পাহাড়ে কুপিয়ে হত্যার পর লাশ রেখে যায় বাড়ির কাছে
jugantor
পাহাড়ে কুপিয়ে হত্যার পর লাশ রেখে যায় বাড়ির কাছে

  রাঙামাটি প্রতিনিধি  

২৫ জুলাই ২০২১, ২১:৪১:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

রাঙামাটিতে পূর্বশত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন। তার নাম বাঁশি রাম তঞ্চঙ্গ্যা (৬০)। কুপিয়ে হত্যার পর তার লাশ বাড়ির কাছে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা।

শনিবার সদর উপজেলার মগবান ইউনিয়নের বল্টুগাছ মোনপাড়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। রোববার ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ওসি মো. কবির হোসেন।

জানা যায়, ওই এলাকার বাসিন্দা নোয়াধন তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে বাঁশি রামকে কে বা কারা ধারালো অস্ত্রে কুপিয়ে হত্যা করে তার নিজ বাড়ির এক পাশে লাশ ফেলে রাখে। পরে স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

পরে হাসপাতাল থেকে গ্রামের বাড়ির শ্মশানে নিয়ে গেলে সেখান থেকে রোববার সকালে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসে পুলিশ।

এলাকার স্থানীয় ইউপি সদস্য দিপুরন চাকমা বলেন, ঘটনাটি যেখানে ঘটেছে সেটি অত্যন্ত দুর্গম। কী কারণে বাঁশি রাম খুন হয়েছেন, তার সঠিক তথ্য এখনো জানা যাচ্ছে না।

এ ব্যাপারে রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ওসি কবির হোসেন বলেন, ঘটনাস্থল এলাকার মূল রাস্তা থেকে অনেক দূরে। ঘটনাটি শনিবার দুপুরের বলে জানতে পেরেছি। রোববার সকালের দিকে ঘটনাস্থল গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে ঘটনার তদন্ত করা হবে।

পাহাড়ে কুপিয়ে হত্যার পর লাশ রেখে যায় বাড়ির কাছে

 রাঙামাটি প্রতিনিধি 
২৫ জুলাই ২০২১, ০৯:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাঙামাটিতে পূর্বশত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন। তার নাম বাঁশি রাম তঞ্চঙ্গ্যা (৬০)। কুপিয়ে হত্যার পর তার লাশ বাড়ির কাছে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা।

শনিবার সদর উপজেলার মগবান ইউনিয়নের বল্টুগাছ মোনপাড়া এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। রোববার ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ওসি মো. কবির হোসেন।

জানা যায়, ওই এলাকার বাসিন্দা নোয়াধন তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে বাঁশি রামকে কে বা কারা ধারালো অস্ত্রে কুপিয়ে হত্যা করে তার নিজ বাড়ির এক পাশে লাশ ফেলে রাখে। পরে স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক।

পরে হাসপাতাল থেকে গ্রামের বাড়ির শ্মশানে নিয়ে গেলে সেখান থেকে রোববার সকালে লাশ উদ্ধার করে নিয়ে আসে পুলিশ।

এলাকার স্থানীয় ইউপি সদস্য দিপুরন চাকমা বলেন, ঘটনাটি যেখানে ঘটেছে সেটি অত্যন্ত দুর্গম। কী কারণে বাঁশি রাম খুন হয়েছেন, তার সঠিক তথ্য এখনো জানা যাচ্ছে না।

এ ব্যাপারে রাঙামাটি কোতোয়ালি থানার ওসি কবির হোসেন বলেন, ঘটনাস্থল এলাকার মূল রাস্তা থেকে অনেক দূরে। ঘটনাটি শনিবার দুপুরের বলে জানতে পেরেছি। রোববার সকালের দিকে ঘটনাস্থল গিয়ে লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে ঘটনার তদন্ত করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন