দুর্গাপুরে প্রশাসনকে ভুল তথ্য দেওয়ায় জরিমানা
jugantor
দুর্গাপুরে প্রশাসনকে ভুল তথ্য দেওয়ায় জরিমানা

  দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি  

২৯ জুলাই ২০২১, ১৪:০৭:০২  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ভুল তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করার অপরাধে এক ব্যক্তিকে জরিমানা করেছে উপজেলা প্রসাশন।

উপজেলার বাকলজোড়া ইউনিয়নের বড়বাট্টা গ্রামে মঙ্গলবার বিকালে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিয়ের আয়োজন করছে, এমন সংবাদ পেয়ে অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রাজীব-উল আহসান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রয়েল সাংমা ও টাস্কফোর্সের সদস্যরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চলমান লকডাউনের স্বাস্থ্যবিধি ভেঙে গ্রামের কৃষক শাহাদত মিয়ার মেয়ের সঙ্গে পাশের গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে হানিফের বিয়ের আয়োজন করা হয়। বিয়েতে উচ্চ শব্দে বাজানো হচ্ছে মাইক। মোবাইল ফোনে এমন তথ্য প্রশাসনকে জানান গ্রামের আরেক বাসিন্দা সাইফুল মিয়া।

এ সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান প্রশাসনের কর্মকর্তারা। তবে সেখানে গিয়ে ওই ঘটনার কোনো সত্যতা না পাওয়ায় কৌশলে তথ্যদাতাকে আটক করেন টাস্কফোর্সের সদস্যরা।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ভুল তথ্য প্রদান ও হয়রানি করার জন্য তথ্য প্রদানকারী সাইফুল মিয়াকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

মূলত কৃষক শাহাদাত মিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল সাইফুল মিয়ার। চলমান লকডাউনের মধ্যে বিয়ের নাটক সাজিয়ে প্রতিপক্ষকে হেয়প্রতিপন্ন করার লক্ষ্যেই অভিনব পন্থা অবলম্বর করেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রাজীব-উল-আহসান জানান, মোবাইল ফোনে সংবাদ পাওয়ার পরই আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযান পরিচালনা করি।

তবে তথ্যদাতার সংবাদের সঙ্গে ঘটনাস্থলের কোনো মিল বা সত্যতা না পাওয়ায় ভুল তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে হয়রানি করার অপরাধে তাকে জরিমানার আওতায় আনা হয়েছে।

এ ছাড়া করোনা প্রেক্ষাপটে গ্রামে যাতে কোনো প্রকার জনসমাগম বা অনুষ্ঠানের আয়োজন না করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

দুর্গাপুরে প্রশাসনকে ভুল তথ্য দেওয়ায় জরিমানা

 দুর্গাপুর (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি 
২৯ জুলাই ২০২১, ০২:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ভুল তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করার অপরাধে এক ব্যক্তিকে জরিমানা করেছে উপজেলা প্রসাশন।

উপজেলার বাকলজোড়া ইউনিয়নের বড়বাট্টা গ্রামে মঙ্গলবার বিকালে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিয়ের আয়োজন করছে, এমন সংবাদ পেয়ে অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রাজীব-উল আহসান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রয়েল সাংমা ও টাস্কফোর্সের সদস্যরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চলমান লকডাউনের স্বাস্থ্যবিধি ভেঙে গ্রামের কৃষক শাহাদত মিয়ার মেয়ের সঙ্গে পাশের গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে হানিফের বিয়ের আয়োজন করা হয়। বিয়েতে উচ্চ শব্দে বাজানো হচ্ছে মাইক। মোবাইল ফোনে এমন তথ্য প্রশাসনকে জানান গ্রামের আরেক বাসিন্দা সাইফুল মিয়া।

এ সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান প্রশাসনের কর্মকর্তারা। তবে সেখানে গিয়ে ওই ঘটনার কোনো সত্যতা না পাওয়ায় কৌশলে তথ্যদাতাকে আটক করেন টাস্কফোর্সের সদস্যরা।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ভুল তথ্য প্রদান ও হয়রানি করার জন্য তথ্য প্রদানকারী সাইফুল মিয়াকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

মূলত কৃষক শাহাদাত মিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল সাইফুল মিয়ার। চলমান লকডাউনের মধ্যে বিয়ের নাটক সাজিয়ে প্রতিপক্ষকে হেয়প্রতিপন্ন করার লক্ষ্যেই অভিনব পন্থা অবলম্বর করেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রাজীব-উল-আহসান জানান, মোবাইল ফোনে সংবাদ পাওয়ার পরই আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযান পরিচালনা করি।

তবে তথ্যদাতার সংবাদের সঙ্গে ঘটনাস্থলের কোনো মিল বা সত্যতা না পাওয়ায় ভুল তথ্য দিয়ে প্রশাসনকে হয়রানি করার অপরাধে তাকে জরিমানার আওতায় আনা হয়েছে।

এ ছাড়া করোনা প্রেক্ষাপটে গ্রামে যাতে কোনো প্রকার জনসমাগম বা অনুষ্ঠানের আয়োজন না করার পরামর্শ দেওয়া হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন