স্বামী হারা মায়ের শিশু সন্তানের লাশ মিলল ডোবায়
jugantor
স্বামী হারা মায়ের শিশু সন্তানের লাশ মিলল ডোবায়

  নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২২ জুলাই ২০২১, ১৭:৩৬:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

ডুবে মরার প্রতীকী ছবি

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নে নিখোঁজের তিন দিন পর মিনহাজ মিয়া (৫) নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের সমরগাঁও (নোয়াগাঁও) গ্রামে বাড়ির পার্শ্ববর্তী ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

শিশু মিনহাজ মিয়া উপজেলার বড় ভাকৈর পশ্চিম ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের মৃত আতিক উল্লার ছেলে।

সূত্র জানায়, শিশু মিনহাজের বাবা আতিক উল্লা বেশ কয়েক বছর পূর্বে মারা যান। এরপর থেকে ছেলে মিনহাজকে নিয়ে মা নেহা বেগম মিনহাজের নানাবাড়ি উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের সমরগাঁও (নোয়াগাঁও) গ্রামে বসবাস করে আসছেন।

গত সোমবার বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর মিনহাজের সন্ধান মিলছিল না। সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখুঁজির পরমা নেহা বেগম মঙ্গলবার রাতে নবীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। ঘটনার পর নবীগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই সমরীণ দাশের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তদন্তে নামে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশের একটি টিমসরেজমিনে বাড়ির আশপাশের এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি ডোবা থেকে শিশু মিনহাজ লাশ উদ্ধার করা হয়।।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ডালিম আহমেদ বলেন, শিশু মিনহাজ তিন দিন আগে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পর পরিবারের পক্ষ থেকে জিডি করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ তদন্তে নামে। তদন্তের এক পর্যায়ে বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি ডোবা থেকে শিশু মিনহাজের লাশউদ্ধার করা হয়। তিনি আরও বলেন, ধারণা করা হচ্ছে পানিতে ডুবেই তার মৃত্যু হয়েছে।

স্বামী হারা মায়ের শিশু সন্তানের লাশ মিলল ডোবায়

 নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি  
২২ জুলাই ২০২১, ০৫:৩৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ডুবে মরার প্রতীকী ছবি
পানিতে ডুবে মরার প্রতীকী ছবি

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নে নিখোঁজের তিন দিন পর মিনহাজ মিয়া (৫) নামে এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের সমরগাঁও (নোয়াগাঁও) গ্রামে বাড়ির পার্শ্ববর্তী  ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

শিশু মিনহাজ মিয়া উপজেলার বড় ভাকৈর পশ্চিম ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামের মৃত আতিক উল্লার ছেলে।

সূত্র জানায়, শিশু মিনহাজের বাবা আতিক উল্লা বেশ কয়েক বছর পূর্বে মারা যান। এরপর থেকে ছেলে মিনহাজকে নিয়ে মা নেহা বেগম মিনহাজের নানাবাড়ি উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের সমরগাঁও (নোয়াগাঁও) গ্রামে বসবাস করে আসছেন।

গত সোমবার বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর মিনহাজের সন্ধান মিলছিল না। সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজাখুঁজির পর মা নেহা বেগম  মঙ্গলবার রাতে নবীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। ঘটনার পর নবীগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই সমরীণ দাশের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তদন্তে নামে।
 
বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশের একটি টিম সরেজমিনে বাড়ির আশপাশের এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি  ডোবা থেকে শিশু মিনহাজ লাশ উদ্ধার করা হয়।। 

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ডালিম আহমেদ বলেন, শিশু মিনহাজ তিন দিন আগে নিখোঁজ হয়। নিখোঁজের পর পরিবারের পক্ষ থেকে জিডি করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ তদন্তে নামে। তদন্তের এক পর্যায়ে বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি  ডোবা থেকে শিশু মিনহাজের লাশ উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও বলেন, ধারণা করা হচ্ছে পানিতে ডুবেই তার মৃত্যু হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন