জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে আ.লীগকর্মীকে পিটিয়ে হত্যা
jugantor
জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে আ.লীগকর্মীকে পিটিয়ে হত্যা

  গাজীপুর (কালীগঞ্জ) প্রতিনিধি  

১৫ জুলাই ২০২১, ১৩:৩৫:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

এনামুল

গাজীপুরের কালীগঞ্জের জামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান খাইরুল আলমের কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে এনামুল (২২) নামে এক আওয়ামী লীগকর্মীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার রাত পৌনে ৯টায় চিকিৎসাধীন ঢাকার একটি হাসপাতালে এনামুলের মৃত্যু হয়।

এর আগে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় ইউপি নির্বাচনে বিরোধের জেরে দুপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।

নিহত এনামুল উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের মধ্যে নারগানা এলাকার আব্দুল বাতেনের ছেলে।

আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাহবুবুর রহমান খান (ফারুক মাস্টার) বলেন, এনামুল নৌকার পক্ষের কর্মী ছিলেন। প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। নির্বাচনের আগের দিন থেকেই এনামুল তার বাড়ি থেকে বের হতেন না।

গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ি থেকে বের হলে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা তার ওপর হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর আহত করে।

স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে ঢাকার ধানমণ্ডির একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বুধবার রাত পৌনে ৯টায় এনামুলের মৃত্যু হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল আলম বলেন, জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে এনামুলের ওপর হামলা হয়। এ ঘটনায় জড়িতরা কেউ আমার লোক বা সমর্থক নয়। তারা সবাই দুষ্কৃতকারী। তাদের গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।

কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এইচএম আবুবকর চৌধুরী জানান, তাদের মধ্যে আগে থেকেই পারিবারিক বিরোধ ছিল। বিরোধ কেন্দ্র করেই হামলার ঘটনা ঘটেছে। নিহত এনামুলের চাচা আলম মিয়া উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সেই হিসাবে এনামুল আওয়ামী পরিবারের একজন সদস্য ছিলেন।

কালীগঞ্জ থানার ওসি একেএম মিজানুল হক জানান, পুলিশ বুধবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে আ.লীগকর্মীকে পিটিয়ে হত্যা

 গাজীপুর (কালীগঞ্জ) প্রতিনিধি 
১৫ জুলাই ২০২১, ০১:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
এনামুল
এনামুল। ছবি: যুগান্তর

গাজীপুরের কালীগঞ্জের জামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান খাইরুল আলমের কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে এনামুল (২২) নামে এক আওয়ামী লীগকর্মীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার রাত পৌনে ৯টায় চিকিৎসাধীন ঢাকার একটি হাসপাতালে এনামুলের মৃত্যু হয়।

এর আগে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় ইউপি নির্বাচনে বিরোধের জেরে দুপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে।

নিহত এনামুল উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের মধ্যে নারগানা এলাকার আব্দুল বাতেনের ছেলে।

আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাহবুবুর রহমান খান (ফারুক মাস্টার) বলেন, এনামুল নৌকার পক্ষের কর্মী ছিলেন। প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। নির্বাচনের আগের দিন থেকেই এনামুল তার বাড়ি থেকে বের হতেন না।

গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাড়ি থেকে বের হলে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা তার ওপর হামলা চালিয়ে পিটিয়ে ও কুপিয়ে গুরুতর আহত করে।

স্থানীয়রা উদ্ধার করে প্রথমে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসার পর তাকে ঢাকার ধানমণ্ডির একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বুধবার রাত পৌনে ৯টায় এনামুলের মৃত্যু হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান খাইরুল আলম বলেন, জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে এনামুলের ওপর হামলা হয়। এ ঘটনায় জড়িতরা কেউ আমার লোক বা সমর্থক নয়। তারা সবাই দুষ্কৃতকারী। তাদের গ্রেফতারের দাবি জানান তিনি।

কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এইচএম আবুবকর চৌধুরী জানান, তাদের মধ্যে আগে থেকেই পারিবারিক বিরোধ ছিল। বিরোধ কেন্দ্র করেই হামলার ঘটনা ঘটেছে। নিহত এনামুলের চাচা আলম মিয়া উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সেই হিসাবে এনামুল আওয়ামী পরিবারের একজন সদস্য ছিলেন।  

কালীগঞ্জ থানার ওসি একেএম মিজানুল হক জানান, পুলিশ বুধবার দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন