চুনারুঘাটে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে
jugantor
চুনারুঘাটে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে

  চুনারঘাট প্রতিনিধি  

০২ জুলাই ২০২১, ০২:৪৯:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

চুনারুঘাটে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে

হবিগঞ্জে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। চুনারুঘাটের বাল্লা পয়েন্টে বৃহস্পতিবার বিকালে পানি বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, বুধবার ভোররাত থেকে ভারী বর্ষণের কারণে খোয়াইয়ের পানি বাড়তে থাকে। বৃহস্পতিবার রাতে বাল্লা পয়েন্টে নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে উঠে যায়।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শাহনেওয়াজ তালুকদার জানান, ভারী বর্ষণের কারণে নদীর পানি বাড়ছে। বাল্লা পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার উপরে থাকলেও শহরের সবগুলো পয়েন্টেই পানি বিপৎসীমার নিচে রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘রাতে যদি বৃষ্টিপাত হয় তাহলে পানি আরও বাড়বে। তখন শহরের বিভিন্ন অংশে পানি বিপদসীমার উপরে চলে যেতে পারে। তবে নদীর বাঁধ শক্তিশালী হওয়ায় আতংকের কারণ নেই। এরপরও আমরা সতর্ক রয়েছি।’রাতে বৃষ্টি হলে বাল্লা পয়েন্টে বেশ কিছু গ্রাম তলিয়ে যেতে পারে বলে জানান তিনি।

নদীর উৎপত্তিস্থল ভারতের ত্রিপুরা থেকে পানি আসছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সেই বিষয়টি এখনও আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি।’

সিলেট আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র আবহাওয়া কর্মকর্তা সাঈদ আহমেদ চৌধুরী জানান, বুধবার ভোর থেকে হবিগঞ্জসহ সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। আগামী তিনদিন এই বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। তবে সিলেট বিভাগের অন্যসব জেলার থেকে হবিগঞ্জে বৃষ্টি অনেক কম হবে।

তিনি বলেন, ‘আজ ২ জুলাই পর্যন্ত হবিগঞ্জে কিছুটা ভারী বর্ষণ হতে পারে। কিন্তু এরপরই আবার বৃষ্টি কমে যাবে।’

চুনারুঘাটে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে

 চুনারঘাট প্রতিনিধি 
০২ জুলাই ২০২১, ০২:৪৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চুনারুঘাটে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে
ফাইল ছবি

হবিগঞ্জে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। চুনারুঘাটের বাল্লা পয়েন্টে বৃহস্পতিবার বিকালে পানি বিপদসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, বুধবার ভোররাত থেকে ভারী বর্ষণের কারণে খোয়াইয়ের পানি বাড়তে থাকে। বৃহস্পতিবার রাতে বাল্লা পয়েন্টে নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে উঠে যায়।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শাহনেওয়াজ তালুকদার জানান, ভারী বর্ষণের কারণে নদীর পানি বাড়ছে। বাল্লা পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার উপরে থাকলেও শহরের সবগুলো পয়েন্টেই পানি বিপৎসীমার নিচে রয়েছে। 

তিনি বলেন, ‘রাতে যদি বৃষ্টিপাত হয় তাহলে পানি আরও বাড়বে। তখন শহরের বিভিন্ন অংশে পানি বিপদসীমার উপরে চলে যেতে পারে। তবে নদীর বাঁধ শক্তিশালী হওয়ায় আতংকের কারণ নেই। এরপরও আমরা সতর্ক রয়েছি।’রাতে বৃষ্টি হলে বাল্লা পয়েন্টে বেশ কিছু গ্রাম তলিয়ে যেতে পারে বলে জানান তিনি।

নদীর উৎপত্তিস্থল ভারতের ত্রিপুরা থেকে পানি আসছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সেই বিষয়টি এখনও আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি।’

সিলেট আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র আবহাওয়া কর্মকর্তা সাঈদ আহমেদ চৌধুরী জানান, বুধবার ভোর থেকে হবিগঞ্জসহ সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন এলাকায় বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে। আগামী তিনদিন এই বৃষ্টি অব্যাহত থাকতে পারে। তবে সিলেট বিভাগের অন্যসব জেলার থেকে হবিগঞ্জে বৃষ্টি অনেক কম হবে।

তিনি বলেন, ‘আজ ২ জুলাই পর্যন্ত হবিগঞ্জে কিছুটা ভারী বর্ষণ হতে পারে। কিন্তু এরপরই আবার বৃষ্টি কমে যাবে।’
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন