মাছ ধরতে গিয়ে পিস্তল কুড়িয়ে পান টুক্কু
jugantor
মাছ ধরতে গিয়ে পিস্তল কুড়িয়ে পান টুক্কু

  যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল ও কালিহাতী প্রতিনিধি  

২২ জুলাই ২০২১, ২২:৪৩:১৫  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে প্রায় এক মাস আগে আব্দুল হাই ওরফে টুক্কু মাছ ধরতে গিয়ে একটি পিস্তল কুড়িয়ে পান। অস্ত্রটি তার কাছে রেখে দেন। কয়েকদিন পর ওই অস্ত্রটি তার নাতি জিহাদের কাছে রাখতে দেন। জিহাদ তার বন্ধুদের অস্ত্রটি দেখালে এলাকায় জানাজানি হয়।

পরে কুড়িয়ে পাওয়া অস্ত্রটি উদ্ধার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে পাইকড়া ইউনিয়নের গোলড়া পূর্বপাড়া এলাকার আব্দুল হাই ওরফে টুক্কুর বাড়ির পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়।

টুক্কুর ছেলের বউ শিল্পী বেগম বলেন, যে পিস্তলটি পেয়েছিল সেটি মরিচা পড়া, অকেজো। আমার শ্বশুর পাওয়ার পর ঘর রেখে দেন। আমার ছেলে তার বন্ধুদের দেখালে এলাকায় জানাজানি হয়। বিষয়টি স্থানীয় মেম্বার মোতালেবকে জানানো হয়। মেম্বার পুলিশের কাছে জমা দেওয়ার দায়িত্ব নেয়। কয়েকদিন পর মেম্বার নিজেই এসে পিস্তলটি ফেলে দিতে বলেন। পরে আমরা পিস্তলটি ফেলে দিয়েছি।

আব্দুল হাই টুক্কু বলেন, মাছ ধরতে গিয়ে এক মাস আগে অস্ত্রটি পেয়েছিলাম। অকেজো দেখে খেলনা হিসেবে বাড়ির শিশুদের জন্য এনেছিলাম। মেম্বারকে জানালে তিনি পুলিশকে অবগত করেন। কিন্তু ওই সময় পুলিশ আসেনি।

ইউপি সদস্য মোতালেব বলেন, বিষয়টি কালিহাতী থানার এসআই ফয়েজকে জানানো হলেও তিনি বিশেষ কারণে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বৃহস্পতিবার থানা থেকে আল আমিন নামের এক এসআই এসে অস্ত্রটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

পাইকড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ নুরুজ্জামান মিন্টু বলেন, পাঁচদিন আগে ইউপি সদস্য মোতালেব ও আব্দুল হাই টুক্কুর মাধ্যমে জানতে পারি। ৩ দিন আগে বিভিন্ন মহল ও এমপি সোহেল হাজারীকে অবগত করা হয়। সোহেল হাজারী জানান, ঈদের পরে ঢাকা থেকে এসে ওসির সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে অস্ত্রটি অকেজো।

কালিহাতী থানার ওসি মোল্লা আজিজুর রহমান বলেন, ইউপি সদস্যের উপস্থিতিতে পুলিশ অস্ত্র উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে। এরপর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মাছ ধরতে গিয়ে পিস্তল কুড়িয়ে পান টুক্কু

 যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল ও কালিহাতী প্রতিনিধি 
২২ জুলাই ২০২১, ১০:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে প্রায় এক মাস আগে আব্দুল হাই ওরফে টুক্কু মাছ ধরতে গিয়ে একটি পিস্তল কুড়িয়ে পান। অস্ত্রটি তার কাছে রেখে দেন। কয়েকদিন পর ওই অস্ত্রটি তার নাতি জিহাদের কাছে রাখতে দেন। জিহাদ তার বন্ধুদের অস্ত্রটি দেখালে এলাকায় জানাজানি হয়। 

পরে কুড়িয়ে পাওয়া অস্ত্রটি উদ্ধার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে পাইকড়া ইউনিয়নের গোলড়া পূর্বপাড়া এলাকার আব্দুল হাই ওরফে টুক্কুর বাড়ির পাশ থেকে উদ্ধার করা হয়। 

টুক্কুর ছেলের বউ শিল্পী বেগম বলেন, যে পিস্তলটি পেয়েছিল সেটি মরিচা পড়া, অকেজো। আমার শ্বশুর পাওয়ার পর ঘর রেখে দেন। আমার ছেলে তার বন্ধুদের দেখালে এলাকায় জানাজানি হয়। বিষয়টি স্থানীয় মেম্বার মোতালেবকে জানানো হয়। মেম্বার পুলিশের কাছে জমা দেওয়ার দায়িত্ব নেয়। কয়েকদিন পর মেম্বার নিজেই এসে পিস্তলটি ফেলে দিতে বলেন। পরে আমরা পিস্তলটি ফেলে দিয়েছি।

আব্দুল হাই টুক্কু বলেন, মাছ ধরতে গিয়ে এক মাস আগে অস্ত্রটি পেয়েছিলাম। অকেজো দেখে খেলনা হিসেবে বাড়ির শিশুদের জন্য এনেছিলাম। মেম্বারকে জানালে তিনি পুলিশকে অবগত করেন। কিন্তু ওই সময় পুলিশ আসেনি। 

ইউপি সদস্য মোতালেব বলেন, বিষয়টি কালিহাতী থানার এসআই ফয়েজকে জানানো হলেও তিনি বিশেষ কারণে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। বৃহস্পতিবার থানা থেকে আল আমিন নামের এক এসআই এসে অস্ত্রটি উদ্ধার করে নিয়ে যায়। 

পাইকড়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সৈয়দ নুরুজ্জামান মিন্টু বলেন, পাঁচদিন আগে ইউপি সদস্য মোতালেব ও আব্দুল হাই টুক্কুর মাধ্যমে জানতে পারি। ৩ দিন আগে বিভিন্ন মহল ও এমপি সোহেল হাজারীকে অবগত করা হয়। সোহেল হাজারী জানান, ঈদের পরে ঢাকা থেকে এসে ওসির সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে অস্ত্রটি অকেজো। 

কালিহাতী থানার ওসি মোল্লা আজিজুর রহমান বলেন, ইউপি সদস্যের উপস্থিতিতে পুলিশ অস্ত্র উদ্ধার করে থানায় নিয়ে এসেছে। এরপর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন