বড়ভাইকে আবারও ‘হুমকি’ দিলেন কাদের মির্জা
jugantor
বড়ভাইকে আবারও ‘হুমকি’ দিলেন কাদের মির্জা

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

২৬ জুন ২০২১, ১৩:৪২:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

কাদের মির্জা

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় কোনো হত্যাকাণ্ড ঘটলে ওই মামলায় বড়ভাই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ‘১ নম্বর আসামি’ করার হুমকি দিয়েছেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টায় নিজের আইডিতে ওই স্ট্যাটাস দিয়ে মুছে ফেলা হয়। পরে শনিবার সকাল ৮টায় পেজে আবারও সেটি পোস্ট করেন কাদের মির্জা।

স্ট্যাটাসে কাদের মির্জা লিখেন, ‘কোম্পানিগঞ্জে আর যদি একটা মায়ের বুক খালি করা হয় তাহলে এক নম্বরে আসামি করা হবে ওবায়দুল কাদেরকে, দুই নম্বরে আসামি করা হবে উপজেলা চেয়ারম্যান সাহাবদ্দিন, তিন নম্বরে একরাম চৌধুরী, চার নম্বরে নিজাম হাজারী, পাঁচ নম্বরে ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা, ছয় নম্বরে নোয়াখালীর ডিসি, সাত নম্বরে নোয়াখালীর এসপি, আট নম্বরে কোম্পানিগঞ্জের ওসি, নয় নম্বরে কোম্পানিগঞ্জের ওসি তদন্ত, ১০ নাম্বারে কোম্পানীগঞ্জের ইউএনও, এগারো নাম্বারে কোম্পানীগঞ্জের এসিল্যান্ডকে আসামি করা হবে, তারপরে অন্যদেরকে।’
এদিকে মুছে ফেলা রাতের স্ট্যাটাসে ৫১ মিনিটে এক হাজার ৩০০ লাইক, ৪৭৭ কমেন্ট ও ৮৪টি শেয়ার হয়। আর সকালের দেয়া স্ট্যাটাসে এক ঘণ্টায় ১২৫ লাইক সাতটি কমেন্ট ও চারটি শেয়ার হয়।

এর আগে গত ২৪ জুন নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা অচল করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

সেদিন তিনি বলেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অস্ত্রধারীদের আইনের আওতায় না আনলে জনগণকে নিয়ে হরতাল-অবরোধ দিয়ে কোম্পানীগঞ্জ অচল করে দেওয়া হবে। উদ্ভূত পরিস্থিতির জন্য ওবায়দুল কাদের সাহেবকে দায় নিতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বড়ভাইকে আবারও ‘হুমকি’ দিলেন কাদের মির্জা

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
২৬ জুন ২০২১, ০১:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কাদের মির্জা
ফাইল ছবি

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় কোনো হত্যাকাণ্ড ঘটলে ওই মামলায় বড়ভাই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ‘১ নম্বর আসামি’ করার হুমকি দিয়েছেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টায় নিজের আইডিতে ওই স্ট্যাটাস দিয়ে মুছে ফেলা হয়। পরে শনিবার সকাল ৮টায় পেজে আবারও সেটি পোস্ট করেন কাদের মির্জা।

স্ট্যাটাসে কাদের মির্জা লিখেন, ‘কোম্পানিগঞ্জে আর যদি একটা মায়ের বুক খালি করা হয় তাহলে এক নম্বরে আসামি করা হবে ওবায়দুল কাদেরকে, দুই নম্বরে আসামি করা হবে উপজেলা চেয়ারম্যান সাহাবদ্দিন, তিন নম্বরে একরাম চৌধুরী, চার নম্বরে নিজাম হাজারী, পাঁচ নম্বরে ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী ইসরাতুন্নেসা, ছয় নম্বরে নোয়াখালীর ডিসি, সাত নম্বরে নোয়াখালীর এসপি, আট নম্বরে কোম্পানিগঞ্জের ওসি, নয় নম্বরে কোম্পানিগঞ্জের ওসি তদন্ত, ১০ নাম্বারে কোম্পানীগঞ্জের ইউএনও, এগারো নাম্বারে কোম্পানীগঞ্জের এসিল্যান্ডকে আসামি করা হবে, তারপরে অন্যদেরকে।’
এদিকে মুছে ফেলা রাতের স্ট্যাটাসে ৫১ মিনিটে এক হাজার ৩০০ লাইক, ৪৭৭ কমেন্ট ও ৮৪টি শেয়ার হয়। আর সকালের দেয়া স্ট্যাটাসে এক ঘণ্টায় ১২৫ লাইক সাতটি কমেন্ট ও চারটি শেয়ার হয়।

এর আগে গত ২৪ জুন নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা অচল করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

সেদিন তিনি বলেন, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অস্ত্রধারীদের আইনের আওতায় না আনলে জনগণকে নিয়ে হরতাল-অবরোধ দিয়ে কোম্পানীগঞ্জ অচল করে দেওয়া হবে। উদ্ভূত পরিস্থিতির জন্য ওবায়দুল কাদের সাহেবকে দায় নিতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : আবদুল কাদের মির্জা

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন