সন্তানকে বাঁচাতে বাবার আকুতি, সাহায্যের আবেদন
jugantor
সন্তানকে বাঁচাতে বাবার আকুতি, সাহায্যের আবেদন

  অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি  

২৫ জুন ২০২১, ১৯:২৯:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়ার ক্লিনিকপাড়ায় মুসলিম সেলুনে চুল ছাঁটার কাজে নিয়োজিত মো. রফিকুল ইসলাম তার চার বছরের শিশুসন্তান জুবায়ের হোসেনকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্য কামনা করেছেন।

শুক্রবার দুপুরে তিনি কাঁদতে কাঁদতে জানান, তিন ছেলেমেয়ের মধ্যে জুবায়ের সবার ছোট। তার বয়স মাত্র চার বছর। তিন মাস আগে তার ছেলেটি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা চলাকালীন বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানা যায় সে ক্যান্সারে আক্রান্ত।

ডাক্তারদের পরামর্শে তাকে প্রথমে মহাখালী বক্ষব্যাধি হাসপাতালে এবং বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। প্রতিদিন তার ওষুধপত্রসহ থেরাপি বাবদ খরচ পড়ছে প্রায় ৮-১০ হাজার টাকা। এ পর্যন্ত সন্তানের জন্য মানুষের কাছ থেকে সাহায্য তুলে প্রায় আড়াই লাখ টাকা খরচ করেছেন। সামান্য আয়ে সংসার চালানোর পর তার ছেলের চিকিৎসা খরচ কোনোভাবেই জোগাড় করতে পারছেন না তিনি।

তিনি আরও জানান, সব মিলিয়ে তার ছেলের চিকিৎসা দিতে ব্যয় হবে প্রায় ৫-৭ লাখ টাকা। সমাজের বিত্তবান এবং দানশীল ব্যক্তির কাছে তার সন্তানের চিকিৎসার জন্য সাহায্য কামনা করেছেন।

সাহায্য পাঠাতে: পূবালী ব্যাংক, হিসাব নং ৩৬৬৯১০১০৩০৭৬০, নওয়াপাড়া শাখা, অভয়নগর, যশোর।

সন্তানকে বাঁচাতে বাবার আকুতি, সাহায্যের আবেদন

 অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি 
২৫ জুন ২০২১, ০৭:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরের অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়ার ক্লিনিকপাড়ায় মুসলিম সেলুনে চুল ছাঁটার কাজে নিয়োজিত মো. রফিকুল ইসলাম তার চার বছরের শিশুসন্তান জুবায়ের হোসেনকে বাঁচাতে সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্য কামনা করেছেন।

শুক্রবার দুপুরে তিনি কাঁদতে কাঁদতে জানান, তিন ছেলেমেয়ের মধ্যে জুবায়ের সবার ছোট। তার বয়স মাত্র চার বছর। তিন মাস আগে তার ছেলেটি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসা চলাকালীন বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানা যায় সে ক্যান্সারে আক্রান্ত।

ডাক্তারদের পরামর্শে তাকে প্রথমে মহাখালী বক্ষব্যাধি হাসপাতালে এবং বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। প্রতিদিন তার ওষুধপত্রসহ থেরাপি বাবদ খরচ পড়ছে প্রায় ৮-১০ হাজার টাকা। এ পর্যন্ত সন্তানের জন্য মানুষের কাছ থেকে সাহায্য তুলে প্রায় আড়াই লাখ টাকা খরচ করেছেন। সামান্য আয়ে সংসার চালানোর পর তার ছেলের চিকিৎসা খরচ কোনোভাবেই জোগাড় করতে পারছেন না তিনি।

তিনি আরও জানান, সব মিলিয়ে তার ছেলের চিকিৎসা দিতে ব্যয় হবে প্রায় ৫-৭ লাখ টাকা। সমাজের বিত্তবান এবং দানশীল ব্যক্তির কাছে তার সন্তানের চিকিৎসার জন্য সাহায্য কামনা করেছেন।

সাহায্য পাঠাতে: পূবালী ব্যাংক, হিসাব নং ৩৬৬৯১০১০৩০৭৬০, নওয়াপাড়া শাখা, অভয়নগর, যশোর।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন