মিথ্যা মামলায় ৫ মাস কারাগারে, বাদীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে কলেজছাত্র
jugantor
মিথ্যা মামলায় ৫ মাস কারাগারে, বাদীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে কলেজছাত্র

  যুগান্তর প্রতিবেদন, বরগুনা  

২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:০৯:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

কলেজপড়ুয়া এক শিক্ষার্থী মিথ্যা মামলায় পাঁচ মাস পরে জেলহাজত থাকার পর জামিনে মুক্তি পেয়ে এখন বাদীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বলে জানা গেছে। মিথ্যা মামলার হয়রানি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সংবাদ সম্মেলন করেছেন কলেজছাত্র কাইয়ূমের বাবা আবদুল খালেক হাওলাদার।

বুধবার দুপুরে বরগুনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভা কক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বেতাগী উপজেলার হোসনাবাদ এলাকার কলেজপড়ুয়া কাইয়ূমের বাবা আবদুল খালেক।

তিনি বলেন, ২০২০ সালের ১৮ ডিসেম্বর একই এলাকার প্রতিপক্ষ কামাল হোসেন শিপন আমার জমির গাছ কেটে নেয়। আমরা বাধা দিলে তারা উত্তেজিত হয়ে আমাকে মারধর করে। আমার কলেজপড়ুয়া ছেলে ঘটনাস্থলে না থাকলেও কামাল হোসেন শিপন আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়। তাদের মিথ্যা মামলায় আমার ছেলে কাইয়ূম পাঁচ মাস জেলহাজতে ছিল। এই মিথ্যা মামলা থেকে আমার ছেলের মুক্তি চাই।

তিনি বলেন, শিপন এখনো আমাকে ও আমার ছেলেকে হুমকি দেয়- আবারও আমার ছেলে কাইয়ূমকে জেলহাজতে পাঠাবে। শিপনের ভয়ে আমারর ছেলে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। আমার ছেলে আতঙ্কে থাকে। যে কোনো সময় শিপন আমার ছেলে কাইয়ূমকে খুন করতে পারে। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এ ব্যাপারে শিপন মোবাইল ফোনে বলেন, আমার মামলার প্রধান আসামি কাইয়ূম। আমি কোনো মিথ্যা মামলা দিইনি। আদালত বিচার করবে কাইয়ূম দোষী নাকি নির্দোষ। আমি কাইয়ূমকে হুমকি দিইনি।

মিথ্যা মামলায় ৫ মাস কারাগারে, বাদীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে কলেজছাত্র

 যুগান্তর প্রতিবেদন, বরগুনা 
২৮ জুলাই ২০২১, ০৬:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কলেজপড়ুয়া এক শিক্ষার্থী মিথ্যা মামলায় পাঁচ মাস পরে জেলহাজত থাকার পর জামিনে মুক্তি পেয়ে এখন বাদীর ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে বলে জানা গেছে। মিথ্যা মামলার হয়রানি থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সংবাদ সম্মেলন করেছেন কলেজছাত্র কাইয়ূমের বাবা আবদুল খালেক হাওলাদার।

বুধবার দুপুরে বরগুনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভা কক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বেতাগী উপজেলার হোসনাবাদ এলাকার কলেজপড়ুয়া কাইয়ূমের বাবা আবদুল খালেক।

তিনি বলেন, ২০২০ সালের ১৮ ডিসেম্বর একই এলাকার প্রতিপক্ষ কামাল হোসেন শিপন আমার জমির গাছ কেটে নেয়। আমরা বাধা দিলে তারা উত্তেজিত হয়ে আমাকে মারধর করে। আমার কলেজপড়ুয়া ছেলে ঘটনাস্থলে না থাকলেও কামাল হোসেন শিপন আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়। তাদের মিথ্যা মামলায় আমার ছেলে কাইয়ূম পাঁচ মাস জেলহাজতে ছিল। এই মিথ্যা মামলা থেকে আমার ছেলের মুক্তি চাই।

তিনি বলেন, শিপন এখনো আমাকে ও আমার ছেলেকে হুমকি দেয়- আবারও আমার ছেলে কাইয়ূমকে জেলহাজতে পাঠাবে। শিপনের ভয়ে আমারর ছেলে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। আমার ছেলে আতঙ্কে থাকে। যে কোনো সময় শিপন আমার ছেলে কাইয়ূমকে খুন করতে পারে। আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এ ব্যাপারে শিপন মোবাইল ফোনে বলেন, আমার মামলার প্রধান আসামি কাইয়ূম। আমি কোনো মিথ্যা মামলা দিইনি। আদালত বিচার করবে কাইয়ূম দোষী নাকি নির্দোষ। আমি কাইয়ূমকে হুমকি দিইনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন