ধর্ষণের ভিডিও ভাইরালের হুমকি দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণে মামলা
jugantor
ধর্ষণের ভিডিও ভাইরালের হুমকি দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণে মামলা

  ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২২ জুন ২০২১, ১৭:২২:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে (ফেসবুক) ভাইরাল করার হুমকি দিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীকে বারবার ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়েছেন।

গ্রেফতার ব্যবসায়ীর নাম মনির হোসেন। তিনি একজন মুদি ব্যবসায়ী। সোমবার রাতে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। এ ব্যাপারে ধামরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে ওই ধর্ষককে ঢাকার ধামরাই জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। এছাড়া ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই প্রবাসীর স্ত্রীকে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও ভিকটিমের পরিবার জানায়, ওই গৃহবধূর স্বামী প্রবাসে থাকার সুযোগে কয়েক দিন আগে রাতে ওই গ্রামের মৃত আব্দুল হালিমের ছেলে মুদি ব্যবসায়ী মনির হোসেন ওই প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে ঢুকে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। কৌশলে ধর্ষণের ঘটনা মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করেন মনির।
এরপর প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের ওই ভিডিও দেখিয়ে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে (ফেসবুক) ভাইরাল করার ভয় দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বারবার ধর্ষণ করেন মনির হোসেন। স্বামীর ঘর রক্ষায় নীরবে ওই ধর্ষকের ইচ্ছানুযায়ীই কোনোমতে দিন পার করছেন ওই প্রবাসীর স্ত্রী।

অবশেষে নিরুপায় হয়ে সোমবার রাত ৭টার দিকে ওই ধর্ষক তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে আবারো ধর্ষণ করলে তিনি বাঁচাও বাঁচাও বলে ডাকচিৎকার করেন। এ সময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে মনির পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা তাকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় ওই রাতেই প্রবাসীর স্ত্রী বাদী হয়ে ধর্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই ধর্ষককে রাতে থানা হাজতে ও প্রবাসীর স্ত্রীকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. সেকেন্দার আলী বলেন, ধর্ষক গ্রেফতার হয়েছে। এ ব্যাপারে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা হয়েছে। ভিকটিমের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে ধর্ষককে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

ধর্ষণের ভিডিও ভাইরালের হুমকি দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণে মামলা

 ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২২ জুন ২০২১, ০৫:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে ধর্ষণের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে (ফেসবুক) ভাইরাল করার হুমকি দিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীকে বারবার ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হয়েছেন।

গ্রেফতার ব্যবসায়ীর নাম মনির হোসেন। তিনি একজন মুদি ব্যবসায়ী। সোমবার রাতে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে। এ ব্যাপারে ধামরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে ওই ধর্ষককে ঢাকার ধামরাই জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। এছাড়া ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই প্রবাসীর স্ত্রীকে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও ভিকটিমের পরিবার জানায়, ওই গৃহবধূর স্বামী প্রবাসে থাকার সুযোগে কয়েক দিন আগে রাতে ওই গ্রামের মৃত আব্দুল হালিমের ছেলে মুদি ব্যবসায়ী মনির হোসেন ওই প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে ঢুকে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। কৌশলে ধর্ষণের ঘটনা মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করেন মনির।
এরপর প্রবাসীর স্ত্রীকে ধর্ষণের ওই ভিডিও দেখিয়ে তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে (ফেসবুক) ভাইরাল করার ভয় দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে বারবার ধর্ষণ করেন মনির হোসেন। স্বামীর ঘর রক্ষায় নীরবে ওই ধর্ষকের ইচ্ছানুযায়ীই কোনোমতে দিন পার করছেন ওই প্রবাসীর স্ত্রী।
 
অবশেষে নিরুপায় হয়ে সোমবার রাত ৭টার দিকে ওই ধর্ষক তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে আবারো ধর্ষণ করলে তিনি বাঁচাও বাঁচাও বলে ডাকচিৎকার করেন। এ সময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে মনির পালিয়ে যান। পরে স্থানীয়রা তাকে আটক  করে পুলিশে সোপর্দ করেন।

এ ঘটনায় ওই রাতেই প্রবাসীর স্ত্রী বাদী হয়ে ধর্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই ধর্ষককে রাতে থানা হাজতে ও প্রবাসীর স্ত্রীকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়।

এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মো. সেকেন্দার আলী বলেন, ধর্ষক গ্রেফতার হয়েছে। এ ব্যাপারে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা হয়েছে। ভিকটিমের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে ধর্ষককে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন