ট্রাকের লুকিং গ্লাসে ধর্ষণ দেখে ৯৯৯ নম্বরে যুবকের ফোন
jugantor
ট্রাকের লুকিং গ্লাসে ধর্ষণ দেখে ৯৯৯ নম্বরে যুবকের ফোন

  সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৪ জুন ২০২১, ০০:১৭:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী একটি চলন্ত ট্রাকে মানসিক ভারসাম্যহীন এক তরুণীকে (২০) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। লুকিং গ্লাসে এ ঘটনা দেখে ৯৯৯ নম্বরে এক যুবক ফোন দিলে ট্রাকচালক ও হেলপারকে আটক করেছে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিমপাড় সংযোগ মহাসড়কে সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড় এলাকা থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় ট্রাকসহ চালক ও হেলপারকে আটক করা হয়। আটকরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অপরাধ স্বীকার করেছেন।

অভিযুক্ত ট্রাকচালক বগুড়া সদর উপজেলার আশুখোলা গ্রামের মনসুর আলীর ছেলে সোহেল রানা (৩২) ও হেলপার একই জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার জহুরুল শেখের ছেলে ওয়াবাহ শেখ (৩০)। বুধবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনার পর রাতেই নির্যাতনের শিকার ওই তরুণীর বাবা আলতাফ হোসেন খান বাদী হয়ে ট্রাকচালক ও হেলপারকে আসামি করে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তিনি সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ থানার বাসিন্দা। বুধবার সকালে ওই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়।

এ তথ্য নিশ্চিত করেন বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ওসি মোসাদ্দেক হোসাইন ও কড্ডার মোড়ে দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট আমির হোসেন।

ট্রাফিক সার্জেন্ট আমির হোসেন জানান, উত্তরবঙ্গগামী একটি ট্রাকে চন্দ্রা এলাকা থেকে দুই যুবককে ওঠানোর পর এক ব্যক্তি ওই তরুণীকে ট্রাকে উঠিয়ে দিয়ে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা বাজার এলাকায় নামিয়ে দিতে বলেন। এ সময় তিনি মেয়েটির মানসিক সমস্যা আছে বলে ট্রাকচালককে জানিয়ে দেন। পরে ট্রাকচালক মেয়েটিকে ট্রাকের সামনে কেবিনে বসতে দেন।

ট্রাকটি টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা এলাকায় পৌঁছলে চালক ট্রাকে থাকা দুই যাত্রীকে কোনো কাজ থাকলে সেরে নিতে বলেন। এ সময় ওই যুবকরা নেমে ট্রাকের লুকিং গ্লাসের মাধ্যমে দেখতে পান- ট্রাকচালক ও হেলপার মেয়েটির সঙ্গে খারাপ কিছু করার চেষ্টা করছেন।

তখন তারা এ দৃশ্য ভিডিও করার চেষ্টা করলে ট্রাকচালক তাদের রেখেই ট্রাকটি নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এ সময় এক যুবক ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে বিষয়টি অবগত করলে সিরাজগঞ্জ পুলিশসহ ট্রাফিক ও হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে সতর্ক অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড় এলাকা থেকে ট্রাকসহ চালক ও হেলপারকে আটক এবং তরুণীকে উদ্ধার করা হয়।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ওসি মো. মোসাদ্দেক হোসাইন জানান, প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে মেয়েটি ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। তবে মেয়েটি মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন হওয়ায় স্পষ্টভাবে কিছু বলতে পারছেন না।

ট্রাকের লুকিং গ্লাসে ধর্ষণ দেখে ৯৯৯ নম্বরে যুবকের ফোন

 সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি  
২৪ জুন ২০২১, ১২:১৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী একটি চলন্ত ট্রাকে মানসিক ভারসাম্যহীন এক তরুণীকে (২০) ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। লুকিং গ্লাসে এ ঘটনা দেখে ৯৯৯ নম্বরে এক যুবক ফোন দিলে ট্রাকচালক ও হেলপারকে আটক করেছে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানা পুলিশ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিমপাড় সংযোগ মহাসড়কে সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড় এলাকা থেকে ওই তরুণীকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় ট্রাকসহ চালক ও হেলপারকে আটক করা হয়। আটকরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অপরাধ স্বীকার করেছেন।

অভিযুক্ত ট্রাকচালক বগুড়া সদর উপজেলার আশুখোলা গ্রামের মনসুর আলীর ছেলে সোহেল রানা (৩২) ও হেলপার একই জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার জহুরুল শেখের ছেলে ওয়াবাহ শেখ (৩০)। বুধবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনার পর রাতেই নির্যাতনের শিকার ওই তরুণীর বাবা আলতাফ হোসেন খান বাদী হয়ে ট্রাকচালক ও হেলপারকে আসামি করে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তিনি সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ থানার বাসিন্দা। বুধবার সকালে ওই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সিরাজগঞ্জ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়।

এ তথ্য নিশ্চিত করেন বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ওসি মোসাদ্দেক হোসাইন ও কড্ডার মোড়ে দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট আমির হোসেন।

ট্রাফিক সার্জেন্ট আমির হোসেন জানান, উত্তরবঙ্গগামী একটি ট্রাকে চন্দ্রা এলাকা থেকে দুই যুবককে ওঠানোর পর এক ব্যক্তি ওই তরুণীকে ট্রাকে উঠিয়ে দিয়ে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা বাজার এলাকায় নামিয়ে দিতে বলেন। এ সময় তিনি মেয়েটির মানসিক সমস্যা আছে বলে ট্রাকচালককে জানিয়ে দেন। পরে ট্রাকচালক মেয়েটিকে ট্রাকের সামনে কেবিনে বসতে দেন।

ট্রাকটি টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা এলাকায় পৌঁছলে চালক ট্রাকে থাকা দুই যাত্রীকে কোনো কাজ থাকলে সেরে নিতে বলেন। এ সময় ওই যুবকরা নেমে ট্রাকের লুকিং গ্লাসের মাধ্যমে দেখতে পান- ট্রাকচালক ও হেলপার মেয়েটির সঙ্গে খারাপ কিছু করার চেষ্টা করছেন।

তখন তারা এ দৃশ্য ভিডিও করার চেষ্টা করলে ট্রাকচালক তাদের রেখেই ট্রাকটি নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। এ সময় এক যুবক ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে বিষয়টি অবগত করলে সিরাজগঞ্জ পুলিশসহ ট্রাফিক ও হাইওয়ে পুলিশ মহাসড়কে সতর্ক অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড় এলাকা থেকে ট্রাকসহ চালক ও হেলপারকে আটক এবং তরুণীকে উদ্ধার করা হয়।

বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানার ওসি মো. মোসাদ্দেক হোসাইন জানান, প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে যে মেয়েটি ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। তবে মেয়েটি মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন হওয়ায় স্পষ্টভাবে কিছু বলতে পারছেন না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন