কাদের মির্জার অবরোধ দুপুরে প্রত্যাহার
jugantor
কাদের মির্জার অবরোধ দুপুরে প্রত্যাহার

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৬ জুন ২০২১, ২২:৪৫:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার ডাকা অবরোধ বুধবার দুপুরে প্রত্যাহার করে নিয়েছে। জনদুর্ভোগের কথা উল্লেখ করে কাদের মির্জা তার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বুধবার দুপুর দেড়টায় অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

এর আগে আওয়ামী লীগের ৬০ ঘণ্টা হরতাল চলাকালে অবরোধের নামে বাস-সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ এনে দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে তিনি বুধবার পুর্নদিবস অরবোধ ডেকেছিলেন।

এদিকে মেয়র কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ তারই ভাগ্নে উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু বুধবার দুপুর ১টায় তার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নেতাকর্মীদের বসুরহাট পৌরসভাসহ সব ইউনিয়নে সর্বনিম্ন ১শ' সদস্যবিশিষ্ট 'সংগ্রাম কমিটি' গঠনের আহ্বান জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে উপজেলার চরফকিরা, মুছাপুর, রামপুর, চরএলাহী, চরপার্বতী, সিরাজপুর, চরকাঁকড়া, চরহাজারী ইউনিয়নে প্রতিবাদ সমাবেশ এবং বাদলসহ অন্যদের সুস্থতা কামনায় দোয়ার আয়োজন করা হয়।

এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ সহযোগী সংগঠনের স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের মুখপাত্র সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ভাগ্নে মাহবুবুর রশিদ মঞ্জুর বসুরহাটের বাসভবনে পৌর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

আওয়ামী লীগের মুখপাত্র সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ভাগ্নে মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু গণমাধ্যমকে জানান, শনিবারের মধ্যে কাদের মির্জাকে দল থেকে স্থায়ী বহিষ্কার ও গ্রেফতার করা না হলে আগামী রোববার থেকে তাদের পূর্বঘোষিত লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি চলতে থাকবে। দলীয় এ কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে পৌরসভাসহ সব ইউনিয়নে সর্বনিম্ন ১০০ সদস্যবিশিষ্ট 'সংগ্রাম কমিটি' গঠন করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খানের কাছে বৃহস্পতিবারের মধ্যে জমা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন থেকে কোম্পানীগঞ্জে ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই বসুরহাট পৌরসভার আলোচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জার সঙ্গে স্থানীয় উপজেলা আওয়ামী লীগের বিরোধ চলে আসছে। এতে দফায় দফায় সংঘর্ষে দুইজন নিহত ও শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। অর্ধশতাধিক মামলায় শতাধিক নেতাকর্মী কারাগারেও গেছেন। এসব নেতাকর্মীর মধ্যে বেশ কয়েকজন এখনো বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এবং বিভিন্ন মামলায় কারাগারে আটক রয়েছেন।

কাদের মির্জার অবরোধ দুপুরে প্রত্যাহার

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৬ জুন ২০২১, ১০:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার ডাকা অবরোধ বুধবার দুপুরে প্রত্যাহার করে নিয়েছে। জনদুর্ভোগের কথা উল্লেখ করে কাদের মির্জা তার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বুধবার দুপুর দেড়টায় অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

এর আগে আওয়ামী লীগের ৬০ ঘণ্টা হরতাল চলাকালে অবরোধের নামে বাস-সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ এনে দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে তিনি বুধবার পুর্নদিবস অরবোধ ডেকেছিলেন।

এদিকে মেয়র কাদের মির্জার প্রতিপক্ষ তারই ভাগ্নে উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু বুধবার দুপুর ১টায় তার ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নেতাকর্মীদের বসুরহাট পৌরসভাসহ সব ইউনিয়নে সর্বনিম্ন ১শ' সদস্যবিশিষ্ট 'সংগ্রাম কমিটি' গঠনের আহ্বান জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে উপজেলার চরফকিরা, মুছাপুর, রামপুর, চরএলাহী, চরপার্বতী, সিরাজপুর, চরকাঁকড়া, চরহাজারী ইউনিয়নে প্রতিবাদ সমাবেশ এবং বাদলসহ অন্যদের সুস্থতা কামনায় দোয়ার আয়োজন করা হয়।

এ সময় উপজেলা আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগসহ সহযোগী সংগঠনের স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগের মুখপাত্র সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ভাগ্নে মাহবুবুর রশিদ মঞ্জুর বসুরহাটের বাসভবনে পৌর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে প্রতিবাদ সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়।

আওয়ামী লীগের মুখপাত্র সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ভাগ্নে মাহবুবুর রশিদ মঞ্জু গণমাধ্যমকে জানান, শনিবারের মধ্যে কাদের মির্জাকে দল থেকে স্থায়ী বহিষ্কার ও গ্রেফতার করা না হলে আগামী রোববার থেকে তাদের পূর্বঘোষিত লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি চলতে থাকবে। দলীয় এ কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে পৌরসভাসহ সব ইউনিয়নে সর্বনিম্ন ১০০ সদস্যবিশিষ্ট 'সংগ্রাম কমিটি' গঠন করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খানের কাছে বৃহস্পতিবারের মধ্যে জমা দেয়ার জন্য বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন থেকে কোম্পানীগঞ্জে ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই বসুরহাট পৌরসভার আলোচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জার সঙ্গে স্থানীয় উপজেলা আওয়ামী লীগের বিরোধ চলে আসছে। এতে দফায় দফায় সংঘর্ষে দুইজন নিহত ও শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। অর্ধশতাধিক মামলায় শতাধিক নেতাকর্মী কারাগারেও গেছেন। এসব নেতাকর্মীর মধ্যে বেশ কয়েকজন এখনো বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এবং বিভিন্ন মামলায় কারাগারে আটক রয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন