তরুণী সেজে যুবকের প্রেম, অতঃপর...
jugantor
তরুণী সেজে যুবকের প্রেম, অতঃপর...

  বিয়ানীবাজার (সিলেট) প্রতিনিধি  

২৯ জুলাই ২০২১, ২৩:২৯:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রকৃতিগতভাবেই নারী কণ্ঠের অধিকারী ইমরান আহমদ (৩২)। আচার-আচরণ ও চালচলনেও রয়েছে মেয়েলি আদল। এই সুযোগটাকে ব্যবহার করে নিজেকে জড়িয়ে নিয়েছেন অপরাধমূলক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে।

আমেরিকা প্রবাসী তরুণী সেজে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন প্রায় পৌনে ৫ লাখ টাকা। এরপর হঠাৎ করেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় ভুক্তভোগী যুবক প্রতারিত হওয়ার বিষয়টি বুঝতে পারেন। এরপর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে প্রতারক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা পুলিশ নিশ্চিত হয় কথিত প্রেমিকা নাজহা আক্তার ছাভা ওরফে ইমরান আহমদ আসলে একজন পুরুষ। তিনি সিলেট নগরীর শেখঘাট এলাকায় বসবাস করেন। ওই এলাকার মৃত ইকবাল আহমদের ছেলে তিনি।

বুধবার বিকালে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে সিলেট কোতোয়ালি থানা পুলিশের সহযোগিতায় নগরীর শেখঘাট এলাকার জিতু মিয়া জমিদার বাড়ির বাসা থেকে তাকে রাত ৮টার দিকে তাকে গ্রেফতার করে।

সাধারণ ডায়েরি ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রতারক ইমরান আহমদ আমেরিকান তরুণী নাজহা আক্তার ছাভা নাম ধরে ভুক্তভোগী যুবক সুলতান আহমদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ফেসবুক থেকে পরিচয়ের পর ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে উভয়ের মধ্যে গভীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

নারী কণ্ঠের মাধুর্যতা দিয়ে যুবক সুলতান আহমদকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিকাশের মাধ্যমে টাকা লুটের প্রতারণা শুরু করেন প্রতারক ইমরান আহমদ। ভিকটিম সুলতান আহমদকে বিয়ে করে আমেরিকা নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে হাতিয়ে নেন ৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা। বিভিন্ন সময়ে বিকাশের মাধ্যমে নেয়া টাকা আমেরিকা নেয়ার প্রক্রিয়ায় ব্যয় হচ্ছে বলে সুলতানকে জানায় ওই প্রতারক।

গত ঈদুল আযহার সময় প্রতারক ইমরানের সঙ্গে আলাপকালে সন্দেহ হয় ভিকটিম সুলতান আহমদের। এরপর তিনি গত ২৩ জুলাই বিয়ানীবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। পরবর্তীতে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। এরপর তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠায়।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি হিল্লোল রায় জানান, প্রতারক ইমরান আহমদ প্রকৃতিগতভাবে নারী কণ্ঠের অধিকারী। যার কারণে সে খুব সহজে ভুক্তভোগী যুবক সুলতানকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে টাকা হাতিয়ে নেয়। আমরা ভুক্তভোগী যুবকের সাধারণ ডায়েরি ও প্রতারক ইমরানের মোবাইল নম্বরের অবস্থান প্রযুক্তি সহায়তায় নিশ্চিত হয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে সিলেট থেকে গ্রেফতার করেছি। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার বিষয়টি সে স্বীকার করেছে।

তিনি আরও জানান, প্রতারক ইমরান আহমদ বিবাহিত, তার স্ত্রী-সন্তানও রয়েছে। এ ঘটনায় ভিকটিম থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

তরুণী সেজে যুবকের প্রেম, অতঃপর...

 বিয়ানীবাজার (সিলেট) প্রতিনিধি 
২৯ জুলাই ২০২১, ১১:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রকৃতিগতভাবেই নারী কণ্ঠের অধিকারী ইমরান আহমদ (৩২)। আচার-আচরণ ও চালচলনেও রয়েছে মেয়েলি আদল। এই সুযোগটাকে ব্যবহার করে নিজেকে জড়িয়ে নিয়েছেন অপরাধমূলক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে।

আমেরিকা প্রবাসী তরুণী সেজে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবকের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন প্রায় পৌনে ৫ লাখ টাকা। এরপর হঠাৎ করেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় ভুক্তভোগী যুবক প্রতারিত হওয়ার বিষয়টি বুঝতে পারেন। এরপর থানায় অভিযোগ দায়ের করলে প্রতারক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা পুলিশ নিশ্চিত হয় কথিত প্রেমিকা নাজহা আক্তার ছাভা ওরফে ইমরান আহমদ আসলে একজন পুরুষ। তিনি সিলেট নগরীর শেখঘাট এলাকায় বসবাস করেন। ওই এলাকার মৃত ইকবাল আহমদের ছেলে তিনি।

বুধবার বিকালে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে সিলেট কোতোয়ালি থানা পুলিশের সহযোগিতায় নগরীর শেখঘাট এলাকার জিতু মিয়া জমিদার বাড়ির বাসা থেকে তাকে রাত ৮টার দিকে তাকে গ্রেফতার করে।

সাধারণ ডায়েরি ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, প্রতারক ইমরান আহমদ আমেরিকান তরুণী নাজহা আক্তার ছাভা নাম ধরে ভুক্তভোগী যুবক সুলতান আহমদের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ফেসবুক থেকে পরিচয়ের পর ব্যক্তিগত মোবাইল নম্বরে উভয়ের মধ্যে গভীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

নারী কণ্ঠের মাধুর্যতা দিয়ে যুবক সুলতান আহমদকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে বিকাশের মাধ্যমে টাকা লুটের প্রতারণা শুরু করেন প্রতারক ইমরান আহমদ। ভিকটিম সুলতান আহমদকে বিয়ে করে আমেরিকা নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে হাতিয়ে নেন ৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা। বিভিন্ন সময়ে বিকাশের মাধ্যমে নেয়া টাকা আমেরিকা নেয়ার প্রক্রিয়ায় ব্যয় হচ্ছে বলে সুলতানকে জানায় ওই প্রতারক।

গত ঈদুল আযহার সময় প্রতারক ইমরানের সঙ্গে আলাপকালে সন্দেহ হয় ভিকটিম সুলতান আহমদের। এরপর তিনি গত ২৩ জুলাই বিয়ানীবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। পরবর্তীতে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। এরপর তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ এনে বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলহাজতে পাঠায়। 

বিয়ানীবাজার থানার ওসি হিল্লোল রায় জানান, প্রতারক ইমরান আহমদ প্রকৃতিগতভাবে নারী কণ্ঠের অধিকারী। যার কারণে সে খুব সহজে ভুক্তভোগী যুবক সুলতানকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে টাকা হাতিয়ে নেয়। আমরা ভুক্তভোগী যুবকের সাধারণ ডায়েরি ও প্রতারক ইমরানের মোবাইল নম্বরের অবস্থান প্রযুক্তি সহায়তায় নিশ্চিত হয়ে অভিযান চালিয়ে তাকে সিলেট থেকে গ্রেফতার করেছি। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রতারণার বিষয়টি সে স্বীকার করেছে।

তিনি আরও জানান, প্রতারক ইমরান আহমদ বিবাহিত, তার স্ত্রী-সন্তানও রয়েছে। এ ঘটনায় ভিকটিম থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন