মেয়রকে দাওয়াত না দেয়ায় আ.লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, দুজন গুলিবিদ্ধসহ আহত ৫
jugantor
মেয়রকে দাওয়াত না দেয়ায় আ.লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, দুজন গুলিবিদ্ধসহ আহত ৫

  নরসিংদী প্রতিনিধি  

১৬ জুন ২০২১, ২৩:১৭:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর মাধবদীতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রতিপক্ষের হামালায় পৌর সভার সাবেক কাউন্সিলরসহ দুজন গুলিবিদ্ধ ও পাঁচজন আহত হয়েছেন।

বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাধবদী পৌরসভার সামনে এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় সাবেক কাউন্সিলর জাকারিয়াকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিএম তালেব হোসেন জানিয়েছেন, দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন নিয়ে আজ রমনি কমিউনিটি সেন্টারে কার্যকরী কমিটির মিটিং চলছিল। এ সময় মাধবদী পৌরসভার মেয়র মোশারফ হোসেন মিটিংয়ে উপস্থিত হন। মেয়রকে কেন দাওয়াত দেয়া হয়নি তা নিয়ে উপস্থিত নেত্রীবৃন্দের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। পরে সেখান থেকে মেয়র চলে যান।

তিনি বলেন, মেয়র ও তার সমর্থকরা চলে যাওয়ার সময় ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুদ মেয়র সমর্থকদের কটূক্তি করেন। এ নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর প্রতিবাদে পৌর সভার সাবেক কমিশনার ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, তার ভাই পৌরসভার সাবেক কমিশনার, থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাকারিয়া ও তাদের সমর্থকরা মিছিল বের করেন।

তালেব হোসেন বলেন, মিছিলটি পৌরসভাসংলগ্ন রাঁধুনী রেস্টুরেন্টের সামনে আসলে দুই পক্ষের সমর্থকরা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি বর্ষণ করা হয়। এতে পৌরসভার সাবেক কমিশনার, মাধবদী থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাকারিয়া ও আবু কালাম নামে দুজন গুলিবিদ্ধসহ ৫ জন আহত হন।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে আহতদের নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।

মাধবদী থানার ওসি সৈয়দুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, মিটিংয়ে দাওয়াত না দেয়াকে কেন্দ্র করে পৌরসভার মেয়রের সঙ্গে আনোয়ার কমিশনারসহ স্থানীয় নেত্রীবৃন্দের কথা কাটাকাটি হয়। এর জেরেই এ ঘটনা ঘটেছে।

মেয়রকে দাওয়াত না দেয়ায় আ.লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, দুজন গুলিবিদ্ধসহ আহত ৫

 নরসিংদী প্রতিনিধি 
১৬ জুন ২০২১, ১১:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নরসিংদীর মাধবদীতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রতিপক্ষের হামালায় পৌর সভার সাবেক কাউন্সিলরসহ দুজন গুলিবিদ্ধ ও পাঁচজন আহত হয়েছেন। 

বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মাধবদী পৌরসভার সামনে এ ঘটনা ঘটে। 

গুরুতর আহত অবস্থায় সাবেক কাউন্সিলর জাকারিয়াকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। 

জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জিএম তালেব হোসেন জানিয়েছেন, দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটি গঠন নিয়ে আজ রমনি কমিউনিটি সেন্টারে কার্যকরী কমিটির মিটিং চলছিল। এ সময় মাধবদী পৌরসভার মেয়র মোশারফ হোসেন মিটিংয়ে উপস্থিত হন। মেয়রকে কেন দাওয়াত দেয়া হয়নি তা নিয়ে উপস্থিত নেত্রীবৃন্দের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। পরে সেখান থেকে মেয়র চলে যান। 

তিনি বলেন, মেয়র ও তার সমর্থকরা চলে যাওয়ার সময় ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুদ মেয়র সমর্থকদের কটূক্তি করেন। এ নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর প্রতিবাদে পৌর সভার সাবেক কমিশনার ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন, তার ভাই পৌরসভার সাবেক কমিশনার, থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাকারিয়া  ও তাদের সমর্থকরা মিছিল বের করেন। 

তালেব হোসেন বলেন, মিছিলটি পৌরসভাসংলগ্ন রাঁধুনী রেস্টুরেন্টের সামনে আসলে দুই পক্ষের সমর্থকরা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি বর্ষণ করা হয়। এতে পৌরসভার সাবেক কমিশনার, মাধবদী থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাকারিয়া ও আবু কালাম নামে দুজন গুলিবিদ্ধসহ ৫ জন আহত হন। 

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে আহতদের নরসিংদী সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।

মাধবদী থানার ওসি সৈয়দুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, মিটিংয়ে দাওয়াত না দেয়াকে কেন্দ্র করে পৌরসভার মেয়রের সঙ্গে আনোয়ার কমিশনারসহ স্থানীয় নেত্রীবৃন্দের কথা কাটাকাটি হয়। এর জেরেই এ ঘটনা ঘটেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন