যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে ফের বন্দি বিক্ষোভ, ভাংচুর
jugantor
যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে ফের বন্দি বিক্ষোভ, ভাংচুর

  যুগান্তর প্রতিবেদন, যশোর  

১১ জুলাই ২০২১, ০১:১৫:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোর

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে (বালক) বন্দিদের মধ্যে ফের বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে সেখানে অবস্থানরত 'বন্দি'রা ব্যাপক ভাংচুর করেছে।

কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক জাকির হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, বেশ কিছু দিন ধরে কেন্দ্রে প্রত্যেক বন্দিদের জন্য দৈনিক ৭২ টাকা করে খাদ্যের বরাদ্দ দাবি তুলে আসছিল। তাছাড়া কেন্দ্রেটিতে আলাদা আলাদা রুমে সিনিয়র-জুনিয়র ভেদে খাদ্য সরবরাহ ও সুযোগ-সুবিধার দাবি তুলেছিল। সেই দাবিতে শনিবার সাড়ে ১১ টার দিকে বন্দিদের মধ্যে বিক্ষোভ শুরু হয়। পরে কেন্দ্রের আনসার সদস্যরা বিক্ষোভ বন্ধে অভিযান চালান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে যশোর জেলা পুলিশের শতাধিক সদস্য অভিযানে অংশ নেয়।

এদিকে ঘটনাস্থলে একাধিক কর্মকর্তার নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থান নিয়েছে। রয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেটও। পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়িও প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৩ আগস্ট যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে তিন বন্দি কিশোরের হত্যা ও ১৫ জনের আহত হওয়ার ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়েছিল। একাধিকবার তদন্ত কমিটি গঠন করা হলেও কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়ন করা হয়নি। ফলে কেন্দ্রে বার বার এমন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে ফের বন্দি বিক্ষোভ, ভাংচুর

 যুগান্তর প্রতিবেদন, যশোর 
১১ জুলাই ২০২১, ০১:১৫ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
যশোর
ছবি: সংগৃহীত

যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে (বালক) বন্দিদের মধ্যে ফের বিক্ষোভের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে সেখানে অবস্থানরত 'বন্দি'রা ব্যাপক ভাংচুর করেছে। 

কেন্দ্রের সহকারী পরিচালক জাকির হোসেন গণমাধ্যমকে জানান, বেশ কিছু দিন ধরে কেন্দ্রে প্রত্যেক বন্দিদের জন্য দৈনিক ৭২ টাকা করে খাদ্যের বরাদ্দ দাবি তুলে আসছিল। তাছাড়া কেন্দ্রেটিতে আলাদা আলাদা রুমে সিনিয়র-জুনিয়র ভেদে খাদ্য সরবরাহ ও সুযোগ-সুবিধার দাবি তুলেছিল। সেই দাবিতে শনিবার সাড়ে ১১ টার দিকে বন্দিদের মধ্যে বিক্ষোভ শুরু হয়। পরে কেন্দ্রের আনসার সদস্যরা বিক্ষোভ বন্ধে অভিযান চালান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে যশোর জেলা পুলিশের শতাধিক সদস্য অভিযানে অংশ নেয়।

এদিকে ঘটনাস্থলে একাধিক কর্মকর্তার নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থান নিয়েছে। রয়েছেন ম্যাজিস্ট্রেটও। পরিস্থিতি মোকাবেলায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়িও প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৩ আগস্ট যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে তিন বন্দি কিশোরের হত্যা ও ১৫ জনের আহত হওয়ার ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয়েছিল। একাধিকবার তদন্ত কমিটি গঠন করা হলেও কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়ন করা হয়নি। ফলে কেন্দ্রে বার বার এমন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন