প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাচ্ছে রংপুরের ৭১৫ গৃহহীন পরিবার
jugantor
প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাচ্ছে রংপুরের ৭১৫ গৃহহীন পরিবার

  রংপুর ব্যুরো  

১৯ জুন ২০২১, ২০:৫১:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রংপুর জেলায় দ্বিতীয় ধাপে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৭১৫ পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাকা ঘর।

‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগান সামনে রেখে ইতোমধ্যে ঘরগুলো নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। রোববার ঘরগুলো হস্তান্তর করা হবে। জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ঘর নির্মাণ কাজ ও নির্মাণের মান তদারকি করা হয়।

শনিবার দুপুরে রংপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান জেলা প্রশাসক আসিব আহসান।

তিনি বলেন, রংপুরের আটটি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলার ১০০টি পরিবার, পীরগঞ্জে ১০০, পীরগাছায় ৪০, কাউনিয়ায় ২০০, মিঠাপুকুরে ৬৫, তারাগঞ্জে ১০০, বদরগঞ্জে ১০ এবং গঙ্গাচড়া উপজেলার ১০০টি পরিবার পাবে মাথা গোঁজার ঠাঁই।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, জেলার ভূমিহীন ও গৃহহীনকে দুই শতাংশ জমি দিয়ে ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি আধাপাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ১ লাখ ৯১ হাজার টাকা। ‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগান নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় যাদের জমি নেই, ঘর নেই- তাদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারি খাসজমিতে এসব ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এর আগে প্রথম ধাপে জেলার ভূমিহীন ও গৃহহীন ১ হাজার ২৭৩টি পরিবারকে ২ শতক জমিতে বসতবাড়ি নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে জেলার সব ভূমিহীন ও গৃহহীনকে এ কর্মসূচির আওতায় নিয়ে আসা হবে।

প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাচ্ছে রংপুরের ৭১৫ গৃহহীন পরিবার

 রংপুর ব্যুরো 
১৯ জুন ২০২১, ০৮:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রংপুর জেলায় দ্বিতীয় ধাপে ভূমিহীন ও গৃহহীন ৭১৫ পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাকা ঘর। 

‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগান সামনে রেখে ইতোমধ্যে ঘরগুলো নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। রোববার ঘরগুলো হস্তান্তর করা হবে। জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে ঘর নির্মাণ কাজ ও নির্মাণের মান তদারকি করা হয়।

শনিবার দুপুরে রংপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান জেলা প্রশাসক আসিব আহসান।

তিনি বলেন, রংপুরের আটটি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলার ১০০টি পরিবার, পীরগঞ্জে ১০০, পীরগাছায় ৪০, কাউনিয়ায় ২০০, মিঠাপুকুরে ৬৫, তারাগঞ্জে ১০০, বদরগঞ্জে ১০ এবং গঙ্গাচড়া উপজেলার ১০০টি পরিবার পাবে মাথা গোঁজার ঠাঁই।

জেলা প্রশাসক আরও বলেন, জেলার ভূমিহীন ও গৃহহীনকে দুই শতাংশ জমি দিয়ে ঘর তৈরি করে দেওয়া হচ্ছে। দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি আধাপাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ১ লাখ ৯১ হাজার টাকা। ‘আশ্রয়ণের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এই স্লোগান নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় যাদের জমি নেই, ঘর নেই- তাদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারি খাসজমিতে এসব ঘর নির্মাণ করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এর আগে প্রথম ধাপে জেলার ভূমিহীন ও গৃহহীন ১ হাজার ২৭৩টি পরিবারকে ২ শতক জমিতে বসতবাড়ি নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে জেলার সব ভূমিহীন ও গৃহহীনকে এ কর্মসূচির আওতায় নিয়ে আসা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন