কৃষির উন্নয়নে পাহাড়ের চেহারা বদলে যাবে: কৃষিমন্ত্রী
jugantor
কৃষির উন্নয়নে পাহাড়ের চেহারা বদলে যাবে: কৃষিমন্ত্রী
বান্দরবান প্রতিনিধি

  বান্দরবান প্রতিনিধি  

১৯ জুন ২০২১, ২০:৪৬:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

বান্দরবানের রুমায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে কৃষি মন্ত্রীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিচ্ছেন পাহাড়িরা

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কৃষির উন্নয়নে পাহাড়ের অর্থনৈতিক চেহারা বদলে যাবে।

শনিবার বিকালে বান্দরবানের রুমা উপজেলায় কাজু বাদাম বাগান, কফি বাগান ও আমসহ অন্যান্য ফলবাগান পরিদর্শন শেষে কৃষিমন্ত্রী এ কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রী জানান, কাজুবাদাম ও কফি গবেষণা, উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে সরকার ২১১ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদা আক্তার, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আসাদুল্লাহ, বিএডিসির চেয়ারম্যান ড. অমিতাভ সরকার, বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি উপস্থিত ছিলেন।

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কৃষিকে লাভজনক করতে হলে কাজুবাদাম, কফি, গোলমরিচসহ অপ্রচলিত অর্থকরী ফসল চাষ করতে হবে। দেশের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারেও এসবের ব্যাপক চাহিদা থাকায় এসব ফসলের চাষাবাদ বাড়াতে হবে। কৃষি মন্ত্রণালয় কাজুবাদাম ও কফির উন্নত জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন এবং এসব ফসলের চাষ আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে অল্প পরিসরে কাজুবাদাম এবং কফি উৎপাদন হচ্ছে। শুধু পাহাড়ি অঞ্চল নয়, সারাদেশের যেসব অঞ্চলে কাজুবাদাম এবং কফি চাষাবাদের সম্ভাবনা আছে কিন্তু চাষাবাদ হচ্ছে না। পর্যায়ক্রমে এমন এলাকাও কাজুবাদাম ও কফির চাষের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

পরে মন্ত্রী হেলিকপ্টারযোগে রুমা থেকে থানচি উপজেলায় যান। সেখানে তিনি ফলজ বাগান পরিদর্শন করেন এবং কৃষির উন্নয়ন সম্ভাবনা নিয়ে কৃষকদের সঙ্গে কথা বলেন। থানচি থেকে হেলিকপ্টারযোগে মন্ত্রী সন্ধ্যায় বান্দরবান ত্যাগ করেন।

কৃষির উন্নয়নে পাহাড়ের চেহারা বদলে যাবে: কৃষিমন্ত্রী

বান্দরবান প্রতিনিধি
 বান্দরবান প্রতিনিধি 
১৯ জুন ২০২১, ০৮:৪৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বান্দরবানের রুমায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে কৃষি মন্ত্রীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিচ্ছেন পাহাড়িরা
বান্দরবানের রুমায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে কৃষি মন্ত্রীকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিচ্ছেন পাহাড়িরা। ছবি: যুগান্তর

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কৃষির উন্নয়নে পাহাড়ের অর্থনৈতিক চেহারা বদলে যাবে। 

শনিবার বিকালে বান্দরবানের রুমা উপজেলায় কাজু বাদাম বাগান, কফি বাগান ও আমসহ অন্যান্য ফলবাগান পরিদর্শন শেষে কৃষিমন্ত্রী এ কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রী জানান, কাজুবাদাম ও কফি গবেষণা, উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে সরকার ২১১ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছে। 

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব ওয়াহিদা আক্তার, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আসাদুল্লাহ, বিএডিসির চেয়ারম্যান ড. অমিতাভ সরকার, বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি উপস্থিত ছিলেন।

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, কৃষিকে লাভজনক করতে হলে কাজুবাদাম, কফি, গোলমরিচসহ অপ্রচলিত অর্থকরী ফসল চাষ করতে হবে। দেশের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারেও এসবের ব্যাপক চাহিদা থাকায় এসব ফসলের চাষাবাদ বাড়াতে হবে। কৃষি মন্ত্রণালয় কাজুবাদাম ও কফির উন্নত জাত ও প্রযুক্তি উদ্ভাবন এবং এসব ফসলের চাষ আরও ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে দিতে কাজ করছে বলেও জানান তিনি। 

মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে অল্প পরিসরে কাজুবাদাম এবং কফি উৎপাদন হচ্ছে। শুধু পাহাড়ি অঞ্চল নয়, সারাদেশের যেসব অঞ্চলে কাজুবাদাম এবং কফি চাষাবাদের সম্ভাবনা আছে কিন্তু চাষাবাদ হচ্ছে না। পর্যায়ক্রমে এমন এলাকাও কাজুবাদাম ও কফির চাষের আওতায় নিয়ে আসা হবে। 

পরে মন্ত্রী হেলিকপ্টারযোগে রুমা থেকে থানচি উপজেলায় যান। সেখানে তিনি ফলজ বাগান পরিদর্শন করেন এবং কৃষির উন্নয়ন সম্ভাবনা নিয়ে কৃষকদের সঙ্গে কথা বলেন। থানচি থেকে হেলিকপ্টারযোগে মন্ত্রী সন্ধ্যায় বান্দরবান ত্যাগ করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন