নৌকায় ভোট দেওয়ায় গৃহবধূর হাত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ
jugantor
নৌকায় ভোট দেওয়ায় গৃহবধূর হাত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ

  যুগান্তর প্রতিবেদন,বরগুনা  

১৭ জুলাই ২০২১, ২২:৩৩:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ভুক্তভোগী গৃহবধূ খাদিজা

নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ায় গৃহবধূকে পিটিয়ে হাত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার বরগুনা সদর উপজেলার পূর্ব কেওরাবুনিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী গৃহবধূ খাদিজা বরগুনা সদর উপজেলার পূর্ব কেওরাবুনিয়া গ্রামের আবদুর রহিমের স্ত্রী। এ ঘটনায় শনিবার গৃহবধূ খাদিজা বরগুনা থানায় ছয় প্রতিবেশীর নামে অভিযোগ করেছেন।

যাদের নামে অভিযোগ করা হয়েছে তারা হলেন-বরগুনা সদর উপজেলার পূর্ব কেওরাবুনিয়া গ্রামের আলতাফের ছেলে ইমরান, ফজলুল হকের ছেলে মনির, তার ভাই মতি, মতির ছেলে মারুফ, মেনাজের ছেলে হুমায়ূন ও মিরন।

ভুক্তভোগী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ২১ জুন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবদুর রহিমের স্ত্রী গৃহবধূ খাদিজা ৫নং আয়লা পাতাকাটা ইউনিয়নে পূর্ব কেওরাবুনিয়া দাখিল মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্রে নৌকা মার্কায় ভোট দেন। এ নিয়ে শুক্রবার বিকালে প্রতিবেশীইমরান, মনির, মতিদের সঙ্গে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে ইমরান ও মনির গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে দরজা খুলতে বাধ্য করে রড দিয়ে গৃহবধূ খাদিজাকে মারধর করেন। এতে তার বাম হাত ভেঙে যায়।

গৃহবধু খাদিজা বলেন, আমাদের বাড়ির সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশাররফের ঘোড়া মার্কায় ভোট দিয়েছে। কিন্তু আমরা নৌকায় ভোট দিয়েছি। মাত্র ৩২ ভোটের ব্যবধানে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়লাভ করেছে। আমরা কেন নৌকায় ভোট দিলাম সেই আক্রোশে তারা আমাকে ও আমার স্বামীকে মারধর করেছে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ইমরান মারধরের কথা অস্বীকার করে বলেন, খাদিজা পড়ে গিয়ে আঘাত পেয়েছে।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম তারিকুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

নৌকায় ভোট দেওয়ায় গৃহবধূর হাত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ

 যুগান্তর প্রতিবেদন,বরগুনা 
১৭ জুলাই ২০২১, ১০:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভুক্তভোগী গৃহবধূ খাদিজা
ভুক্তভোগী গৃহবধূ খাদিজা। ছবি: যুগান্তর

নৌকা মার্কায় ভোট দেওয়ায় গৃহবধূকে পিটিয়ে হাত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার বরগুনা সদর উপজেলার পূর্ব কেওরাবুনিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী গৃহবধূ খাদিজা বরগুনা সদর উপজেলার পূর্ব কেওরাবুনিয়া গ্রামের আবদুর রহিমের স্ত্রী। এ ঘটনায় শনিবার গৃহবধূ খাদিজা বরগুনা থানায় ছয় প্রতিবেশীর নামে অভিযোগ করেছেন।

যাদের নামে অভিযোগ করা হয়েছে তারা হলেন-বরগুনা সদর উপজেলার পূর্ব কেওরাবুনিয়া গ্রামের আলতাফের ছেলে ইমরান, ফজলুল হকের ছেলে মনির, তার ভাই মতি, মতির ছেলে মারুফ, মেনাজের ছেলে হুমায়ূন ও মিরন।

ভুক্তভোগী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ২১ জুন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আবদুর রহিমের স্ত্রী গৃহবধূ খাদিজা ৫নং আয়লা পাতাকাটা ইউনিয়নে পূর্ব কেওরাবুনিয়া দাখিল মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্রে নৌকা মার্কায় ভোট দেন। এ নিয়ে শুক্রবার বিকালে প্রতিবেশী ইমরান, মনির, মতিদের সঙ্গে  ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে ইমরান ও মনির গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে দরজা খুলতে বাধ্য করে রড দিয়ে গৃহবধূ খাদিজাকে মারধর করেন। এতে তার বাম হাত ভেঙে যায়।

গৃহবধু খাদিজা বলেন, আমাদের বাড়ির সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশাররফের ঘোড়া মার্কায় ভোট দিয়েছে। কিন্তু আমরা নৌকায় ভোট দিয়েছি। মাত্র ৩২ ভোটের ব্যবধানে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়লাভ করেছে। আমরা কেন নৌকায় ভোট দিলাম সেই আক্রোশে তারা আমাকে ও আমার স্বামীকে মারধর করেছে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ইমরান মারধরের কথা অস্বীকার করে বলেন, খাদিজা পড়ে গিয়ে আঘাত পেয়েছে।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম তারিকুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন