হাবিপ্রবির নতুন ভিসি ড. এম কামরুজ্জামান
jugantor
হাবিপ্রবির নতুন ভিসি ড. এম কামরুজ্জামান

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

০১ জুলাই ২০২১, ২১:৫০:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ পাঁচ মাস অতিবাহিত হওয়ার অবশেষে ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) নিয়োগ হলো দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি)। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সপ্তম ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান।

বুধবার রাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব মো. নূর-ই-আলম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তার নিয়োগের তথ্য জানানো হয়।

প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান চাঁদপুর জেলার সদর উপজেলার কোড়ালিয়া রোডে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম এ কে এম জহিরুল হক এবং মাতার নাম নার্গিস বেগম। তার সহধর্মিণী আমেনা খানম এবং তিন কন্যা হলেন নুজহাত তাসফিয়া অর্পা, ফাবিহা তাসফিয়া অথৈ এবং ওয়াসিফা তাসফিয়া অর্ষা।

এদিকে নিয়োগ পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় ঢাকার ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন হাবিপ্রবির নবনিযুক্ত ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ষষ্ঠ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু আবুল কাশেমের চার বছরের মেয়াদকাল শেষ হয় চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি। কিন্তু নিয়ম বহির্ভূতভাবে নিয়োগের জন্য কতিপয় শিক্ষক ও ছাত্র চাপ দিলে তার আগেই রাতের অন্ধকারে ক্যাম্পাস ত্যাগ করে চলে যান প্রফেসর ড. মু আবুল কাশেম।

এ সময় তিনি লিখিতভাবে রুটিন দায়িত্ব দিয়ে যান হাবিপ্রবির ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদারকে। পরবর্তীতে ভাইস চ্যান্সেলর নিয়োগ না হওয়ায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকেও ড. বিধান চন্দ্র হালদারকে ভাইস চ্যান্সেলরের রুটিন দায়িত্ব দেয়া হয়। এর পর দীর্ঘ ৫ মাস পুর্ণাঙ্গ ভাইস চ্যান্সেলর ছিল না এই বিশ্ববিদ্যালয়ে।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালে ৮ জুলাই বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে ৩৫ নম্বর আইন হিসেবে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাশ হয়। এরপর ২০০২ সালের ৮ এপ্রিল গেজেট প্রজ্ঞাপন জারি হওয়ার পর সেদিনই প্রথম ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক ড. মোশাররফ হোসেন মিঞাকে নিয়োগ দান করা হয়।

দ্বিতীয় ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে ২০০৬ সালের ৩১ আগস্ট অধ্যাপক ড. মো মোতাহার হোসেন মণ্ডল, এরপর তৃতীয় ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক মো. রুহুল আমীন, চতুর্থ ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক ড. এম. আফজাল হোসেন, পঞ্চম ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক মো. রুহুল আমীন এবং ষষ্ঠ ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে গত ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি চার বছরের জন্য নিয়োগ পান বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাশেম। তার মেয়াদকাল গত ১ ফেব্রুয়ারি শেষ হয়।

হাবিপ্রবির নতুন ভিসি ড. এম কামরুজ্জামান

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
০১ জুলাই ২০২১, ০৯:৫০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ পাঁচ মাস অতিবাহিত হওয়ার অবশেষে ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) নিয়োগ হলো দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (হাবিপ্রবি)। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সপ্তম ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অর্থনীতি বিভাগের প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান।

বুধবার রাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব মো. নূর-ই-আলম স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তার নিয়োগের তথ্য জানানো হয়।

প্রফেসর ড. এম কামরুজ্জামান চাঁদপুর জেলার সদর উপজেলার কোড়ালিয়া রোডে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম এ কে এম জহিরুল হক এবং মাতার নাম নার্গিস বেগম। তার সহধর্মিণী আমেনা খানম এবং তিন কন্যা হলেন নুজহাত তাসফিয়া অর্পা, ফাবিহা তাসফিয়া অথৈ এবং ওয়াসিফা তাসফিয়া অর্ষা।

এদিকে নিয়োগ পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় ঢাকার ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের  প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন হাবিপ্রবির নবনিযুক্ত ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ষষ্ঠ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু আবুল কাশেমের চার বছরের মেয়াদকাল শেষ হয় চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি। কিন্তু নিয়ম বহির্ভূতভাবে নিয়োগের জন্য কতিপয় শিক্ষক ও ছাত্র চাপ দিলে তার আগেই রাতের অন্ধকারে ক্যাম্পাস ত্যাগ করে চলে যান প্রফেসর ড. মু আবুল কাশেম।

এ সময় তিনি লিখিতভাবে রুটিন দায়িত্ব দিয়ে যান হাবিপ্রবির ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদারকে। পরবর্তীতে ভাইস চ্যান্সেলর নিয়োগ না হওয়ায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকেও ড. বিধান চন্দ্র হালদারকে ভাইস চ্যান্সেলরের রুটিন দায়িত্ব দেয়া হয়। এর পর দীর্ঘ ৫ মাস পুর্ণাঙ্গ ভাইস চ্যান্সেলর ছিল না এই বিশ্ববিদ্যালয়ে।

উল্লেখ্য, ২০০১ সালে ৮ জুলাই বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে ৩৫ নম্বর আইন হিসেবে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন পাশ হয়। এরপর ২০০২ সালের ৮ এপ্রিল গেজেট প্রজ্ঞাপন জারি হওয়ার পর সেদিনই প্রথম ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক ড. মোশাররফ হোসেন মিঞাকে নিয়োগ দান করা হয়।

দ্বিতীয় ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে ২০০৬ সালের ৩১ আগস্ট অধ্যাপক ড. মো মোতাহার হোসেন মণ্ডল, এরপর তৃতীয় ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক মো. রুহুল আমীন, চতুর্থ ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক ড. এম. আফজাল হোসেন, পঞ্চম ভাইস চ্যান্সেলর হিসেবে অধ্যাপক মো. রুহুল আমীন এবং ষষ্ঠ ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে গত ২০১৭ সালের ২ ফেব্রুয়ারি চার বছরের জন্য নিয়োগ পান বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাশেম। তার মেয়াদকাল গত ১ ফেব্রুয়ারি শেষ হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন