নাজিরপুরে ফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে হামলা, পুলিশসহ আহত ১৫
jugantor
নাজিরপুরে ফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে হামলা, পুলিশসহ আহত ১৫

  নাজিরপুর (পিরোজপুর) প্রতিনিধি :  

২২ জুন ২০২১, ০১:১০:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাতাকাছিমা গ্রামে ইউপি নির্বাচনে ফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সোমবার রাতে আওয়ামী লীগের মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের হামলায় পুলিশের দুই এসআই, নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত আনসার সদস্যসহ ১৫ জন আহত হয়েছেন। হামলাকারীরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও বিজিপি সদস্যদের বহনকরা গাড়ি ভাঙচুর করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার সেল ও গুলি নিক্ষেপ করে।

হামলায় আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনাস্থল থেকে সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মো. রাকিবুল হাসান শেখসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আহতরা হলেন ওই কেন্দ্রে দায়িত্বে থাকা পুলিশের এসআই ইমাম হাসান(৩১), মো. বাচ্চু মিয়া (৫৩), পুলিশ সদস্য মো. নুরুল আমীন (৫৮), ছগির হোসেন (২৮), দেব দুলাল হালদার (৩০), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দেহরক্ষী সাইমুন হোসেন(৩৫), আনসার সদস্য ইমারেজ ফকির (৩৫), মো. আমিন ফকির, মো. শাহ আলম (২৮) নির্বাচনী কাজে নিয়েজিত সালমা বেগম, স্থানীয় সায়েব আলী শেখের ছেলে রিয়াজ শেখ (৫৬), হাসনা বানু (৮০) ও ছাত্রলীগ নেতা রাকিব শেখ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ওবায়দুর রহমান ওই হামলার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ৮টার দিকে নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার কাজ শেষ হয়। ওই ওয়ার্ডের মেম্বার মো. আলমগীর হোসেনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। ফল ঘোষণার কিছুক্ষণ পর বিজয়ী আলমগীর হোসেনের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. কামরুল হোসেন মোল্লার কিছু ব্যালট বিজয়ী প্রার্থীর বাল্ডিলে রয়েছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। কামরুল মোল্লার সমর্থকরা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং কর্মকর্তার সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। কিছুক্ষণ পর তারা কেন্দ্রে হামলা করে।

নাজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আশ্রাফুজ্জামান ওই সংঘর্ষের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হামলা ও সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করা হয়েছে। তবে কি পরিমাণ টিয়ারসেল ও গুলি নিক্ষেপ করা হয়েছে তার হিসাব এখনই দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান তিনি।

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

নাজিরপুরে ফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে হামলা, পুলিশসহ আহত ১৫

 নাজিরপুর (পিরোজপুর) প্রতিনিধি : 
২২ জুন ২০২১, ০১:১০ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাতাকাছিমা গ্রামে ইউপি নির্বাচনে ফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সোমবার রাতে আওয়ামী লীগের মেম্বার  প্রার্থীর সমর্থকদের  হামলায়  পুলিশের দুই এসআই, নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত আনসার সদস্যসহ  ১৫  জন আহত হয়েছেন। হামলাকারীরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও বিজিপি সদস্যদের বহনকরা গাড়ি ভাঙচুর করে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার সেল ও গুলি নিক্ষেপ করে।

হামলায় আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনাস্থল থেকে সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি  মো. রাকিবুল হাসান শেখসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আহতরা হলেন ওই কেন্দ্রে দায়িত্বে থাকা  পুলিশের এসআই  ইমাম হাসান(৩১), মো. বাচ্চু মিয়া (৫৩), পুলিশ সদস্য মো. নুরুল আমীন (৫৮), ছগির হোসেন (২৮), দেব দুলাল হালদার (৩০), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দেহরক্ষী সাইমুন হোসেন(৩৫),  আনসার সদস্য ইমারেজ ফকির (৩৫), মো. আমিন ফকির, মো. শাহ আলম (২৮) নির্বাচনী কাজে নিয়েজিত সালমা বেগম, স্থানীয় সায়েব আলী শেখের ছেলে রিয়াজ শেখ (৫৬), হাসনা বানু (৮০) ও ছাত্রলীগ নেতা রাকিব শেখ। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ওবায়দুর রহমান ওই হামলার ঘটনা নিশ্চিত করেছেন। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ৮টার দিকে নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার কাজ শেষ হয়। ওই ওয়ার্ডের মেম্বার মো. আলমগীর হোসেনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। ফল ঘোষণার কিছুক্ষণ পর বিজয়ী আলমগীর হোসেনের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. কামরুল হোসেন মোল্লার কিছু ব্যালট বিজয়ী প্রার্থীর বাল্ডিলে রয়েছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে। কামরুল মোল্লার সমর্থকরা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ওই কেন্দ্রের  দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং কর্মকর্তার সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। কিছুক্ষণ পর তারা কেন্দ্রে  হামলা করে। 

নাজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আশ্রাফুজ্জামান ওই সংঘর্ষের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হামলা ও সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে গুলি ও টিয়ারসেল নিক্ষেপ করা হয়েছে। তবে কি পরিমাণ টিয়ারসেল ও গুলি নিক্ষেপ করা হয়েছে তার হিসাব এখনই দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান তিনি। 

এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন