বন কর্মীদের ধাওয়া, নদীতে ডুবে নারীর মৃত্যু
jugantor
বন কর্মীদের ধাওয়া, নদীতে ডুবে নারীর মৃত্যু

  মহেশখালী (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

২৬ জুন ২০২১, ২২:৪৪:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

কক্সবাজারের মহেশখালীতে লাকড়ি কুড়াতে গিয়ে নদীতে পড়ে এক নারী নিহত হয়েছেন। নিহত খুকি রানি দে (৪০) ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের ঠাকুরতলা এলাকার দিনমজুর বাদল দে’র স্ত্রী।

শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, রানি দে বন বিভাগের কর্মীদের ধাওয়ায় নদীতে পেড়ে যান। এ ঘটনায় বন বিভাগের তিন কর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের ভাতিজা সুলাল দে জানান, প্রতিদিনের মতো মহেশখালীর আদিনাথ জেটির কাছে নদীপাড়ের প্যারাবন এলাকায় স্থানীয় ৬-৭ জন নারী লাকড়ি কুড়াতে যান। এ সময় আধা কিলোমিটার দূরে অবস্থিত বন বিভাগের কার্যালয় থেকে একদল বনকর্মী এসে তাদের ধাওয়া দেয়। ধাওয়া খেয়ে ৪-৫ নারী পালাতে সক্ষম হলেও খুকি রানি দে ও শিব্র প্রকাশ দে (৩৪) নামের দুই নারী নদীতে পড়ে যান। এ সময় নদীতে পূর্ণজোয়ার ছিল। পরে খবর পেয়ে ঘণ্টাখানেক পর মুমূর্ষু অবস্থায় দু'জনকে উদ্ধার করা হয়। কিন্তু উদ্ধারের পর খুকি রানি মৃত্যুবরণ করেন।

মুমূর্ষু অবস্থায় শিব্র প্রকাশ দে'কে মহেশখালী হাসপাতালে নেওয়া হয়। কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে কক্সবাজার হাসপাতালে পাঠানো হয়। পুলিশ নিহত খুকির মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

ঘটনা নিশ্চিত করে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবদুল হাই বলেন, পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কয়েকজন বনকর্মীকে থানায় আনা হয়েছে।

নিহতের স্বজন রত্না দে দাবি করেন, প্যারাবনের অভ্যন্তরে লাকড়ি কুড়াতে গেলে বন বিভাগের সদস্যরা তাদের কাছ থেকে প্রতিদিন জনপ্রতি ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা নিত। চাঁদার টাকা না দিলে ধাওয়া দিয়ে মারধর করে লাকড়ি কেড়ে নিত তারা।

ডিউটি অফিসারের কাছ থেকে ঘটনা শুনেছেন উল্লেখ করে বন বিভাগের সংশ্লিষ্ট রেঞ্জ (গোরকঘাটা) কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বলেন, জোয়ারের সময় দুই নারী প্যারাবাগানে শাড়ি পেঁচিয়ে ডুবে যায়। তাদের একজন মারা গেছেন, অন্যজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই এ ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেন তিনি।

বন কর্মীদের ধাওয়া, নদীতে ডুবে নারীর মৃত্যু

 মহেশখালী (কক্সবাজার) প্রতিনিধি  
২৬ জুন ২০২১, ১০:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কক্সবাজারের মহেশখালীতে লাকড়ি কুড়াতে গিয়ে নদীতে পড়ে এক নারী নিহত হয়েছেন। নিহত খুকি রানি দে (৪০) ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের ঠাকুরতলা এলাকার দিনমজুর বাদল দে’র স্ত্রী।

শনিবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের স্বজনদের অভিযোগ, রানি দে বন বিভাগের কর্মীদের ধাওয়ায় নদীতে পেড়ে যান। এ ঘটনায় বন বিভাগের তিন কর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হয়েছে। 

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের ভাতিজা সুলাল দে জানান, প্রতিদিনের মতো মহেশখালীর আদিনাথ জেটির কাছে নদীপাড়ের প্যারাবন এলাকায় স্থানীয় ৬-৭ জন নারী লাকড়ি কুড়াতে যান। এ সময় আধা কিলোমিটার দূরে অবস্থিত বন বিভাগের কার্যালয় থেকে একদল বনকর্মী এসে তাদের ধাওয়া দেয়। ধাওয়া খেয়ে ৪-৫ নারী পালাতে সক্ষম হলেও খুকি রানি দে ও শিব্র প্রকাশ দে (৩৪) নামের দুই নারী নদীতে পড়ে যান। এ সময় নদীতে পূর্ণজোয়ার ছিল। পরে খবর পেয়ে ঘণ্টাখানেক পর মুমূর্ষু অবস্থায় দু'জনকে উদ্ধার করা হয়। কিন্তু উদ্ধারের পর খুকি রানি মৃত্যুবরণ করেন। 
 
মুমূর্ষু অবস্থায় শিব্র প্রকাশ দে'কে মহেশখালী হাসপাতালে নেওয়া হয়। কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে কক্সবাজার হাসপাতালে পাঠানো হয়। পুলিশ নিহত খুকির মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

ঘটনা নিশ্চিত করে মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবদুল হাই বলেন, পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কয়েকজন বনকর্মীকে থানায় আনা হয়েছে। 
 
নিহতের স্বজন রত্না দে দাবি করেন, প্যারাবনের অভ্যন্তরে লাকড়ি কুড়াতে গেলে বন বিভাগের সদস্যরা তাদের কাছ থেকে প্রতিদিন জনপ্রতি ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত চাঁদা নিত। চাঁদার টাকা না দিলে ধাওয়া দিয়ে মারধর করে লাকড়ি কেড়ে নিত তারা।

ডিউটি অফিসারের কাছ থেকে ঘটনা শুনেছেন উল্লেখ করে বন বিভাগের সংশ্লিষ্ট রেঞ্জ (গোরকঘাটা) কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বলেন, জোয়ারের সময় দুই নারী প্যারাবাগানে শাড়ি পেঁচিয়ে ডুবে যায়। তাদের একজন মারা গেছেন, অন্যজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই এ ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন