজন যাচ্ছিল। তাদের থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চাইলে দেখাতে ব্যর্থ হয়। এরপর মোটরসাইকেলে তিনজন চড়ে যাওয়ার অপরাধে ৩ হাজার টাকার মামলা দেওয়া হয়। ঘটনার প্রায় আধাঘণ্টা পর বটি হাতে নিয়ে এসে জরিমানার টাকা পরিশোধ করে তার মোটরসাইকেলটি ফিরিয়ে নিতে চাই। তাকে ট্রাফিক অফিসের গিয়ে অনলাইনে টাকা পরিশোধ করে মোটাসাইকেলটি ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য বলা হলে তার হাতে থাকা বটি নিয়ে আতঙ্ক শুরু করে। পরে থানা পুলিশ বটি জব্দ করে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

নওগাঁ ট্রাফিক ইন্সপেক্টর রাহাত হোসেন তরফদার বলেন, ওয়ারলেসে কল পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি থানার কিলোডিউটি গাড়ি সেখানে দাঁড়িয়ে আছে। সেখানে একজন যুবককে আটক করা আছে। পরে তাকে থানায় প্রেরণ করা হয়।

নওগাঁ সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন