মধ্যরাত থেকে কুষ্টিয়ায় কঠোর লকডাউন
jugantor
মধ্যরাত থেকে কুষ্টিয়ায় কঠোর লকডাউন

  কুষ্টিয়া প্রতিনিধি  

২০ জুন ২০২১, ২২:২২:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সীমান্তবর্তী জেলা কুষ্টিয়ায় অস্বাভাবিক হারে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ৭ দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

রোববার রাত ৮টায় কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম জেলাজুড়ে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি জারি করেন। রোববার রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে এ লকডাউন কার্যকর হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- জেলায় সর্বাত্মক লকডাউন চলাকালে দূরপাল্লার সব যানবহন চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়া দোকান মার্কেটসহ সব শিল্প-কলকারখানাও বন্ধ থাকবে।

গত কয়েক দিন ধরে কুষ্টিয়াতে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা। শহর থেকে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে সংক্রমণ। গত ৪৮ ঘণ্টায় জেলায় ১৮ জন করোনা আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন। একই সময়ে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭৬ জন।

এদিকে শনিবার দুপুর থেকে রোববার দুপুর পর্যন্ত হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ৯ জন রোগী মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৬৪ জন। ৫৪৯টি নমুনা পরীক্ষার পর এই ১৬৪ জন রোগী শনাক্ত হন। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার প্রায় ৩০ শতাংশ।

এ নিয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে ১০০টি শয্যার বিপরীতে বর্তমানে ১১৫ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। রোগীর চাপ ঠেকাতে ২৫০ শয্যার কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল করার জন্য ঢাকায় প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তাপস কুমার সরকার। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কুষ্টিয়া পৌরসভা এলাকায় কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হলেও তা চলছে ঢিলেঢালাভাবে।

মধ্যরাত থেকে কুষ্টিয়ায় কঠোর লকডাউন

 কুষ্টিয়া প্রতিনিধি 
২০ জুন ২০২১, ১০:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সীমান্তবর্তী জেলা কুষ্টিয়ায় অস্বাভাবিক হারে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ৭ দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

রোববার রাত ৮টায় কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম জেলাজুড়ে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে বিজ্ঞপ্তি জারি করেন। রোববার রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে এ লকডাউন কার্যকর হবে। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- জেলায় সর্বাত্মক লকডাউন চলাকালে দূরপাল্লার সব যানবহন চলাচল বন্ধ থাকবে। এছাড়া দোকান মার্কেটসহ সব শিল্প-কলকারখানাও বন্ধ থাকবে।  

গত কয়েক দিন ধরে কুষ্টিয়াতে ভয়াবহ রূপ নিয়েছে করোনা। শহর থেকে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে সংক্রমণ। গত ৪৮ ঘণ্টায় জেলায় ১৮ জন করোনা আক্রান্ত রোগী মারা গেছেন। একই সময়ে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭৬ জন। 

এদিকে শনিবার দুপুর থেকে রোববার দুপুর পর্যন্ত হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ৯ জন রোগী মারা গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৬৪ জন। ৫৪৯টি নমুনা পরীক্ষার পর এই ১৬৪ জন রোগী শনাক্ত হন। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার প্রায় ৩০ শতাংশ। 

এ নিয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে ১০০টি শয্যার বিপরীতে বর্তমানে ১১৫ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। রোগীর চাপ ঠেকাতে ২৫০ শয্যার কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল করার জন্য ঢাকায় প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. তাপস কুমার সরকার। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কুষ্টিয়া পৌরসভা এলাকায় কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হলেও তা চলছে ঢিলেঢালাভাবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন