ঈদের দিনে তুচ্ছ ঘটনায় দোকানে হামলা, মালামাল লুট
jugantor
ঈদের দিনে তুচ্ছ ঘটনায় দোকানে হামলা, মালামাল লুট

  বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

২২ জুলাই ২০২১, ০২:৩৩:২৪  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর বাউফলের কাছিপাড়া ইউনিয়নের বাহেরচর বাজোরে ঈদের দিন বিকেলে একটি তুচ্ছ ঘটনার জেরে একটি মুদি দোকানে হামলা চালানোর ঘটনা ঘটেছে।

হামলায় ভাংচুরের পর দোকান থেকে নগদ আড়াই লাখ টাকাসহ মালামাল লুটপাট করে নেয়ার অভিযোগ করেছেন ভুক্তোভোগী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার আগের দিন রাত ৯টার দিকে ওই বাজারের একটি দোকানের সামনে মালবাহি একটি টমটম রাখার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দোকানি মোসারফ সিকদারের সঙ্গে মিজান কারিগর (৩৫) ও বেল্লাল কারিগরের (৩০) বাকবিতাণ্ড হয়। এর জের ধরে ঈদের দিন বিকেলে মিজান কারিগর, বেল্লাল কারিগর,জামাল খন্দকার, রুবেল খন্দকার, ও স্বাধীনের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন যুবক মোশারফ সিকদারের মুদি দোকানে গিয়ে তাকে মারধর করে। এ সময় দোকানের তিন কর্মচারীও মারধরের শিকার হয়।

একপর্যায়ে তারা দোকানে হামলা করে এবং নগদ আড়াই লাখ টাকাসহ মালামাল লুটকরে নিয়ে যায়।

ব্যবসায়ী মোসারফ সিকদার জানান, দোকানের সিসিক্যামেরায় হামলার ঘটনাটি রেকর্ড করা হয়েছে।

একাধিক বার চেষ্টা করেও হামলাকারীদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ খবর পেয়ে সন্ধ্যার দিকে বগা তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মাধবের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এসময় স্থানীয় এক সাংবাদিক সংবাদ সংগ্রহের কাজে সেখানে গেলে এসআই মাধব তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন এবং ছবি তুলতে বাধা দেন।

এ ব্যাপারে বাউফল থানার ওসি আল মামুন বলেন,‘আমি ঘটনা শুনেছি। বগা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত (বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ১টা) থানায় কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সাংবাদিকের সাথে এসআই মাধব অসৌজন্য আচরণের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। সত্যতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

ঈদের দিনে তুচ্ছ ঘটনায় দোকানে হামলা, মালামাল লুট

 বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
২২ জুলাই ২০২১, ০২:৩৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর বাউফলের কাছিপাড়া ইউনিয়নের বাহেরচর বাজোরে ঈদের দিন বিকেলে একটি তুচ্ছ ঘটনার জেরে একটি মুদি দোকানে হামলা চালানোর ঘটনা ঘটেছে।

হামলায় ভাংচুরের পর দোকান থেকে নগদ আড়াই লাখ টাকাসহ মালামাল লুটপাট করে নেয়ার অভিযোগ করেছেন ভুক্তোভোগী।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার আগের দিন রাত ৯টার দিকে ওই বাজারের একটি দোকানের সামনে মালবাহি একটি টমটম রাখার ঘটনাকে কেন্দ্র করে দোকানি মোসারফ সিকদারের সঙ্গে মিজান কারিগর (৩৫) ও বেল্লাল কারিগরের (৩০) বাকবিতাণ্ড হয়। এর জের ধরে ঈদের দিন বিকেলে মিজান কারিগর, বেল্লাল কারিগর,জামাল খন্দকার, রুবেল খন্দকার, ও স্বাধীনের নেতৃত্বে ২০-২৫ জন যুবক মোশারফ সিকদারের মুদি দোকানে গিয়ে তাকে মারধর করে। এ সময় দোকানের তিন কর্মচারীও মারধরের শিকার হয়।

একপর্যায়ে তারা দোকানে হামলা করে এবং নগদ আড়াই লাখ টাকাসহ মালামাল লুটকরে নিয়ে যায়।

ব্যবসায়ী মোসারফ সিকদার জানান, দোকানের সিসিক্যামেরায় হামলার ঘটনাটি রেকর্ড করা হয়েছে।

একাধিক বার চেষ্টা করেও হামলাকারীদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ খবর পেয়ে সন্ধ্যার দিকে বগা তদন্ত কেন্দ্রের এসআই মাধবের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এসময় স্থানীয় এক সাংবাদিক সংবাদ সংগ্রহের কাজে সেখানে গেলে এসআই মাধব তার সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন এবং ছবি তুলতে বাধা দেন।

এ ব্যাপারে বাউফল থানার ওসি আল মামুন বলেন,‘আমি ঘটনা শুনেছি। বগা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত (বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ১টা) থানায় কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সাংবাদিকের সাথে এসআই মাধব অসৌজন্য আচরণের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে। সত্যতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন