ধার-দেনা করে অগ্নিদগ্ধদের খুঁজতে এসে ছিনতাইকারীর কবলে স্বজনরা
jugantor
ধার-দেনা করে অগ্নিদগ্ধদের খুঁজতে এসে ছিনতাইকারীর কবলে স্বজনরা

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

১০ জুলাই ২০২১, ১৯:২৭:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ট্র্যাজেডিতে কারও স্ত্রী, কারও প্রিয় সন্তান অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিখোঁজ রয়েছেন। স্বজন হারানোর এমন খবরে ধার-দেনা করে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার জয়কা ইউনিয়নের কদমতলী ও মথুরাপাড়া গ্রামের এসব পরিবারের একদল লোক রূপগঞ্জে ছুটে যান। এই এলাকার ৭ নারী-পুরুষ শ্রমিক অগ্নিকাণ্ডের পর থেকেই নিখোঁজ আছেন।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই ১৪ জনের একটি দল পিকআপ ভ্যান ভাড়া করে স্বজনদের মরদেহের সন্ধানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে যান। গভীর রাত পর্যন্ত অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাদের স্বজন হিসেবে কাউকে শনাক্ত করতে না পেরে আবারও সেই পিকআপ ভ্যানযোগে রূপগঞ্জ ফিরছিলেন।

রাত আড়াইটার দিকে তাদের বহনকারী গাড়িটি যাত্রামোড়া এলাকা অতিক্রমকালে দুই দিক থেকে দুটি প্রাইভেটকার এসে গতিরোধ করে অস্ত্রের মুখে থামিয়ে পিকআপে থাকা ১৪ জনের কাছ থেকে নগদ ৬৫ হাজার টাকা ও ৯টি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়।

এদের মধ্যে ছিলেন ছয় স্বজন হারানো কদমতলী গ্রামের আবু বাক্কার ও স্ত্রী হারানো খোকনও। আবু বাক্কার যুগান্তরকে জানান, প্রিয় স্বজনদের হারিয়ে আমরা যখন দিশেহারা-তখন এমন ছিনতাইয়ের ঘটনা আমাদের আরও অচল করে দিল।

তার দাবি, লোকজনের কাছ থেকে ধার-দেনা করে টাকা নিয়ে ঢাকায় এসেছিলেন তারা। এখন টাকা ও মোবাইল সেট হারিয়ে তারা নিজেরাও অসহায় হয়ে পথে পথে ঘুরছেন।

ধার-দেনা করে অগ্নিদগ্ধদের খুঁজতে এসে ছিনতাইকারীর কবলে স্বজনরা

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
১০ জুলাই ২০২১, ০৭:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ ট্র্যাজেডিতে কারও স্ত্রী, কারও প্রিয় সন্তান অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিখোঁজ রয়েছেন। স্বজন হারানোর এমন খবরে ধার-দেনা করে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার জয়কা ইউনিয়নের কদমতলী ও মথুরাপাড়া গ্রামের এসব পরিবারের একদল লোক রূপগঞ্জে ছুটে যান। এই এলাকার ৭ নারী-পুরুষ শ্রমিক অগ্নিকাণ্ডের পর থেকেই নিখোঁজ আছেন।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওই ১৪ জনের একটি দল পিকআপ ভ্যান ভাড়া করে স্বজনদের মরদেহের সন্ধানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে যান। গভীর রাত পর্যন্ত অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাদের স্বজন হিসেবে কাউকে শনাক্ত করতে না পেরে আবারও সেই পিকআপ ভ্যানযোগে রূপগঞ্জ ফিরছিলেন।

রাত আড়াইটার দিকে তাদের বহনকারী গাড়িটি যাত্রামোড়া এলাকা অতিক্রমকালে দুই দিক থেকে দুটি প্রাইভেটকার এসে গতিরোধ করে অস্ত্রের মুখে থামিয়ে পিকআপে থাকা ১৪ জনের কাছ থেকে নগদ ৬৫ হাজার টাকা ও ৯টি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। 

এদের মধ্যে ছিলেন ছয় স্বজন হারানো কদমতলী গ্রামের আবু বাক্কার ও স্ত্রী হারানো খোকনও। আবু বাক্কার যুগান্তরকে জানান, প্রিয় স্বজনদের হারিয়ে আমরা যখন দিশেহারা-তখন এমন ছিনতাইয়ের ঘটনা আমাদের আরও অচল করে দিল।

তার দাবি, লোকজনের কাছ থেকে ধার-দেনা করে টাকা নিয়ে ঢাকায় এসেছিলেন তারা। এখন টাকা ও মোবাইল সেট হারিয়ে তারা নিজেরাও অসহায় হয়ে পথে পথে ঘুরছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : রূপগঞ্জে কারখানায় আগুন

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন