কোরবানির সময় গরুর লাথিতে মৃত্যু
jugantor
কোরবানির সময় গরুর লাথিতে মৃত্যু

  বগুড়া ব্যুরো  

২২ জুলাই ২০২১, ২০:৪৫:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শাজাহানপুরে কোরবানি করার সময় গরুর লাথিতে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার ঈদের দিন সকালে উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের বি-ব্লক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মামুন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মারা যাওয়া ব্যক্তি নুরুল ইসলাম বগুড়ার শেরপুর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে। পেশায় রাজমিস্ত্রি নুরুল প্রায় ৩০ বছর ধরে শাজাহানপুর উপজেলার বি-ব্লক এলাকায় পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ঈদুল আজহার নামাজ শেষে বাড়ি ফিরেবেলা ১০টার দিকে তিনি স্বজনদের সঙ্গে গরু কোরবানি করছিলেন। কোরবানির গরুটিকে জবাইয়ের জন্য মাটিতে ফেলার চেষ্টা করলে গরু লাফালাফি করতে থাকে। একপর্যায়ে গরুটি নুরুল ইসলামের পেটে লাথি দেয়। এতে তিনি অচেতন হয়ে মাটিতে পড়ে যান।

তাকে দ্রুত বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান ও ইউপি সদস্য তাজুল ইসলাম বলেন, নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে তার পরিবারে ঈদের আনন্দ বিষাদে পরিণত হয়েছে। আত্মীয়-স্বজন ও পুরো গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

কোরবানির সময় গরুর লাথিতে মৃত্যু

 বগুড়া ব্যুরো 
২২ জুলাই ২০২১, ০৮:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বগুড়ার শাজাহানপুরে কোরবানি করার সময় গরুর লাথিতে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার ঈদের দিন সকালে উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের বি-ব্লক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মামুন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মারা যাওয়া ব্যক্তি নুরুল ইসলাম বগুড়ার শেরপুর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের হোসেন আলীর ছেলে। পেশায় রাজমিস্ত্রি নুরুল প্রায় ৩০ বছর ধরে শাজাহানপুর উপজেলার বি-ব্লক এলাকায় পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ঈদুল আজহার নামাজ শেষে বাড়ি ফিরে বেলা ১০টার দিকে তিনি স্বজনদের সঙ্গে গরু কোরবানি করছিলেন। কোরবানির গরুটিকে জবাইয়ের জন্য মাটিতে ফেলার চেষ্টা করলে গরু লাফালাফি করতে থাকে। একপর্যায়ে গরুটি নুরুল ইসলামের পেটে লাথি দেয়। এতে তিনি অচেতন হয়ে মাটিতে পড়ে যান।

তাকে দ্রুত বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

আড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান ও ইউপি সদস্য তাজুল ইসলাম বলেন, নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে তার পরিবারে ঈদের আনন্দ বিষাদে পরিণত হয়েছে। আত্মীয়-স্বজন ও পুরো গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন