কারচুপির অভিযোগে ৩ মেম্বারপ্রার্থীর ভোটবর্জন
jugantor
কারচুপির অভিযোগে ৩ মেম্বারপ্রার্থীর ভোটবর্জন

  বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

২১ জুন ২০২১, ১৩:৫১:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

ভোটবর্জন

পটুয়াখালীর বাউফলে কালাইয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট কারচুপি ও এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগে তিন মেম্বারপ্রার্থী ভোটবর্জন করেছেন।

সোমবার সকাল ৯টার দিকে পৃথকভাবে এ ব্যাপারে নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।

ওই মেম্বারপ্রার্থীরা হলেন— ৪নং ওয়ার্ডের ফুটবল মার্কার আয়ান আলী খন্দকার, তালা মার্কার আমিনুল ইসলাম ও টিউবওয়েল মার্কার নুরুল হক মোল্লা।

ভোট কারচুপি ও প্রতিপক্ষ মোরগ মার্কার মেম্বারপ্রার্থী কামাল হোসেনের লোকজন ভয়ভীতি দেখিয়ে এজেন্ট বের করে দেওয়ার অভিযোগে তারা এ ভোটবর্জন করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি নির্বাচনী দায়িত্ব পালনের জন্য বাইরে আছি।

তবে ইউএনওর কার্যালয়ে মো. আশ্রাব নামে এক স্টাফ (০১৭২০৫২৪৫৫৭) ভোটবর্জনের কপি বুঝে পেয়েছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে কেশবপুর ইউনিয়নের ভড়িপাশা মুন্সী হাসান আলী নব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে মারামারি ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনার ঘটনা ঘটে। এ কারণে আধাঘণ্টা ওই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল।

পরে বাউফলের ইউএনও এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফাউজুল কবির ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিবেশ শান্ত করেন। এর পর ওই কেন্দ্রে পুনরায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

কারচুপির অভিযোগে ৩ মেম্বারপ্রার্থীর ভোটবর্জন

 বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
২১ জুন ২০২১, ০১:৫১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভোটবর্জন
ফাইল ছবি

পটুয়াখালীর বাউফলে কালাইয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট কারচুপি ও এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগে তিন মেম্বারপ্রার্থী ভোটবর্জন করেছেন।

সোমবার সকাল ৯টার দিকে পৃথকভাবে এ ব্যাপারে নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।

ওই মেম্বারপ্রার্থীরা হলেন— ৪নং ওয়ার্ডের ফুটবল মার্কার আয়ান আলী খন্দকার, তালা মার্কার আমিনুল ইসলাম ও টিউবওয়েল মার্কার নুরুল হক মোল্লা।

ভোট কারচুপি ও প্রতিপক্ষ মোরগ মার্কার মেম্বারপ্রার্থী কামাল হোসেনের লোকজন ভয়ভীতি দেখিয়ে এজেন্ট বের করে দেওয়ার অভিযোগে তারা এ ভোটবর্জন করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। আমি নির্বাচনী দায়িত্ব পালনের জন্য বাইরে আছি।

তবে ইউএনওর কার্যালয়ে মো. আশ্রাব নামে এক স্টাফ (০১৭২০৫২৪৫৫৭) ভোটবর্জনের কপি বুঝে পেয়েছেন বলে জানা গেছে।

এদিকে কেশবপুর ইউনিয়নের ভড়িপাশা মুন্সী হাসান আলী নব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে মারামারি ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনার ঘটনা ঘটে। এ কারণে আধাঘণ্টা ওই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ বন্ধ ছিল।

পরে বাউফলের ইউএনও এবং দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফাউজুল কবির ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিবেশ শান্ত করেন। এর পর ওই কেন্দ্রে পুনরায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন