আওয়ামী লীগ নেতার পানিবন্দি ছবি নিয়ে তোলপাড়
jugantor
আওয়ামী লীগ নেতার পানিবন্দি ছবি নিয়ে তোলপাড়

  নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি  

২৩ জুন ২০২১, ০১:২৫:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জে পানিবন্দি রাস্তায় আওয়ামী লীগ নেতার দাড়িয়ে থাকা একটি ছবি নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে ভার্চুয়াল জগতে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহার ওই ছবি নিয়ে পুরো শহরময় দিনভর ছিল আলোচনা সমালোচনা।

মঙ্গলবার দুপুরে খোকন সাহার ঘনিষ্ঠভাজন হিসেবে পরিচিত সুজীত সরকার নামে এক ব্যক্তি তার নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে ছবিটি আপলোড করেন। মাত্র কয়েক ঘণ্টায় শত শত শেয়ার আর কমেন্টে ভাইরাল হয়ে উঠে সেই ছবি।

অনেকেই মন্তব্য করেন, সরকারি দলের একজন শীর্ষ নেতা হয়ে জলাবদ্ধতায় ডুবে থাকার ছবি দিয়ে দলের সমালোচনা করার সুযোগ সৃষ্টি করেছেন। আবার একই দলের (আওয়ামী লীগ) কেউ কেউ নেতা হয়ে এমন ছবি তুলে ফেসবুকে দেয়ার সমালোচনা করে বলেছেন, নিজে ভাইরাল হতে এবং মেয়র আইভীকে সমালোচিত করতেই বিষয়টি ইচ্ছাকৃত ভাবেই করেছেন খোকন সাহা।

তবে বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ ও ব্যক্তির আইডিতে শেয়ার করা এই ছবিটি নিয়ে বেশির ভাগ মন্তব্যই ছিল ইতিবাচক। তারা এই ছবিকে নগরীর জলাবদ্ধতা নিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহার অভিনব প্রতিবাদ বলে আখ্যা দিয়েছেন।

এদিকে সুজিত সরকার ওই পোস্টে লিখেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী যে প্রাসাদে বাস করেন সেই রকম প্রসাদ দেশের প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি, বিরোধী দলের নেত্রী এদের এ রকম প্রাসাদ নেই বাংলাদেশে। মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর প্রাসাদের নাকের ডগায় ডিএন রোড। এই ডিএন রোডে বসবাস করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের ২৬ বছরের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালনকারী অ্যাডভোকেট খোকন সাহা। অ্যাডভোকেট খোকন সাহা নারায়ণগঞ্জ জেলা জজ কোর্টের একজন ঝানু উকিল। সামান্য বৃষ্টি হলেই এ এলাকা ডুবে যায়। নিচু ঘর-বাড়িগুলি ডুবে যায়। ডুবে যায় অ্যাড. খোকন সাহার টিনের বাড়ি।’

তিনি লেখেন, ‘এই নারায়ণগঞ্জ শহরে রঙিন কাগজে কালো অক্ষরে লেখা হয়, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কত গুণকীর্তন। তা এই ডিএন রোডে তো কোনো পলিথিন ফেলা হয় না। এই ডিএন রোডের বাড়ির মালিকরা সিটি করপোরেশনকে নিয়মিত ট্যাক্স প্রদান করে। গত আঠারো বছরে তো ডিএন রোড সিটি করপোরেশনের উন্নয়নের জোয়ার দেখতে পেয়েছে কী?’

এদিকে পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার পর সিটি কর্পোরেশনের সিদ্ধিরগঞ্জ ও শহর এলাকার প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডের বাসিন্দারা সেখানে জলাবদ্ধতা নিয়ে সিটি কর্পোরেশনের সমালোচনা করেছেন। তারা নিজ নিজ ওয়ার্ডের জলাবদ্ধতার ছবি দিয়ে এ থেকে পরিত্রাণ পেতে চেয়েছেন।

অনেকে লিখেছেন, সাবেক পৌরসভা ও বর্তমানে সিটি কর্পোরেশনের প্রায় ১৯ বছরেও শহরের ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নতি হয়নি বলেই ১০ মিনিটের বৃষ্টিতে শহরের প্রধান সড়কে হাঁটু পানি জমে।

অনেকে আক্ষেপ করে বলেছেন, শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে গড়ে উঠা এই শহরে জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে মুক্তি পাবেন কবে?

উল্লেখ্য, আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে মেয়র আইভীর সঙ্গে মহানগর সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহার বৈরী সম্পর্ক চলছে অনেক আগে থেকেই। আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে খোকন সাহা প্রার্থী হতে পারেন বলেও বেশ গুঞ্জন রয়েছে। সম্প্রতি মেয়র আইভী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে একটি মন্দিরের সম্পত্তি দখল করার অভিযোগ তুলেন খোকন সাহা। এনিয়ে খোকন সাহাকে আসামি করে আইসিটি আইনে মামলাও করেছেন মেয়র আইভী।

আওয়ামী লীগ নেতার পানিবন্দি ছবি নিয়ে তোলপাড়

 নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি 
২৩ জুন ২০২১, ০১:২৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জে পানিবন্দি রাস্তায় আওয়ামী লীগ নেতার দাড়িয়ে থাকা একটি ছবি নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে ভার্চুয়াল জগতে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহার ওই ছবি নিয়ে পুরো শহরময় দিনভর ছিল আলোচনা সমালোচনা।

মঙ্গলবার দুপুরে খোকন সাহার ঘনিষ্ঠভাজন হিসেবে পরিচিত সুজীত সরকার নামে এক ব্যক্তি তার নিজস্ব ফেসবুক আইডিতে ছবিটি আপলোড করেন। মাত্র কয়েক ঘণ্টায় শত শত শেয়ার আর কমেন্টে ভাইরাল হয়ে উঠে সেই ছবি।

অনেকেই মন্তব্য করেন, সরকারি দলের একজন শীর্ষ নেতা হয়ে জলাবদ্ধতায় ডুবে থাকার ছবি দিয়ে দলের সমালোচনা করার সুযোগ সৃষ্টি করেছেন। আবার একই দলের (আওয়ামী লীগ) কেউ কেউ নেতা হয়ে এমন ছবি তুলে ফেসবুকে দেয়ার সমালোচনা করে বলেছেন, নিজে ভাইরাল হতে এবং মেয়র আইভীকে সমালোচিত করতেই বিষয়টি ইচ্ছাকৃত ভাবেই করেছেন খোকন সাহা।

তবে বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ ও ব্যক্তির আইডিতে শেয়ার করা এই ছবিটি নিয়ে বেশির ভাগ মন্তব্যই ছিল ইতিবাচক। তারা এই ছবিকে নগরীর জলাবদ্ধতা নিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহার অভিনব প্রতিবাদ বলে আখ্যা দিয়েছেন।
 
এদিকে সুজিত সরকার ওই পোস্টে লিখেছেন, ‘নারায়ণগঞ্জের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী যে প্রাসাদে বাস করেন সেই রকম প্রসাদ দেশের প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি, বিরোধী দলের নেত্রী এদের এ রকম প্রাসাদ নেই বাংলাদেশে। মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর প্রাসাদের নাকের ডগায় ডিএন রোড। এই ডিএন রোডে বসবাস করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের ২৬ বছরের সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব পালনকারী অ্যাডভোকেট খোকন সাহা। অ্যাডভোকেট খোকন সাহা নারায়ণগঞ্জ জেলা জজ কোর্টের একজন ঝানু উকিল। সামান্য বৃষ্টি হলেই এ এলাকা ডুবে যায়। নিচু ঘর-বাড়িগুলি ডুবে যায়। ডুবে যায় অ্যাড. খোকন সাহার টিনের বাড়ি।’

তিনি লেখেন, ‘এই নারায়ণগঞ্জ শহরে রঙিন কাগজে কালো অক্ষরে লেখা হয়, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কত গুণকীর্তন। তা এই ডিএন রোডে তো কোনো পলিথিন ফেলা হয় না। এই ডিএন রোডের বাড়ির মালিকরা সিটি করপোরেশনকে নিয়মিত ট্যাক্স প্রদান করে। গত আঠারো বছরে তো ডিএন রোড সিটি করপোরেশনের উন্নয়নের জোয়ার দেখতে পেয়েছে কী?’

এদিকে পোস্টটি ভাইরাল হওয়ার পর সিটি কর্পোরেশনের সিদ্ধিরগঞ্জ ও শহর এলাকার প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডের বাসিন্দারা সেখানে জলাবদ্ধতা নিয়ে সিটি কর্পোরেশনের সমালোচনা করেছেন। তারা নিজ নিজ ওয়ার্ডের জলাবদ্ধতার ছবি দিয়ে এ থেকে পরিত্রাণ পেতে চেয়েছেন।

অনেকে লিখেছেন, সাবেক পৌরসভা ও বর্তমানে সিটি কর্পোরেশনের প্রায় ১৯ বছরেও শহরের ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নতি হয়নি বলেই ১০ মিনিটের বৃষ্টিতে শহরের প্রধান সড়কে হাঁটু পানি জমে।

অনেকে আক্ষেপ করে বলেছেন, শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে গড়ে উঠা এই শহরে জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে মুক্তি পাবেন কবে?

উল্লেখ্য, আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে মেয়র আইভীর সঙ্গে মহানগর সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহার বৈরী সম্পর্ক চলছে অনেক আগে থেকেই। আগামী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে খোকন সাহা প্রার্থী হতে পারেন বলেও বেশ গুঞ্জন রয়েছে। সম্প্রতি মেয়র আইভী ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে একটি মন্দিরের সম্পত্তি দখল করার অভিযোগ তুলেন খোকন সাহা। এনিয়ে খোকন সাহাকে আসামি করে আইসিটি আইনে মামলাও করেছেন মেয়র আইভী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন