‘চেয়ারম্যানের’ সঙ্গে খাসি ফ্রি
jugantor
‘চেয়ারম্যানের’ সঙ্গে খাসি ফ্রি

  ইকবাল হোসেন সুমন, বুড়িচং (কুমিল্লা)  

০৮ জুলাই ২০২১, ২৩:১১:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

এবার কোরবানির ঈদে বিক্রির জন্য চেয়ারম্যান নামে গরুটি প্রস্তুত করা হয়েছে। এ গরুটির সঙ্গে একটি খাসি ফ্রি দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

শান্ত প্রকৃতি ও লাল-সাদা রঙের হওয়ায় গরুটি শখ করে নাম রাখা হয়েছে ‘চেয়ারম্যান’। চেয়ারম্যান লম্বায় পাঁচ ফুট ৫ ইঞ্চি। ওজন প্রায় ১৬ মণ। বয়স প্রায় ৩ বছর।

তাকে লালন-পালন করা হচ্ছে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের বুড়বুড়িয়া মধ্যমপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংলগ্নে সৌদি প্রবাসী শাহআলমের বাড়িতে। শাহআলমের স্ত্রী মোসা. পারুল আক্তার শখ করে গরুটির বয়স যখন এক বছর তখন পাশের এলাকার এক কৃষকের কাছ থেকে ক্রয় করেছিলেন।

এরপর থেকে তাকে কোনো ক্ষতিকর ওষুধ ছাড়াই দেশীয় খাবার খাইয়ে লালন-পালন করা হচ্ছে। তাকে শখ করে নাম রাখেন চেয়ারম্যান। এই চেয়ারম্যান উপজেলার সবচেয়ে বড় গরু বলে তিনি দাবি করেন।

দেখতে সুন্দর এবং বেশি বড় হওয়ায় আগ্রহ নিয়ে তাকে দেখতে বিভিন্ন এলাকার মানুষ এসে ভিড় করছেন। এবার কোরবানি ঈদে চেয়ারম্যানকে বিক্রি করা হবে। ৬ লাখ টাকা দামে বিক্রি করার আগ্রহ প্রকাশ করেন মোসা. পারুল আক্তার। তার সঙ্গে একটি খাসিও ফ্রি দেবেন বলে তিনি জানান।

পারুল আক্তার বলেন, গরুটি দেখতে লাল ও হালকা সাদার মধ্যে। চেয়ারম্যান খুবই শান্ত প্রকৃতির। শখ করে দুই বছর আগে দুইটি গরু কিনেছি এবং লালন-পালন করে বড় করেছি। এই ঈদে শুধু চেয়ারম্যানকে বিক্রি করব। একটি খাসিও নিজেই লালন-পালন করেছি। তাই শখের চেয়ারম্যানের সঙ্গে ১৫ হাজার টাকার মূল্যের খাসিটি উপহার দিব।

তিনি বলেন, চেয়ারম্যানের ওজন হয়েছে প্রায় ১৬ মণ। দাম চাচ্ছি ৬ লাখ টাকা, তবে আলোচনাসাপেক্ষে কম টাকায় বিক্রি করতে পারি। আমার অবর্তমানে চেয়ারম্যানকে দেখাশোনা করার জন্য একজন কর্মচারীও রয়েছেন।

‘চেয়ারম্যানের’ সঙ্গে খাসি ফ্রি

 ইকবাল হোসেন সুমন, বুড়িচং (কুমিল্লা) 
০৮ জুলাই ২০২১, ১১:১১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

এবার কোরবানির ঈদে বিক্রির জন্য চেয়ারম্যান নামে গরুটি প্রস্তুত করা হয়েছে। এ গরুটির সঙ্গে একটি খাসি ফ্রি দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

শান্ত প্রকৃতি ও লাল-সাদা রঙের হওয়ায় গরুটি শখ করে নাম রাখা হয়েছে ‘চেয়ারম্যান’। চেয়ারম্যান লম্বায় পাঁচ ফুট ৫ ইঞ্চি। ওজন প্রায় ১৬ মণ। বয়স প্রায় ৩ বছর।

তাকে লালন-পালন করা হচ্ছে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের বুড়বুড়িয়া মধ্যমপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংলগ্নে সৌদি প্রবাসী শাহআলমের বাড়িতে। শাহআলমের স্ত্রী মোসা. পারুল আক্তার শখ করে গরুটির বয়স যখন এক বছর তখন পাশের এলাকার এক কৃষকের কাছ থেকে ক্রয় করেছিলেন।

এরপর থেকে তাকে কোনো ক্ষতিকর ওষুধ ছাড়াই দেশীয় খাবার খাইয়ে লালন-পালন করা হচ্ছে। তাকে শখ করে নাম রাখেন চেয়ারম্যান। এই চেয়ারম্যান উপজেলার সবচেয়ে বড় গরু বলে তিনি দাবি করেন।

দেখতে সুন্দর এবং বেশি বড় হওয়ায় আগ্রহ নিয়ে তাকে দেখতে বিভিন্ন এলাকার মানুষ এসে ভিড় করছেন। এবার কোরবানি ঈদে চেয়ারম্যানকে বিক্রি করা হবে। ৬ লাখ টাকা দামে বিক্রি করার আগ্রহ প্রকাশ করেন মোসা. পারুল আক্তার। তার সঙ্গে একটি খাসিও ফ্রি দেবেন বলে তিনি জানান।

পারুল আক্তার বলেন, গরুটি দেখতে লাল ও হালকা সাদার মধ্যে। চেয়ারম্যান খুবই শান্ত প্রকৃতির। শখ করে দুই বছর আগে দুইটি গরু কিনেছি এবং লালন-পালন করে বড় করেছি। এই ঈদে শুধু চেয়ারম্যানকে বিক্রি করব। একটি খাসিও নিজেই লালন-পালন করেছি। তাই শখের চেয়ারম্যানের সঙ্গে ১৫ হাজার টাকার মূল্যের খাসিটি উপহার দিব।

তিনি বলেন, চেয়ারম্যানের ওজন হয়েছে প্রায় ১৬ মণ। দাম চাচ্ছি ৬ লাখ টাকা, তবে আলোচনাসাপেক্ষে কম টাকায় বিক্রি করতে পারি। আমার অবর্তমানে চেয়ারম্যানকে দেখাশোনা করার জন্য একজন কর্মচারীও রয়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন