ব্রাহ্মণপাড়ায় শনাক্তের হার ৫৫ শতাংশ
jugantor
ব্রাহ্মণপাড়ায় শনাক্তের হার ৫৫ শতাংশ

  ব্রাক্ষণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি  

০৪ জুলাই ২০২১, ১৯:৪৫:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আন্তঃবিভাগে ভর্তি রোগীসহ কোভিড-১৯ এর ৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল করোনা পজিটিভ আসে। এতে শনাক্তের হার ৫৫ শতাংশ।

ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, রোববার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোভিড-১৯ এর ৯ জনের নমুনা সংগ্রহের পর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আন্তঃবিভাগে ভর্তি রোগীসহ ৫ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসে। এদের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত একজন মিডওয়াইফ রয়েছে।

আক্রান্তরা হলেন- উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের চান্দলা গ্রামের বশির আহমেদ (৪০), সবুজপাড়া গ্রামের মিজান (৫৪), সাহেবাবাদ ইউনিয়নের সাহেবাবাদ গ্রামের মিলন আক্তার (৫৫), ব্রাহ্মণপাড়া সদরের বিজিত দাস (২৫) ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মিডওয়াইফ জান্নাতুল ফেরদৌস (২৪)।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হাসনাত মো. মহিউদ্দিন মুবিন বলেন, করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে সমাজের সর্বস্তরে আরও বেশি সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। অবশ্যই মাস্ক পরিধানকে বাধ্যতামূলক করতে হবে। করোনা প্রতিরোধে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের পাশাপাশি সামাজিক সংগঠন এবং সমাজের সচেতন মহলকে এগিয়ে আসতে হবে। অবশ্যই সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এ সময় অত্যন্ত জরুরি।

ব্রাহ্মণপাড়ায় শনাক্তের হার ৫৫ শতাংশ

 ব্রাক্ষণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি 
০৪ জুলাই ২০২১, ০৭:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আন্তঃবিভাগে ভর্তি রোগীসহ কোভিড-১৯ এর ৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল করোনা পজিটিভ আসে। এতে শনাক্তের হার ৫৫ শতাংশ।

ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, রোববার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কোভিড-১৯ এর ৯ জনের নমুনা সংগ্রহের পর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আন্তঃবিভাগে ভর্তি রোগীসহ ৫ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ আসে। এদের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত একজন মিডওয়াইফ রয়েছে।

আক্রান্তরা হলেন- উপজেলার চান্দলা ইউনিয়নের চান্দলা গ্রামের বশির আহমেদ (৪০), সবুজপাড়া গ্রামের মিজান (৫৪), সাহেবাবাদ ইউনিয়নের সাহেবাবাদ গ্রামের মিলন আক্তার (৫৫), ব্রাহ্মণপাড়া সদরের বিজিত দাস (২৫) ও ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মিডওয়াইফ জান্নাতুল ফেরদৌস (২৪)।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হাসনাত মো. মহিউদ্দিন মুবিন বলেন, করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে সমাজের সর্বস্তরে আরও বেশি সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। অবশ্যই মাস্ক পরিধানকে বাধ্যতামূলক করতে হবে। করোনা প্রতিরোধে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের পাশাপাশি সামাজিক সংগঠন এবং সমাজের সচেতন মহলকে এগিয়ে আসতে হবে। অবশ্যই সরকার ঘোষিত বিধিনিষেধ ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এ সময় অত্যন্ত জরুরি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২৬ নভেম্বর, ২০২১
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন