প্রধানমন্ত্রী আমাকে ম্যাসেজ দিয়েছেন: মির্জা কাদের (ভিডিও)
jugantor
প্রধানমন্ত্রী আমাকে ম্যাসেজ দিয়েছেন: মির্জা কাদের (ভিডিও)

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৫ জুন ২০২১, ২২:০৭:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা তার বহিষ্কারের বিষয়টি গুজব ও ষড়যন্ত্রকারীদের ষড়যন্ত্র উল্লেখ করে বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যার একটু আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে ম্যাসেজ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন- তুমি শান্ত থেকে কাজ কর, আর নিজের শরীরের প্রতি যত্ন রাখ। কোম্পানীগঞ্জে সব সমস্যার অচিরেই সমাধান করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর এ ম্যাসেজের বিষয়টি জানানোর জন্য আমি এ লাইভে এসেছি।

তিনি বলেন, একটি মহল গত কয়েক দিন যাবত দেশ-বিদেশে আমাদের বাংলা ভাষাভাষীদের কাছে প্রচার করেছে আমাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। আসলে এটা শুনতে হাস্যকর- আমাকে কেন কী কারণে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। আমার বিরুদ্ধে এত ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের পরও আমি শান্ত থেকে সব পরিস্থিতি মোকাবিলা করছি।

কাদের মির্জা সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তার ফেসবুক থেকে লাইভে এসে এসব কথা বলেন।

কাদের মির্জা আরও বলেন, যদি আগে থেকে এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা হতো, তাহলে পরিস্থিতি আজকের এ পর্যায়ে পৌঁছত না। কিন্তু এ বিষয়ে যাদের দায়িত্ব ছিল তাদের অবহেলার কারণে পরিস্থিতি এ পর্যায়ে পৌঁছেছে। কোম্পানীগঞ্জে শান্তির স্বার্থে যেন অচিরেই এ অবস্থার অবসান ঘটে, তা আমি প্রত্যাশা করি। বিরোধী রাজনৈতিক দলের রাজনীতির অনুপস্থিতিতে সরকারি দলের রাজনীতি এবং নীতি-নৈতিকতা এমন অবস্থায় পৌঁছেছে যে, এখন রাজনীতি করার মতো পরিবেশ দিন দিন নষ্ট হচ্ছে। এটা চলতে দেয়া যায় না। অপরাজনীতির হোতাদের দল থেকে বের করে দিলে দলের কোনো ক্ষতি হবে না, দলও শক্তিশালী হবে।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ জুন দুপুরে কাদের মির্জা লাইভে এসে তাকে দল থেকে বহিষ্কারের আভাস পেয়ে নিজেই আওয়ামী লীগ ও মেয়র পদ থেকে একসঙ্গে বিদায় নেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। এ সময় তিনি উল্লেখ করেন, আমার জীবনে হয়তো জনপ্রতিনিধি বা পৌরসভার মেয়র হিসেবে আজ শেষ কর্মদিবস। এজন্য দাপ্তরিক কাজ শেষ করার উদ্দেশ্যে অফিসের সব ফাইল সই করে দিয়েছি।

প্রধানমন্ত্রী আমাকে ম্যাসেজ দিয়েছেন: মির্জা কাদের (ভিডিও)

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৫ জুন ২০২১, ১০:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা তার বহিষ্কারের বিষয়টি গুজব ও ষড়যন্ত্রকারীদের ষড়যন্ত্র উল্লেখ করে বলেন, মঙ্গলবার সন্ধ্যার একটু আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে ম্যাসেজ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন- তুমি শান্ত থেকে কাজ কর, আর নিজের শরীরের প্রতি যত্ন রাখ। কোম্পানীগঞ্জে সব সমস্যার অচিরেই সমাধান করা হবে। প্রধানমন্ত্রীর এ ম্যাসেজের বিষয়টি জানানোর জন্য আমি এ লাইভে এসেছি।

তিনি বলেন, একটি মহল গত কয়েক দিন যাবত দেশ-বিদেশে আমাদের বাংলা ভাষাভাষীদের কাছে প্রচার করেছে আমাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। আসলে এটা শুনতে হাস্যকর- আমাকে কেন কী কারণে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে। আমার বিরুদ্ধে এত ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের পরও আমি শান্ত থেকে সব পরিস্থিতি মোকাবিলা করছি।

কাদের মির্জা সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় তার ফেসবুক থেকে লাইভে এসে এসব কথা বলেন।

কাদের মির্জা আরও বলেন, যদি আগে থেকে এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা হতো, তাহলে পরিস্থিতি আজকের এ পর্যায়ে পৌঁছত না। কিন্তু এ বিষয়ে যাদের দায়িত্ব ছিল তাদের অবহেলার কারণে পরিস্থিতি এ পর্যায়ে পৌঁছেছে। কোম্পানীগঞ্জে শান্তির স্বার্থে যেন অচিরেই এ অবস্থার অবসান ঘটে, তা আমি প্রত্যাশা করি। বিরোধী রাজনৈতিক দলের রাজনীতির অনুপস্থিতিতে সরকারি দলের রাজনীতি এবং নীতি-নৈতিকতা এমন অবস্থায় পৌঁছেছে যে, এখন রাজনীতি করার মতো পরিবেশ দিন দিন নষ্ট হচ্ছে। এটা চলতে দেয়া যায় না। অপরাজনীতির হোতাদের দল থেকে বের করে দিলে দলের কোনো ক্ষতি হবে না, দলও শক্তিশালী হবে।

প্রসঙ্গত, গত ১৩ জুন দুপুরে কাদের মির্জা লাইভে এসে তাকে দল থেকে বহিষ্কারের আভাস পেয়ে নিজেই আওয়ামী লীগ ও মেয়র পদ থেকে একসঙ্গে বিদায় নেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। এ সময় তিনি উল্লেখ করেন, আমার জীবনে হয়তো জনপ্রতিনিধি বা পৌরসভার মেয়র হিসেবে আজ শেষ কর্মদিবস। এজন্য দাপ্তরিক কাজ শেষ করার উদ্দেশ্যে অফিসের সব ফাইল সই করে দিয়েছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন