বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে এক সন্তানের জননীর অনশন
jugantor
বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে এক সন্তানের জননীর অনশন

  শ্রীবরদী(শেরপুর) প্রতিনিধি  

০৬ জুলাই ২০২১, ২২:৫৬:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

শ্রীবরদীতে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করছেন এক নারী। সোমবার সন্ধ্যা থেকে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন শুরু করেছেনতিনি। সংবাদ পেয়ে প্রেমিক জয়নাল আবেদীন (৩০) বাড়ি থেকে পালিয়েছেন।

জয়নাল আবেদীন উপজেলার গড়জরিপা ইউনিয়নের বন্ধঘোরজান গ্রামের হাজী হাশেম আলীর ছেলে। অন্যদিকে অনশনরত নারী বন্ধঘোরজান গ্রামের মনিরুজ্জামান মনিরের সাবেক স্ত্রী। তিনি একসন্তানের জননী।

ওই নারী সাংবাদিকদের বলেন, সংসার থাকা অবস্থায় জয়নাল আবেদীনপ্রলোভন দেখিয়ে আমার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক করে। জয়নাল তার সঙ্গে স্বামী-স্ত্রীর ন্যায় সম্পর্ক স্থাপন করে জানিয়ে তিনি বলেন, শেরপুর, জামালপুরসহ বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে সে আমার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে। স্বামীর কাছ থেকে চলে আসলে বিয়ে করবে বলে আশ্বাস দেয়। আমি তার কথা বিশ্বাস করে আমার স্বামীর কাছ থেকে চলে আসি। এখনসে আমাকে বিয়ে না করে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে।

এই নারীর সাবেক স্বামী মনিরুজ্জামান মনির বলেন, জয়নাল আবেদীন ও আমার সাবেক স্ত্রীর প্রেমের সম্পর্ক জানতে পেরে আমি দেড় মাস পূর্বে তাকে তালাক দেই। জয়নাল আবেদীন আমার সাবেক স্ত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সম্পর্ক করে।

প্রেমিক জয়নাল আবেদীনের মা জবেদা বেগম বলেন, আমার ছেলে কাজটি খুবই খারাপ করেছে। আমরা বিষয়টি রাতের মধ্যেই মীমাংসার চেষ্টা করব।

এ ব্যাপারে প্রেমিক জয়নাল আবেদীনের বক্তব্য জানতেতার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়।

শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, এ বিষয়ে থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে এক সন্তানের জননীর অনশন

 শ্রীবরদী(শেরপুর) প্রতিনিধি 
০৬ জুলাই ২০২১, ১০:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শ্রীবরদীতে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করছেন এক নারী। সোমবার সন্ধ্যা থেকে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন শুরু করেছেন তিনি। সংবাদ পেয়ে প্রেমিক জয়নাল আবেদীন (৩০) বাড়ি থেকে পালিয়েছেন। 

জয়নাল আবেদীন উপজেলার গড়জরিপা ইউনিয়নের বন্ধঘোরজান গ্রামের হাজী হাশেম আলীর ছেলে। অন্যদিকে অনশনরত নারী বন্ধঘোরজান গ্রামের মনিরুজ্জামান মনিরের সাবেক স্ত্রী। তিনি এক সন্তানের জননী।  

ওই নারী সাংবাদিকদের বলেন, সংসার থাকা অবস্থায় জয়নাল আবেদীন প্রলোভন দেখিয়ে আমার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক করে। জয়নাল তার সঙ্গে স্বামী-স্ত্রীর ন্যায় সম্পর্ক স্থাপন করে জানিয়ে তিনি বলেন, শেরপুর, জামালপুরসহ বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে সে আমার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করে। স্বামীর কাছ থেকে চলে আসলে বিয়ে করবে বলে আশ্বাস দেয়। আমি তার কথা বিশ্বাস করে আমার স্বামীর কাছ থেকে চলে আসি। এখন সে আমাকে বিয়ে না করে বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে। 

এই নারীর সাবেক স্বামী মনিরুজ্জামান মনির বলেন, জয়নাল আবেদীন ও আমার সাবেক স্ত্রীর প্রেমের সম্পর্ক জানতে পেরে আমি দেড় মাস পূর্বে তাকে তালাক দেই। জয়নাল আবেদীন আমার সাবেক স্ত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সম্পর্ক করে।

প্রেমিক জয়নাল আবেদীনের মা জবেদা বেগম বলেন, আমার ছেলে কাজটি খুবই খারাপ করেছে। আমরা বিষয়টি রাতের মধ্যেই মীমাংসার চেষ্টা করব।

এ ব্যাপারে প্রেমিক জয়নাল আবেদীনের বক্তব্য জানতে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। 

শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বলেন, এ বিষয়ে  থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন