কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ সদস্য গ্রেফতার
jugantor
কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ সদস্য গ্রেফতার

  ধামরাই (ঢাকা)  

২৫ জুন ২০২১, ১৯:২৯:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-৪) কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ সদস্য গ্রেফতার হয়েছে। সেই সঙ্গে কিশোর গ্যাংয়ের ইসলামপুরের শক্তিশালী ঘাঁটি থেকে মো. খোকন (৩২) নামে অপহৃত এক ভিকটিমকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব সদস্যরা।

আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে র‌্যাব-৪ এর সদস্যরা। বৃহস্পতিবার রাতে কিশোর গ্যাংয়ের এ ঘাঁটিতে অভিযান চালায়।

শুক্রবার অপরাহ্ণে র‌্যাব-৪ এর সাভারের নবীনগর র‌্যাব ক্যাম্পের সিপিসি-২ কোম্পানি কমান্ডার মো.রাকিব মাহমুদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন-কিশোর গ্যাং লিডার মানিকগঞ্জ জেলা সদরের মো.পাপ্পু মোল্লা (২০), মো.নাহিদ (২১), গাইবান্ধা জেলার মো.রিমন (২০) ও মো.রাকিব হাসান (১৯)।

র‌্যাব-৪ সূত্রে জানা যায়, গত রোববার মো.খোকন মিয়া (২১) তার বোনের বাড়ি আশুলিয়ায় বেড়াতে আসে। বুধবার বোনের বাসা থেকে বেড়ানোর উদ্দেশ্যে বের হয়ে আশুলিয়ার গাজীরচট এলাকায় গেলে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা চোখ বেঁধে তাকে অপহরণ করে।পরে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করে ধামরাই পৌর শহরের ইসলামপুর এলাকায় ওই কিশোর গ্যাংয়ের ঘাঁটিতে নিয়ে আসে অপহৃত খোকনকে।

এরপর তাকে বেধড়ক মারধর করে এবং খোকনের চিৎকার তার বোনকে শুনিয়ে তার কাছে ১ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা।

অপহৃত ভিকটিমের বোন খাদিজা আক্তার এ ব্যাপারে র‌্যাবের কাছে অভিযোগ করলে র‌্যাব-৪ এর সিপিসির সদস্যরা আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ধামরাই শহরের ইসলামপুর এলাকায় ওই কিশোর গ্যাংয়ের ঘাঁটিতে অভিযান চালায়।

এরপর কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করে র‌্যাব সদস্যরা। সেই সঙ্গে উদ্ধার করে অপহৃত ভিকটিম খোকনকে। এ সময় জব্দ করা হয় মুক্তিপণ আদায়ের কাজে ব্যবহৃত ৪টি মোবাইল ফোন।

সিপিসি-২ র‌্যাব-৪ এর কোম্পানি কমান্ডার রাকিব মাহমুদ জানান, অপহরণকারীরা একটি সংঘবদ্ধ চক্র। তারা সবাই কিশোর গ্যাং গ্রুপের সদস্য। তারা খোকনকে মারধর করে গুরুতর জখম করেছে। তারা দীর্ঘদিন ধরে ধামরাই, আশুলিয়া ও সাভারের এলাকাসহ আশপাশের এলাকায় বিভিন্ন কৌশলে ডাকাতি, ছিনতাই এবং অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করে আসছিল। আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। গ্রেফতারকৃত কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ব্যাপারে ধামরাই থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ সদস্য গ্রেফতার

 ধামরাই (ঢাকা) 
২৫ জুন ২০২১, ০৭:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার ধামরাইয়ে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-৪) কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ সদস্য গ্রেফতার হয়েছে। সেই সঙ্গে কিশোর গ্যাংয়ের ইসলামপুরের শক্তিশালী ঘাঁটি থেকে মো. খোকন (৩২) নামে অপহৃত এক ভিকটিমকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব সদস্যরা।

আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মোবাইল ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে র‌্যাব-৪ এর সদস্যরা। বৃহস্পতিবার রাতে কিশোর গ্যাংয়ের এ ঘাঁটিতে অভিযান চালায়।

শুক্রবার অপরাহ্ণে র‌্যাব-৪ এর সাভারের নবীনগর র‌্যাব ক্যাম্পের সিপিসি-২ কোম্পানি কমান্ডার মো.রাকিব মাহমুদ এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- কিশোর গ্যাং লিডার মানিকগঞ্জ জেলা সদরের মো.পাপ্পু মোল্লা (২০), মো.নাহিদ (২১), গাইবান্ধা জেলার মো.রিমন (২০) ও মো.রাকিব হাসান (১৯)।

র‌্যাব-৪ সূত্রে জানা যায়, গত রোববার মো.খোকন মিয়া (২১) তার বোনের বাড়ি আশুলিয়ায় বেড়াতে আসে। বুধবার বোনের বাসা থেকে বেড়ানোর উদ্দেশ্যে বের হয়ে আশুলিয়ার গাজীরচট এলাকায় গেলে রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা চোখ বেঁধে তাকে অপহরণ করে।পরে বিভিন্ন জায়গায় ঘোরাঘুরি করে ধামরাই পৌর শহরের ইসলামপুর এলাকায় ওই কিশোর গ্যাংয়ের ঘাঁটিতে নিয়ে আসে অপহৃত খোকনকে। 

এরপর তাকে বেধড়ক মারধর করে এবং খোকনের চিৎকার তার বোনকে শুনিয়ে তার কাছে ১ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা।

অপহৃত ভিকটিমের বোন খাদিজা আক্তার এ ব্যাপারে  র‌্যাবের কাছে অভিযোগ করলে র‌্যাব-৪ এর সিপিসির সদস্যরা আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে ধামরাই শহরের ইসলামপুর এলাকায় ওই কিশোর গ্যাংয়ের ঘাঁটিতে অভিযান চালায়। 

এরপর কিশোর গ্যাংয়ের লিডারসহ ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করে র‌্যাব সদস্যরা। সেই সঙ্গে উদ্ধার করে অপহৃত ভিকটিম খোকনকে। এ সময় জব্দ করা হয় মুক্তিপণ আদায়ের কাজে ব্যবহৃত ৪টি মোবাইল ফোন। 

সিপিসি-২ র‌্যাব-৪ এর কোম্পানি কমান্ডার রাকিব মাহমুদ জানান, অপহরণকারীরা একটি সংঘবদ্ধ চক্র। তারা সবাই কিশোর গ্যাং গ্রুপের সদস্য। তারা খোকনকে মারধর করে গুরুতর জখম করেছে। তারা দীর্ঘদিন ধরে ধামরাই, আশুলিয়া ও সাভারের এলাকাসহ আশপাশের এলাকায় বিভিন্ন কৌশলে ডাকাতি, ছিনতাই এবং অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায় করে আসছিল। আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। গ্রেফতারকৃত কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। এ ব্যাপারে ধামরাই থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন