আড়াই মাস পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন চালু
jugantor
আড়াই মাস পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন চালু

  যুগান্তর প্রতিবেদন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া  

১৫ জুন ২০২১, ২২:৩৭:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ বিরতিরে পর আবাররও প্রাণ ফিরে পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন

দীর্ঘ বিরতিরে পর আবাররও প্রাণ ফিরে পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন। সকালে তিতাস কমিউটার ট্রেনের যাত্রা বিরতির মধ্যদিয়ে এই স্টেশনটিতে আবারও প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে পেয়েছে।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফর ঘিরে হেফাজতের বিক্ষোভ চলাকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের শিকার হয়। এতে প্যানেল বোর্ডসহ সিগন্যালিং ব্যবস্থা অকার্যকর হয়ে পড়ায় স্টেশনটিতে সব ধরনেরট্রেনের যাত্রাবিরতি বাতিল করা হয়।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যাত্রীদের ভোগান্তির সঙ্গে সঙ্গে গত ৮০দিনে অন্তত আড়াই কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে। দুর্ভোগে লাঘবে সাময়িকভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনকে ‘ডি ক্লাস' স্টেশনে রূপান্তর করে ট্রেন চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশনে মঙ্গলবার সুরমা মেইল, ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস, তিতাস কমিউটার ও কর্ণফুলী কমিউটার ট্রেন যাত্রাবিরতি করেছে। বুধবার ১৬ জুন থেকে নিয়মিত যাত্রাবিরতি করবে ঢাকা-সিলেট রেলপথে চলাচলকারী আন্তঃনগর পারাবত এক্সপ্রেস।

স্টেশনমাস্টার শোয়েব মিয়া জানান, সিগন্যালিং ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় গার্ড এবং ট্রেন চালকের সমন্বয়ে ট্রেনে যাত্রী উঠানামা করছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সিগন্যালিং ব্যবস্থা মেরামত করা হবে। সিগন্যালিং ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় তালশহর ও পাঘাচংয়ের মাধ্যমে লাইন ক্লিয়ারিং এর কাজ চলবে।

আড়াই মাস পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশন চালু

 যুগান্তর প্রতিবেদন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া 
১৫ জুন ২০২১, ১০:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দীর্ঘ বিরতিরে পর আবাররও প্রাণ ফিরে পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন
দীর্ঘ বিরতিরে পর আবাররও প্রাণ ফিরে পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন। ফাইল ছবি

দীর্ঘ বিরতিরে পর আবাররও প্রাণ ফিরে পেয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন। সকালে তিতাস কমিউটার ট্রেনের যাত্রা বিরতির মধ্যদিয়ে এই স্টেশনটিতে আবারও প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে পেয়েছে। 

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফর ঘিরে হেফাজতের বিক্ষোভ চলাকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশন হামলা, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের শিকার হয়। এতে প্যানেল বোর্ডসহ সিগন্যালিং ব্যবস্থা অকার্যকর হয়ে পড়ায় স্টেশনটিতে সব ধরনের ট্রেনের যাত্রাবিরতি বাতিল করা হয়। 

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, যাত্রীদের  ভোগান্তির সঙ্গে সঙ্গে গত ৮০দিনে অন্তত আড়াই কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে। দুর্ভোগে লাঘবে সাময়িকভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনকে ‘ডি ক্লাস' স্টেশনে রূপান্তর করে ট্রেন চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলস্টেশনে মঙ্গলবার সুরমা মেইল, ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস, তিতাস কমিউটার ও কর্ণফুলী কমিউটার ট্রেন যাত্রাবিরতি করেছে।  বুধবার ১৬ জুন থেকে নিয়মিত যাত্রাবিরতি করবে ঢাকা-সিলেট রেলপথে চলাচলকারী আন্তঃনগর পারাবত এক্সপ্রেস। 

স্টেশন মাস্টার শোয়েব মিয়া জানান, সিগন্যালিং ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় গার্ড এবং ট্রেন চালকের সমন্বয়ে ট্রেনে যাত্রী উঠানামা করছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সিগন্যালিং ব্যবস্থা মেরামত করা হবে। সিগন্যালিং ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় তালশহর ও পাঘাচংয়ের মাধ্যমে লাইন ক্লিয়ারিং এর কাজ চলবে। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন