টানা বর্ষণে তলিয়ে গেছে রোহিঙ্গাদের অর্ধশতাধিক ঘর
jugantor
টানা বর্ষণে তলিয়ে গেছে রোহিঙ্গাদের অর্ধশতাধিক ঘর

  কক্সবাজার প্রতিনিধি  

০৪ জুলাই ২০২১, ২২:৪২:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

টানা বর্ষণের কারণে টেকনাফ উনছিপ্রাং ও উখিয়ার থ্যাংখালী রোহিঙ্গা শিবিরের অর্ধশতাধিক ঘর তলিয়ে গেছে। এছাড়া মাটি সরে গিয়ে রোহিঙ্গা শিবিরের কাঁটাতারের কয়েকটি সীমানা প্রাচীরের পিলার ধসে পড়েছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আইনশৃঙ্খলা দায়িত্বে থাকা আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন এপিবিএনের কর্মকর্তারা জানান, টানা বৃষ্টির কারণে টেকনাফের উনছিপ্রাং রোহিঙ্গা শিবিরের এ ব্লকের প্রায় ১৫ থেকে ২০টি ঘর পানিতে তলিয়ে গেছে। প্লাবিত হওয়ায় এসব ঘরে রোহিঙ্গারা থাকতে পারছেন না। এছাড়া উখিয়ার থ্যাংখালী ক্যাম্পে আরও অন্তত ৩০টি বসতি প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ১৬ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি তারিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের কাছে খবর আছে উনছিপ্রাং ক্যাম্পে ১৫ থেকে ২০টির মতো রোহিঙ্গা বসতি প্লাবিত হয়েছে। তাদের অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার জন্য ক্যাম্প ইনচার্জসহ এপিবিএন কাজ করছে।

জানতে চাইলে অতিরিক্ত ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার শামসৌদ্দজা নয়ন বলেন, যেসব রোহিঙ্গাদের ঘর প্লাবিত হয়েছে তাদের যেন কোনো অসুবিধে না হয় সেজন্য ক্যাম্প ইনচার্জদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

টানা বর্ষণে তলিয়ে গেছে রোহিঙ্গাদের অর্ধশতাধিক ঘর

 কক্সবাজার প্রতিনিধি 
০৪ জুলাই ২০২১, ১০:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টানা বর্ষণের কারণে টেকনাফ উনছিপ্রাং ও উখিয়ার থ্যাংখালী রোহিঙ্গা শিবিরের অর্ধশতাধিক ঘর তলিয়ে গেছে। এছাড়া মাটি সরে গিয়ে রোহিঙ্গা শিবিরের কাঁটাতারের কয়েকটি সীমানা প্রাচীরের পিলার ধসে পড়েছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আইনশৃঙ্খলা দায়িত্বে থাকা আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন এপিবিএনের কর্মকর্তারা জানান, টানা বৃষ্টির কারণে টেকনাফের উনছিপ্রাং রোহিঙ্গা শিবিরের এ ব্লকের প্রায় ১৫ থেকে ২০টি ঘর পানিতে তলিয়ে গেছে। প্লাবিত হওয়ায় এসব ঘরে রোহিঙ্গারা থাকতে পারছেন না। এছাড়া উখিয়ার থ্যাংখালী ক্যাম্পে আরও অন্তত ৩০টি বসতি প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ১৬ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি তারিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের কাছে খবর আছে উনছিপ্রাং ক্যাম্পে ১৫ থেকে ২০টির মতো রোহিঙ্গা বসতি প্লাবিত হয়েছে। তাদের অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার জন্য ক্যাম্প ইনচার্জসহ এপিবিএন কাজ করছে।

জানতে চাইলে অতিরিক্ত ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার শামসৌদ্দজা নয়ন বলেন, যেসব রোহিঙ্গাদের ঘর প্লাবিত হয়েছে তাদের যেন কোনো অসুবিধে না হয় সেজন্য ক্যাম্প ইনচার্জদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন