নোয়াখালীতে করোনায় একদিনে আরও ৪ জনের মৃত্যু
jugantor
নোয়াখালীতে করোনায় একদিনে আরও ৪ জনের মৃত্যু

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

২৪ জুন ২০২১, ১৩:২৬:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস

নোয়াখালীতে কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গে আরও চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ও সমন্বয়ক নিরুপম দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, এদের মধ্যে করোনায় একজন ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন তিনজন।

মৃতরা হলেন— লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার নুরুল ইসলাম (৫৫), একই জেলার চন্দ্রগঞ্জের আবদুল মতিন (৭০), নোয়াখালীর চাটখিলের পরানপুরের তাহেরা বেগম (৬০) ও সদর উপজেলার বিনোদপুরের আবু তাহের (৬৫)। এর মধ্যে আবু তাহের ছাড়া বাকিরা মারা গেছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে।

জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় আরও ১১৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৮ দশমিক ৬০ শতাংশ, যা আগের দিনের তুলনায় ১০ শতাংশ বেশি।

হাসপাতালে যেসব রোগীকে ভর্তির জন্য আনা হয়, তাদের বেশিরভাগেরই অবস্থা খারাপ থাকে। গত বছর একই সময়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে ১০ শতাংশকে অক্সিজেন সুবিধা দেওয়া লাগত। আর এখন প্রায় ৯০ শতাংশ রোগীকে হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা অক্সিজেন দিয়েও বাঁচানো সম্ভব হচ্ছে না।

চিকিৎসক নিরুপম দাস আরও বলেন, কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে ৫২ জন ভর্তি আছেন। এর মধ্যে ৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত। বাকিরা করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ছয় করোনা রোগী এবং করোনার উপসর্গ নিয়ে পাঁচজন ভর্তি হয়েছেন।

জেলা সিভিল সার্জন চিকিৎসক মাসুম ইফতেখার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার হারও বেশি ছিল।

নোয়াখালীতে করোনায় একদিনে আরও ৪ জনের মৃত্যু

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
২৪ জুন ২০২১, ০১:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
করোনাভাইরাস
ফাইল ছবি

নোয়াখালীতে কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণ ও উপসর্গে আরও চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ও সমন্বয়ক নিরুপম দাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, এদের মধ্যে করোনায় একজন ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন তিনজন।

মৃতরা হলেন— লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার নুরুল ইসলাম (৫৫), একই জেলার চন্দ্রগঞ্জের আবদুল মতিন (৭০), নোয়াখালীর চাটখিলের পরানপুরের তাহেরা বেগম (৬০) ও সদর উপজেলার বিনোদপুরের আবু তাহের (৬৫)। এর মধ্যে আবু তাহের ছাড়া বাকিরা মারা গেছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে।

জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় আরও ১১৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৮ দশমিক ৬০ শতাংশ, যা আগের দিনের তুলনায় ১০ শতাংশ বেশি।

হাসপাতালে যেসব রোগীকে ভর্তির জন্য আনা হয়, তাদের বেশিরভাগেরই অবস্থা খারাপ থাকে। গত বছর একই সময়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে ১০ শতাংশকে অক্সিজেন সুবিধা দেওয়া লাগত। আর এখন প্রায় ৯০ শতাংশ রোগীকে হাই ফ্লো নাজাল ক্যানুলা অক্সিজেন দিয়েও বাঁচানো সম্ভব হচ্ছে না।

চিকিৎসক নিরুপম দাস আরও বলেন, কোভিড-১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে ৫২ জন ভর্তি আছেন। এর মধ্যে ৩৮ জন করোনায় আক্রান্ত। বাকিরা করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ছয় করোনা রোগী এবং করোনার উপসর্গ নিয়ে পাঁচজন ভর্তি হয়েছেন।

জেলা সিভিল সার্জন চিকিৎসক মাসুম ইফতেখার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার হারও বেশি ছিল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন