নোয়াখালীতে ‘আজান দিতে গিয়ে’ বিদ্যুৎস্পর্শে প্রাণ গেল ইমামের
jugantor
নোয়াখালীতে ‘আজান দিতে গিয়ে’ বিদ্যুৎস্পর্শে প্রাণ গেল ইমামের

  কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি  

১৪ জুলাই ২০২১, ১০:৩৩:২৩  |  অনলাইন সংস্করণ

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় মসজিদ থেকে ফয়জুল করিম (২৫) নামে এক ইমামের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আজান দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পর্শে তিনি মারা গেছেন বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নের উত্তর চরবাগ্যা গ্রামের মোহাম্মদিয়া জামে মসজিদে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি ওই মসজিদের ইমাম ছিলেন।

নিহত ফয়জুল করিম উপজেলার চরবৈশাখী গ্রামের মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, দুপুর সোয়া ১টার দিকে মসজিদে জোহরের নামাজ পড়তে গিয়ে মুসল্লিরা ফয়জুলকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন।

পরে তাকে উদ্ধার করে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন বলেন, গত ৬ জুন ফয়জুলকে মসজিদের ইমাম হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। হাতে পোড়া দাগ দেখে ধারণা করা হচ্ছে, আজানের জন্য সুইচ দিতে গিয়ে তিনি বিদ্যুৎস্পর্শ হয়েছেন।

চরজব্বর থানার ওসি মো. জিয়াউল হক বলেন, কোনো অভিযোগ না থাকায় ইমামের মরদেহ দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নোয়াখালীতে ‘আজান দিতে গিয়ে’ বিদ্যুৎস্পর্শে প্রাণ গেল ইমামের

 কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি 
১৪ জুলাই ২০২১, ১০:৩৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বিদ্যুৎস্পৃষ্ট
ফাইল ছবি

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় মসজিদ থেকে ফয়জুল করিম (২৫) নামে এক ইমামের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আজান দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পর্শে তিনি মারা গেছেন বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।

মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নের উত্তর চরবাগ্যা গ্রামের মোহাম্মদিয়া জামে মসজিদে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি ওই মসজিদের ইমাম ছিলেন।

নিহত ফয়জুল করিম উপজেলার চরবৈশাখী গ্রামের মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, দুপুর সোয়া ১টার দিকে মসজিদে জোহরের নামাজ পড়তে গিয়ে মুসল্লিরা ফয়জুলকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন।

পরে তাকে উদ্ধার করে সুবর্ণচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন বলেন, গত ৬ জুন ফয়জুলকে মসজিদের ইমাম হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। হাতে পোড়া দাগ দেখে ধারণা করা হচ্ছে, আজানের জন্য সুইচ দিতে গিয়ে তিনি বিদ্যুৎস্পর্শ হয়েছেন।

চরজব্বর থানার ওসি মো. জিয়াউল হক বলেন, কোনো অভিযোগ না থাকায় ইমামের মরদেহ দাফনের জন্য পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন