কিশোরীকে সিএনজি-হোটেলে আটকে রেখে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১
jugantor
কিশোরীকে সিএনজি-হোটেলে আটকে রেখে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১

  নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি  

২৯ জুলাই ২০২১, ২২:৩৫:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে মাহমুদ আলী (৩০) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত মাহমুদ আলী বানিয়াচং উপজেলার কদুপুর গ্রামের সঞ্জব আলীর ছেলে।

পুলিশ ও মামলা বিবরণীতে জানা যায়, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের কিশোরীকে (১৪) বিভিন্ন প্রলোভন দিয়ে পার্শ্ববর্তী বানিয়াচং উপজেলার কদুপুর গ্রামের মাহমুদ আলী ও তার সহযোগীরা প্রথমে সিএনজিতে ও পরে একটি আবাসিক হোটেলে রেখেও ধর্ষণের অভিযোগ করা হয়।

পরবর্তীতে অভিযুক্ত মাহমুদ তার নিজের বাড়িতে ওই কিশোরীকে নিয়ে আসলে মাহমুদের আত্মীয়স্বজন কিশোরীকে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। পরে ধর্ষণের বিষয়টি তার পরিবারকে অবহিত করলে ২৫ জুলাই কিশোরীকে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বৃহস্পতিবার এ ঘটনায় ওই কিশোরীর পিতা বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরে নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. ডালিম আহমেদের নেতৃত্বে পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলামসহ একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের রসুলগঞ্জ বাজার থেকে মূলহোতা মাহমুদ আলীকে গ্রেফতার করেন।

নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. ডালিম আহমেদ গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

কিশোরীকে সিএনজি-হোটেলে আটকে রেখে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ১

 নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি 
২৯ জুলাই ২০২১, ১০:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগে মাহমুদ আলী (৩০) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত মাহমুদ আলী বানিয়াচং উপজেলার কদুপুর গ্রামের সঞ্জব আলীর ছেলে।

পুলিশ ও মামলা বিবরণীতে জানা যায়, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের কিশোরীকে (১৪) বিভিন্ন প্রলোভন দিয়ে পার্শ্ববর্তী বানিয়াচং উপজেলার কদুপুর গ্রামের মাহমুদ আলী ও তার সহযোগীরা প্রথমে সিএনজিতে ও পরে একটি আবাসিক হোটেলে রেখেও ধর্ষণের অভিযোগ করা হয়।

পরবর্তীতে অভিযুক্ত মাহমুদ তার নিজের বাড়িতে ওই কিশোরীকে নিয়ে আসলে মাহমুদের আত্মীয়স্বজন কিশোরীকে তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। পরে ধর্ষণের বিষয়টি তার পরিবারকে অবহিত করলে ২৫ জুলাই কিশোরীকে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বৃহস্পতিবার এ ঘটনায় ওই কিশোরীর পিতা বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোরে নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. ডালিম আহমেদের নেতৃত্বে পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলামসহ একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের রসুলগঞ্জ বাজার থেকে মূলহোতা মাহমুদ আলীকে গ্রেফতার করেন।

নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. ডালিম আহমেদ গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন