২৫ লাখ টাকা দাম হাঁকা সেই ‘মানিক চাঁন’ ঢাকায়
jugantor
২৫ লাখ টাকা দাম হাঁকা সেই ‘মানিক চাঁন’ ঢাকায়

  আমানুল হক আমান, বাঘা (রাজশাহী)  

২০ জুলাই ২০২১, ১১:৪৩:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার হেলালপুর গ্রামের বুদু প্রামাণিকের ছেলে চা বিক্রেতা হারান আলী। তিনি গত আড়াই বছর আগে ৫৯ হাজার টাকা দিয়ে কিনেছিলেন একটি গরু। পরে গরুটির নাম দিয়েছেন মানিক চাঁন।

আসন্ন কোরবানি ঈদে ২৫ লাখ টাকা দাম হাঁকা সেই ‘মানিক চাঁন’কে নেয়া হয়েছে ঢাকার গাবতলীর পশুরহাটে। সোমবার রাতে তাকে পিকআপে করে নেয়া হয়েছে এই হাটে। বেশি দামের আশায় এই মানিক চাঁনকে ঢাকার কোরবানি হাটে মঙ্গলবার ভোরে পৌঁছেন বলে হারান আলী জানান।

জানা যায়, স্থানীয় বাজারে দাম না উঠাই, ২০ মণ ওজনের মানিক চাঁনকে বেশি দামে বিক্রির আশায় ঢাকার কোরবানির পশুরহাটে নিয়েছেন হারান আলী। হারান আলী স্থানীয় বাজারে চা বিক্রির পাশাপাশি নিজ বাড়িতে গরু পালন করেন।

এ বিষয়ে হারান আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম জানান, ফ্রিজিয়ান জাতের গরুটি প্রতিদিনের খাবার খায় কাঁচা ঘাস, গমের ভুসি, ভাত, চিটাগুড়, শুকনা খড়। মানিক চাঁনকে নিয়মিত শ্যাম্পু দিয়ে গোসল করানো হয়। গরমে চালাতে হয় বৈদ্যুতিক ফ্যান। গরুটি ১০ ফুট লম্বা ও সাড়ে ৫ ফুট উচ্চতা। গরুটির প্রতি দিনের খাবারের জন্য ব্যয় হয় প্রায় ৪৫০-৫০০ টাকা। বর্তমান দাম হাঁকা হচ্ছে ২৫ লাখ টাকা।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আমিনুল ইসলাম জানান, কোরবানির ঈদ উপলক্ষে উপজেলায় গরু, মহিষ, খাসি, ভেড়া প্রস্তুত রয়েছে। অতিরিক্ত পশু জেলার বাইরে পাঠানো হবে। এ ছাড়া অনলাইনে বেচাকেনা হচ্ছে। শুনেছি হেলালপুর গ্রামে একটি গরুর দাম হাঁকা হয়েছে ২৫ লাখ টাকা।

২৫ লাখ টাকা দাম হাঁকা সেই ‘মানিক চাঁন’ ঢাকায়

 আমানুল হক আমান, বাঘা (রাজশাহী) 
২০ জুলাই ২০২১, ১১:৪৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার হেলালপুর গ্রামের বুদু প্রামাণিকের ছেলে চা বিক্রেতা হারান আলী। তিনি গত আড়াই বছর আগে ৫৯ হাজার টাকা দিয়ে কিনেছিলেন একটি গরু। পরে গরুটির নাম দিয়েছেন মানিক চাঁন।

আসন্ন কোরবানি ঈদে ২৫ লাখ টাকা দাম হাঁকা সেই ‘মানিক চাঁন’কে নেয়া হয়েছে ঢাকার গাবতলীর পশুরহাটে। সোমবার রাতে তাকে পিকআপে করে নেয়া হয়েছে এই হাটে। বেশি দামের আশায় এই মানিক চাঁনকে ঢাকার কোরবানি হাটে মঙ্গলবার ভোরে পৌঁছেন বলে হারান আলী জানান।

জানা যায়, স্থানীয় বাজারে দাম না উঠাই, ২০ মণ ওজনের মানিক চাঁনকে বেশি দামে বিক্রির আশায় ঢাকার কোরবানির পশুরহাটে নিয়েছেন হারান আলী। হারান আলী স্থানীয় বাজারে চা বিক্রির পাশাপাশি নিজ বাড়িতে গরু পালন করেন।

এ বিষয়ে হারান আলীর স্ত্রী মনোয়ারা বেগম জানান, ফ্রিজিয়ান জাতের গরুটি প্রতিদিনের খাবার খায় কাঁচা ঘাস, গমের ভুসি, ভাত, চিটাগুড়, শুকনা খড়। মানিক চাঁনকে নিয়মিত শ্যাম্পু দিয়ে গোসল করানো হয়। গরমে চালাতে হয় বৈদ্যুতিক ফ্যান। গরুটি ১০ ফুট লম্বা ও সাড়ে ৫ ফুট উচ্চতা। গরুটির প্রতি দিনের খাবারের জন্য ব্যয় হয় প্রায় ৪৫০-৫০০ টাকা। বর্তমান দাম হাঁকা হচ্ছে ২৫ লাখ টাকা।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আমিনুল ইসলাম জানান, কোরবানির ঈদ উপলক্ষে উপজেলায় গরু, মহিষ, খাসি, ভেড়া প্রস্তুত রয়েছে। অতিরিক্ত পশু জেলার বাইরে পাঠানো হবে। এ ছাড়া অনলাইনে বেচাকেনা হচ্ছে। শুনেছি হেলালপুর গ্রামে একটি গরুর দাম হাঁকা হয়েছে ২৫ লাখ টাকা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন